Connect with us
★ Grathor.com এ আপনিও ✍ লেখালেখি করে আয় করুন★Click Here★

এফিলিয়েট মার্কেটিং

দারাজ থেকে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে উপার্জন করার উপায়

Bd Blogger

Published

on

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি ?

সহজ কথায় বলতে গেলে, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate Marketing) হল আপনার নিজস্ব ওয়েবসাইট, ফেসবুক পেজ, ফেসবুক প্রোফাইল, ইউটিউব চ্যানেল ইত্যাদির মাধ্যমে অন্য সংস্থার পণ্য প্রচারণা করা এবং আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিক্রিত পণ্যটির কমিশন অর্জন। আপনি যদি দারাজের সহযোগী অংশীদার হন আপনার নিজস্ব ওয়েবসাইটের মাধ্যমে যতগুলো পণ্য বিক্রি হবে তার একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ কমিশন পাবেন।

দারাজ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কী?

দারাজ বাংলাদেশের বৃহত্তম অনলাইন মার্কেটপ্লেস। যেখানে বর্তমানে এক লাখ ৫০ হাজারেরও বেশি পণ্য রয়েছে। আপনি যদি আপনার বা আপনার সাইটের রেফারেন্স সহ দারাজের পণ্যগুলি বিক্রি করেন তবে আপনি কিছু কমিশন পাবেন। এটি দারাজ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং।



আপনি কত কমিশন পেতে পারেন?

সাধারণত দারাজ বাংলাদেশ আপনাকে পণ্যের বিভাগের ভিত্তিতে একটি কমিশন দেবে, আপনি কোনও ফ্যাশন পণ্যের জন্য সর্বোচ্চ ১০% কমিশন পেতে পারেন। আপনি যদি নিজের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে দশ হাজার টাকার ফ্যাশন পণ্য বিক্রি করেন তবে আপনার কমিশনটি ১০০০০x৮% = ৮০০ টাকা হবে। ১৫ এর অধিক পণ্য বিক্রি করলে আরও ১% করে বেশি কমিশন পাবেন। ফলে আপনার টোটাল কমিশন হবে ১০০০ টাকা ।

কীভাবে দারাজ অ্যাফিলিয়েট অ্যাকাউন্ট খুলবেন?

১ম ধাপঃ প্রথমেই আপনাকে চলে যেতে হবে দারাজ বাংলাদেশ এর ওয়েবসাইট এ, সেখান থেকে একদম নিচে নেমে Make Money with us > Become an affiliate partner এ ক্লিক করে “sign up for free now“ এই বাটন এ ক্লিক করতে হবে।

২য় ধাপঃ ফর্মটি যত্ন সহকারে ফিল করুন, ফিরতি মেইল এর মাধ্যমে আপনার রেজিস্ট্রেশন কনফার্ম করুন।

৩য় তৃতীয় ধাপঃ আপনি কিভাবে পেমেন্ট গ্রহন করবেন, তার জন্য আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য যেমন ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নাম্বার (IBAN), ব্যাংক এর BIC* নাম্বার, ট্যাক্সের তথ্য ফিল করুন।

৪র্থ ধাপঃ লগইন করে, দারাজ AD Media তে ক্লিক করে > Ad media KIT থেকে আপনার পছন্দের অফারের ব্যানার এবং লিঙ্ক আপনার ওয়েবসাইটে সংযুক্ত করে মাসের শেষে সেলস এর উপর আয় করুন কমিশন।

৫ম ধাপঃ আপনার ইমেইল অথবা ইনবক্সে আমাদের বিভিন্ন সময়ের ক্যাম্পেইন ও প্রোডাক্টের অফারগুলো সম্পর্কে মেইল যাবে, সেখান থেকে ব্যানার এবং লিঙ্ক নির্ধারণ করে আপনার ওয়েবসাইট থেকে প্রচারণা করা এবং কমিশন আয় করা।

আপনার কি থাকতে হবে?

১) আপনার নিজস্ব ওয়েবসাইট / ফেসবুক পেজ / ইউটিউব চ্যানেল
২) ব্যাংক অ্যাকাউন্ট
৩) অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে কিছু সাধারণ ধারণা

Advertisement
1 Comment

1 Comment

  1. Jibon Roy

    Jibon Roy

    January 22, 2021 at 8:40 pm

    Tnx

You must be logged in to post a comment Login

Leave a Reply

এফিলিয়েট মার্কেটিং

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম করুন মাসে হাজার থেকে লক্ষ টাকা পর্যন্ত

Shuvo Bhattacharjee

Published

on

আসসালামুআলাইকুম,আসা করি সবাই অনেক ভালো আছেন আর সুস্থ্য আছেন। লেখাপড়া করেও আজকাল অনেক শিক্ষিত ছেলেমেয়েরা বাড়িতে বসে আছে বেকার। দেশে শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা রয়েছে অসংখ্য।চাইলে তো আর চাকরি পাওয়া যায় না। সুতরাং বাড়িতে বসে না থেকে আজ থেকেই শুরু করুন আউটসোর্সিং এর কাজ।

অনলাইনে আউটসোর্সিং এর ক্ষেত্রে অন্যতম হচ্ছে এফিলিয়েট মার্কেটিং।এটি একটি অনলাইন ইনকাম সাইট।এখন কথা হচ্ছে অনেকে জানেন না যে এফিলিয়েট মার্কেটিং মূলত কি। গত একটি এপিসোডে আমরা আলোচনা করেছি এফিলিয়েট মার্কেটিং মূলত কি?পর্ব টি মিস করে থাকলে দেখে নিন এখনি:

আর আজকের এপিসোডে আপনাদের বলবো কিভাবে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে ঘরে বসেই কম্পিউটার না থাকলেও হতে থাকা মোবাইলটির মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

এফিলিয়েট মার্কেটিং হলো অনলাইনে কোনো কোম্পানির পণ্যের এফিলিয়েট লিংক নিয়ে সেটাকে প্রমোট করা।বিভিন্ন সোশ্যাল সাইটে।যার মাধ্যমে পণ্যটি বিক্রি করতে পারলে সেই কোম্পানি আপনাকে বিক্রির একটি অংশ দেয় কমিশন হিসেবে।



কিভাবে এফিলিয়েট শুরু করবেন:

১.এফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করার জন্য আপনার থাকতে হবে একটি ব্লগিং ওয়েবসাইট অন্যদিকে একটি ইউটিউব চ্যানেল।এখন বলতে পারেন এগুলা ছাড়া কি এফিলিয়েট মার্কেটিং করা সম্ভব না? অবশ্যই সম্ভব।কিন্তু এই দুইটি মাধ্যম এর সাহায্যে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং করে মাসে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন।যদি আপনার ব্লগ আর ইউটিউব যথেষ্ট ট্রাফিক আর ভিজিটর থাকে।

এখন আপনার ব্লগ সাইট অথবা ইউটিউব চ্যানেল কোনটি নেই কিন্তু এফিলিয়েট মার্কেটিং করবেন ভাবছেন।কোনো সমস্যা নেই এখনই বানিয়ে ফেলুন একটি ব্লগ সাইট এবং একটি ইউটিউব চ্যানেল।এখন আপনি ব্লগার সাইট থেকে ফ্রী তে একটি ব্লগ সাইট বানাতে পারবেন এরপর সেটিকে সুন্দর করে সাজিয়ে শুরু করে দিন আর্টিকেল লিখা।তারপর একটি ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে সেটাতে ভিডিও আপলোড করা শুরু করে দিন।বেশি না আপনার ব্লগ সাইটে আপনি দুই মাস ভালো ভালো আর্টিকেল লিখুন দেখবেন আপনি সহজে অ্যাডসেন্স পেয়ে যাবেন।এরপর থেকে গুগল নিজেই আপনার ব্লগে ভিজিটর পাঠাবে।

২.আমি ধরলাম আপনি একটি ব্লগ আর ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে ফেলেছেন।এখন কি করবেন?

প্রথমে ইউটিউবের সিস্টেম টা বলি।ধরুন আপনি আপনার চ্যানেলে কোনো মোবাইল রিভিউ নিয়ে ভিডিও বানিয়েছেন।সেখানে আপনি রিভিউ করা মোবাইলটির লিংক আপনার ডেসক্রিপশনে দিয়ে দেবেন।আর তাদের বলে দেবেন মোবাইলটি কিনতে চাইলে ডেসক্রিপশনে দেওয়া লিংকে গিয়ে কিনতে পারবেন।

অনেকে ভালো মোবাইল ফোন কিনতে ইউটিউবে বিভিন্ন ভিডিও দেখে থাকে। সুতরাং আপনার ভিডিওটি দেখে কিনতে চাইলে সে সরাসরি লিংকে গিয়ে কিনতে পারবে।এতে আপনি পাচ্ছেন কমিশন।

ব্লগ সাইটে আপনি মোবাইলটি নিয়ে একটি সুন্দর আর্টিকেল লিখে দেবেন এবং সাথে সেই মোবাইলটি কিনার এফিলিয়েট লিংক দিয়ে দেবেন।আপনার ব্লগের ট্রাফিক বেশি হলে আপনার এফিলিয়েট এর মাধ্যমে আয় ঠেকাই কে?

৩.আপনি আগে জানুন যে,কোন কোন জিনিষ গুলো মানুষ কিনতে চাই।সে বিষয় নিয়ে ইউটিউব আর ব্লগে রিভিউ দিন।এতে করে আপনার ব্লগিং আর ইউটিউব থেকেও আয় হবে পাশাপাশি এফিলিয়েট থেকে তো হবেই।

কত টাকা আয় করা সম্ভব এফিলিয়েট মার্কেটিং করে?

সত্যি বলতে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে কত টাকা আয় করা সম্ভব সেটা নির্ভর করে সম্পূর্ণ আপনার উপর।আপনি যদি দিনে মাত্র ১ঘণ্টা ও সময় দেন তাও মাস শেষে ভালো টাকা উপার্জন করতে পারবেন।

আর বিশেষ করে আপনার ব্লগ সাইটে আর ইউটিউব যদি ট্রাফিক ভালো থাকে তাহলে আর আপনাকে চিন্তা করতে হবে না।

কারণ এমন অনেক লোক আছে যারা এফিলিয়েট মার্কেটিং করে মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছে। সেই অনুযায়ী আপনি তো পারবেন এই কয়েক হাজার টাকা এমনিতেই ইনকাম করতে।

কয়েকটি লোভজনক এফিলিয়েট প্রোডাক্ট:

  • ডোমেইন ও হোস্টিং
  • মোবাইল ফোন
  • বিভিন্ন বিষয়ক বই
  • জামা কাপড়
  • কম্পিউটার অথবা লেপটপ

ইত্যাদি।

কিভাবে টাকা তুলবেন?

আপনি মূলত এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ব্যাংক একাউন্ট এর মাধ্যমে খুব সহজে টাকা তুলতে পারবেন।ব্যাংক অ্যাকাউন্ট যোগ করার অপশন সেখানেই পেয়ে যাবেন।সুতরাং টাকা নিয়ে চিন্তার কোনো কারণ নেই।

আসা করি লিখাটি আপনাদের অনেক উপকারে এসেছে। লিখাটি যদি আপনার উপকারে আসে তাহলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। আউটসোর্সিং করুন নিজের ক্যারিয়ার গঠন করুন।সবাই ভালো থাকবেন। ধন্যবাদ

Continue Reading

এফিলিয়েট মার্কেটিং

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন

Arman Hossan

Published

on

সহজ কথায় বলতে গেলে, অনুমোদিত ওয়েবসাইটটি নিজের ওয়েবসাইট, ফেসবুক পৃষ্ঠা, ফেসবুক প্রোফাইল, ইউটিউব চ্যানেল ইত্যাদির মাধ্যমে অন্য সংস্থার পণ্য প্রচার এবং আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিক্রিত পণ্যটির জন্য কমিশন অর্জন is আপনি যদি দারাজের সহযোগী অংশীদার হন তবে আপনি নিজের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিক্রিত পণ্যের সংখ্যার জন্য একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ কমিশন পাবেন।

দারাজ বাংলাদেশের বৃহত্তম অনলাইন মার্কেটপ্লেস। যেখানে বর্তমানে এক লাখ ৫০ হাজারেরও বেশি পণ্য রয়েছে। আপনি যদি আপনার বা আপনার সাইটের রেফারেন্স সহ ড্রয়ার পণ্য বিক্রয় করেন তবে আপনি কিছু কমিশন পাবেন। এটি দারাজ অ্যাফিলিয়েট বিপণন।

আপনি কত কমিশন পেতে পারেন?

 



সাধারণত দারাজ বাংলাদেশ আপনাকে পণ্য বিভাগের ভিত্তিতে কমিশন দেবে, যে কোনও ফ্যাশন পণ্যের জন্য আপনি সর্বোচ্চ 10% কমিশন পেতে পারেন। আপনি যদি নিজের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে দশ হাজার টাকার ফ্যাশন পণ্য বিক্রয় করেন তবে আপনার কমিশনটি 10000×7% = 800 টাকা হবে। আপনি যদি 15 টিরও বেশি পণ্য বিক্রি করেন তবে আপনি আরও 1% কমিশন পাবেন। ফলস্বরূপ, আপনার মোট কমিশন হবে 1000 রুপি।

কীভাবে দারাজ অ্যাফিলিয়েট অ্যাকাউন্ট খুলবেন?

পদক্ষেপ 1: প্রথমে আপনাকে দারাজ বাংলাদেশের ওয়েবসাইটে যেতে হবে, তারপরে আমাদের সাথে অর্থোপার্জন করুন> একটি অনুমোদিত অংশীদার হয়ে ওঠুন এবং “এখনই নিখরচায় সাইন আপ করুন” বোতামটি ক্লিক করুন।

পদক্ষেপ 2: সাবধানে ফর্মটি পূরণ করুন, রিটার্ন মেইলের মাধ্যমে আপনার নিবন্ধকরণটি নিশ্চিত করুন।

পদক্ষেপ 3: আপনার অ্যাকাউন্ট অ্যাকাউন্টের তথ্য যেমন ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর (আইবিএএন), ব্যাংকের বিআইসি * নম্বর, আপনি কীভাবে অর্থ প্রদান করবেন তা পূরণ করুন।

পদক্ষেপ 4: লগ ইন করে দারাজ এডি মিডিয়া> আপনার ওয়েবসাইটের সাথে অ্যাড মিডিয়া কেআইটি থেকে আপনার পছন্দের ব্যানার এবং লিঙ্কটি সংযুক্ত করুন এবং মাসের শেষে বিক্রয় কমিশন উপার্জন করুন।

পদক্ষেপ 5: আপনার ইমেল বা ইনবক্সে আপনি আমাদের বিভিন্ন প্রচারণা এবং পণ্য অফার সম্পর্কে ইমেল পাবেন, সেখান থেকে আপনি ব্যানার এবং লিঙ্কগুলি উত্থাপন এবং কমিশন উপার্জন করে আপনার ওয়েবসাইট প্রচার করতে পারেন।

আপনার কি আছে?

1) আপনার নিজস্ব ওয়েবসাইট / ফেসবুক পৃষ্ঠা / ইউটিউব চ্যানেল
2) ব্যাংক অ্যাকাউন্ট
3) অনুমোদিত বিপণন সম্পর্কে কিছু সাধারণ ধারণা

Continue Reading

এফিলিয়েট মার্কেটিং

PTCSAGA পিটিসি সাইট থেকে ইনকাম করুন

Tumpa Sorkar

Published

on

 

পিটিসি সাইট কি?

PTC মানে হচ্ছে Paid To Click. মানে এখানে ক্লিক থেকে আপনি টাকা মানে ডলার ইনকাম করবেন।এটা কোন ফ্রিল্যান্সিং সাইট নয়। অনেকে এসব সাইট ভুয়া বলে মনে করেন।অনেক সাইট আছে ভুয়া, যেগুওলা মানুষকে ধোঁকাবজি করে।এক টাকা ও পেমেন্ট দেয় না। কিন্তু অনেক ভাল সাইট আছেেএখানে আপনি র্ধৈয্য সহকারে কাজ করলে অবশ্যই ইনকাম করতে পারবেন।

পিটিসি সাইট বা অনলাইন থেকে আয় করতে গেলে আপনাকে অবশ্যই র্ধৈয্য সহকারে কাজ করতে হবে। অনলাইনে থেকে রাতারাতি লাখ লাখ টাকা ইনকাম করা সম্ভব নয়। তাই যে কোন বিষয়ে কাজ করতে গেলে আপনাকে অবশ্যই র্ধৈয্য ধরতে হবে। আর তা না পারলে আপনি ইনকাম করতে পারবেন না।



আপনি কোন ধরণের দক্ষতা ছাড়াই পিটিসি সাইট থেকে আয় শুরু করতে পারেন। তবে ইন্টারনেট সম্পর্কে ভাল ধারণা আপনার থাকতে হবে।

যেভাবে ইনকাম শুরু করবেন:

আপনি যদি PTCSAGA থেকে ইনকাম করতে চান তাহলে নিচের লিংকে গিয়ে আপনাকে ক্লিক করে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।

PTCSAGA রেজিস্ট্রেশন লিংক: https://ptcsaga.com/adpage.php?ref=SHUVRA GAIEEN

 

এখানে আপনাকে ইমেইল,পাসওর্য়াড দিয়ে সাইন আপ করতে হবে। তারপর সাইন ইন করবেন।

তারপর এখানে আপনাকে ১৬০০ BAP কালেক্ট করতে হবে। প্রতিদিন আপনাকে ওরা 200 BAP দিয়ে থাকে। সে হিসাবে আপনার সময় লাগবে ৮ দিন।

এই সাইট সমূহে কাজ করতে গেলে আপনাকে যা করতে হবে,তা হলো:

১. রেফার করে কাজ করতে হবে।

২.ইনভেস্ট করে কাজ করতে হবে।

আপনি যদি খুব ভালো রেফার করতে পারেন। তাহলে  রেফার করে আপনি খুব ভাল BAP কালেক্ট করতে পারবেন। মনে রাখবেন আপনার কাছে যত বেশি সংখ্যক BAP আছে, আপনি তত বেশি গ্রুপের অধিকারী। আর আপনি যত বেশি গ্রুপ পাবেন,তত বেশি ইনকাম করতে পারবেন।

আর আপনি যদি রেফার করতে না পারেন, তাহলে আপনি মিনিমাম 5 ডলার ইনভেস্ট করে ও কাজ করতে পারেন। এখন বলবেন হযতো আমি ডলার কই পাব? চিন্তার কিছু নেই। আমার কাছে এমন বিশ্বস্ত সাইট আছে,যেখান থেকে আপনি ডলার ক্রয় করতে পারেন একবারে সুলভ মূল্যে।

সাইটটির লিংক: https://dbsewalletbd.com/

তারপর আপনি প্রতিদিন কাজ করবেন আর মিনিমাম ১ ডলার প্রতিদিন ডিপোজিট করবেন আপনার ইনকাম থেকে। আপনার লক্ষ্য থাকবে বড় গ্রুপে যাওয়ার। কারণ যত বড় গ্রুপে যাবেন তত আপনার ইনকাম বাড়বে। তাই বড় গ্রুপে যাওয়ার পর আপনি কাজ করার মজা পাবেন। এই সাইটে রেজিস্ট্রেশন করে আপনি খুব ভালোভাবে ডলার কিনতে ও পারবেন আবার বিক্রি ও করতে পারবেন। কোন ফাঁকির সুযোগ নাই। খুব বিশ্বস্ত।আমি নিজেও এখানে ডলার কিনি ও বিক্রি করি।

পিটিসি সাগাতে আপনি রেজিস্ট্রেশন করলে আপনি বিস্তারিত সব দেখতে পাবেন, তাপপরে ও আমি সংক্ষিপ্ত আকারে বলার চেষ্টা করছি।

এখানে গ্রুপ ১ এ যেতে হলে আপনার কালেক্ট করতে হবে 1600 BAP। এখানে আপনার ডেইলি আয় হবে 0.14$

গ্রুপ 2 এ যেতে হলে আপনার কালেক্ট করতে হবে 14000-26000 BAP। এখানে আপনার ডেইলি আয় হবে 0.29$

গ্রুপ 3 এ যেতে হলে আপনার কালেক্ট করতে হবে 26000-51000 BAP। এখানে আপনার ডেইলি আয় হবে 0.53$

গ্রুপ 4 এ যেতে হলে আপনার কালেক্ট করতে হবে 51000-98000 BAP। এখানে আপনার ডেইলি আয় হবে 1.34$

গ্রুপ 5 এ যেতে হলে আপনার কালেক্ট করতে হবে 98000-184000 BAP। এখানে আপনার ডেইলি আয় হবে 2.8$

গ্রুপ 6 এ যেতে হলে আপনার কালেক্ট করতে হবে 184000-369000 BAP। এখানে আপনার ডেইলি আয় হবে 5.08$

গ্রুপ 7 এ যেতে হলে আপনার কালেক্ট করতে হবে 369000-740000 BAP। এখানে আপনার ডেইলি আয় হবে 7.08$

গ্রুপ 8 এ যেতে হলে আপনার কালেক্ট করতে হবে 740000-1600000 BAP। এখানে আপনার ডেইলি আয় হবে 11.9$

গ্রুপ 9 এ যেতে হলে আপনার কালেক্ট করতে হবে 1600000-3200000 BAP। এখানে আপনার ডেইলি আয় হবে 20.22$

গ্রুপ 10 এ যেতে হলে আপনার কালেক্ট করতে হবে 3200000-6500000 BAP। এখানে আপনার ডেইলি আয় হবে 31.96$

গ্রুপ 11 এ যেতে হলে আপনার কালেক্ট করতে হবে 6500000-21000000 BAP। এখানে আপনার ডেইলি আয় হবে 75.6$

গ্রুপ 12 এ যেতে হলে আপনার কালেক্ট করতে হবে 21000000-50000000 BAP। এখানে আপনার ডেইলি আয় হবে 136.61$

গ্রুপ 13 এ যেতে হলে আপনার কালেক্ট করতে হবে 50000000 BAP এর উপর। এখানে আপনার ডেইলি আয় হবে 380.23$

তাহলে এটা অবশ্যই বুঝতে পেরেছেন যে, আপনি যত বেশি BAP কালেক্ট করতে পারবেন, তত বেশি বেশি েইনকাম করতে পারেন। তা রেফার করে ও পারবেন আবার ডলার ইনভেস্ট করে ও পারবেন। আর এটা কোন ভুয়া সাইট না, এটা একদম legit সাইট। আপনার চাইলে ptc saga review লিখে গুগল র্সাচ করে দেখতে পারেন।এটা একদম ট্রাস্টেড সাইট। তাই আর দেরি না করে আজই একাউন্ট করে ইনকাম শুরু করে দিন। নতুনদের জন্য এটা খূব খু্ব ভালো হবে। ধন্যবাদ সবাইকে।

 

Continue Reading