★ Grathor.com এ আপনিও ✍ লেখালেখি করে ভূমিকা রাখতে পারেন এবং পাশাপাশি অর্থ আয় করতে পারেন★এখানে ক্লিক করে বিস্তারিত জানুন★

নবম-দশম শ্রেণীর পড়লেখা : রসায়ন

নবম-দশম শ্রেণীর পড়লেখা : রসায়ন।

 

 

এসএসসি 2021 সালের শিক্ষার্থীসহ নবম-দশম শ্রেণীর সকল শিক্ষার্থীদের উপযোগী এমসিকিউ এর জন্য শর্ট প্রশ্ন ও উত্তর।


বিষয় : রসায়ন।
তৃতীয় অধ্যায়, পদার্থের গঠন থেকে,

প্রশ্ন   : পৃথিবীর সকল পদার্থ কি দিয়ে তৈরি?
উত্তর : অতি ক্ষুদ্র ক্ষণিকা।

প্রশ্ন   : পরমাণু কিসের নাম?
উত্তর : মৌলিক পদার্থের ক্ষুদ্রতম ক্ষণিকার নাম।


প্রশ্ন   : যৌগিক পদার্থের ক্ষুদ্রতম ক্ষণিকার নাম কি?
উত্তর : অণু।

প্রশ্ন   : পরমাণুর প্রধান বৈশিষ্ট্য কি?
উত্তর : এদের নিজ নিজ পারমাণবিক সংখ্যা রয়েছে।

প্রশ্ন   : পরমাণু ও অণু উভয়ের কি রয়েছে?
উত্তর : আপেক্ষিক এবং প্রকৃত ভর।

প্রশ্ন   : পরমাণুর প্রধান কণিকা কোনগুলো?
উত্তর : প্রোটন, ইলেকট্রন এবং নিউট্রন।

প্রশ্ন   : পরমাণুর কেন্দ্রে কি থাকে?
উত্তর : নিউক্লিয়াস।

প্রশ্ন   : নিউক্লিয়াস কি দিয়ে গঠিত?
উত্তর : প্রোটন ও নিউট্রন।

প্রশ্ন   : পরমাণুর ভর কে বহন করে?
উত্তর : নিউক্লিয়াসই পরমাণুর প্রায় সকল ভর বহন করে।

প্রশ্ন   : নিউক্লিয়াসের চারদিকে কি রয়েছে?
উত্তর : কক্ষপথ।

প্রশ্ন   : কক্ষপথে কি ঘুরে বেড়ায়?
উত্তর : ইলেক্ট্রন।

প্রশ্ন   : নিউক্লিয়াসের চারদিকে বিভিন্ন কক্ষপথে কি ঘুরে বেড়ায়?
উত্তর : প্রোটনের সমান সংখ্যক ইলেকট্রন।

প্রশ্ন   : আইসোটোপ কি?
উত্তর : একই মৌলের একাধিক ভরসংখ্যা বিশিষ্ট পরমাণু।

প্রশ্ন   : রসায়নে প্রতিটি মৌলের পরমাণুকে কিসের সাহায্যে প্রকাশ করা হয়?
উত্তর : একটি প্রতীক ( Symbol ) এর সাহায্যে।

প্রশ্ন   : মৌলের প্রতীককে কিভাবে প্রকাশ করা হয়?
উত্তর : ইংরেজি বর্ণমালার একটি বর্ণ বা দুটি বর্ণের মাধ্যমে প্রকাশ করা হয।

প্রশ্ন   : দুটি বর্ণ দ্বারা প্রতীক লিখলে কিভাবে লিখতে হয়?
উত্তর : মৌলের ইংরেজি নামের প্রথম বর্ণ এবং উচ্চারণের সময় পরবর্তী যে বর্ণটি বেশি উচ্চারিত হয় তাকে পাশাপাশি লিখে প্রতীক লেখা হয়।

প্রশ্ন   : কয়েকটি প্রথম বর্ণের প্রতীকের পরমাণুর উদাহরণ দাও।
উত্তর : H, B, C, N, O, F, P, S, K, V, I, U.

প্রশ্ন   : কয়েকটি প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ণের প্রতীকের পরমাণুর উদাহরণ দাও।
উত্তর : Al, Co, Br, Ni, He, Li, Be, Ne, Si, Ar ইত্যাদি।

প্রশ্ন   : প্রথম ও তৃতীয় বর্ণের কিছু প্রতীকের পরমাণুর উদাহরণ দাও।
উত্তর : Zn, Mn, Mg ইত্যাদি।

প্রশ্ন   : Natrium কোন পরমাণুর ল্যাটিন নাম?
উত্তর : Sodium এর।

প্রশ্ন   : Copper এর ল্যাটিন নাম কি?
উত্তর : Cuprum.

প্রশ্ন   : Potassium এর ল্যাটিন নাম কি?
উত্তর : Kalium.

প্রশ্ন   : Plumbum কোন পরমাণুর ল্যাটিন নাম?
উত্তর : Lead ( লেড ) এর।

প্রশ্ন   : পদার্থে কোন কোন কণিকা বিদ্যমান থাকে?
উত্তর : প্রোটন, ইলেকট্রন ও নিউট্রনসহ বিভিন্ন কণিকা থাকে।

প্রশ্ন   : পরমাণুর স্থায়ী কণিকা কয়টি?
উত্তর : তিনটি।

প্রশ্ন   : স্থায়ী কণিকাগুলোর নাম বল ।
উত্তর : ইলেকট্রন, প্রোটন, নিউট্রন।

প্রশ্ন   : স্বাভাবিক অবস্থায় পরমাণুর কোন কণিকাগুলোর সংখ্যা সমান থাকে?
উত্তর : প্রোটন ও ইলেকট্রন সংখ্যা।

প্রশ্ন   : কোন দুটির আপেক্ষিক ভর সমান?
উত্তর : প্রোটন ও নিউট্রনের।

প্রশ্ন   : ইলেকট্রনের আপেক্ষিক ভর কেমন?
উত্তর : 1টি প্রোটন বা 1টি নিউট্রনের 1/1840 ভাগের সমান অর্থাৎ এত কম যে নাই বললেও চলে।

প্রশ্ন   : প্রতিটি কণিকার কি রয়েছে?
উত্তর : প্রকৃত ভর।

প্রশ্ন   : প্রোটনের প্রতীক কি?
উত্তর : ইংরেজি ছোট হাতের p ( পি)।

প্রশ্ন   : নিউট্রনের প্রতীক কি?
উত্তর : ইংরেজি ছোট হাতের n ( এন )।

প্রশ্ন   : ইলেকট্রনের প্রতীক কি?
উত্তর : ইংরেজি ছোট হাতের e ( ই )।

প্রশ্ন   : প্রোটনের প্রকৃত ভর কত?
উত্তর : 1.67×10^-24 গ্রাম।

প্রশ্ন   : প্রোটনের প্রকৃত আধান কত?
উত্তর : 1.60×10^-19 কুলম্ব।

প্রশ্ন   : কোনটির আধান ধনাত্মক?
উত্তর : প্রোটনের।

প্রশ্ন   :  কোনটির আধান নেই?
উত্তর : নিউট্রনের।

প্রশ্ন   : নিউট্রনের প্রকৃত ভর কত?
উত্তর : 1.675×10^-24 গ্রাম।

প্রশ্ন   : ইলেকট্রনের আধান কেমন?
উত্তর : ঋণাত্মক।

প্রশ্ন   : ইলেকট্রনের প্রকৃত ভর কত?
উত্তর : 9.11×10^-28 গ্রাম।

প্রশ্ন   : ইলেকট্রনের প্রকৃত আধান কত?
উত্তর : -1.60×10^-19 কুলম্ব।

প্রশ্ন   : নিউক্লিয়ন সংখ্যা কাকে বলে?
উত্তর : নিউক্লিয়াসে অবস্থিত প্রোটন ও নিউট্রন সংখ্যার সমষ্টিকে নিউক্লিয়ন সংখ্যা বলে।

প্রশ্ন   : ভরসংখ্যার অপর নাম কি?
উত্তর : নিউক্লিয়ন সংখ্যা।

প্রশ্ন   : পরমাণুর প্রোটন সংখ্যাকে কি বলা হয়?
উত্তর : পারমাণবিক সংখ্যা।

প্রশ্ন   : একটি পরমাণুর নিজস্ব সত্তা বা পরিচয় কোনটি?
উত্তর : পারমাণবিক সংখ্যা।

প্রশ্ন   : প্রোটন সংখ্যা বা পারমাণবিক সংখ্যাকে কি দ্বারা চিহ্নিত করা হয়?
উত্তর : Z দ্বারা।

প্রশ্ন   : ভরসংখ্যাকে কি দিয়ে চিহ্নিত করা হয়?
উত্তর : A দিয়ে।

প্রশ্ন   : Al এর প্রোটন সংখ্যা 13 এবং নিউক্লিয়ন সংখ্যা 27 হলে, নিউট্রন সংখ্যা কত?
উত্তর : 27(A) – 13 (Z) = 14

প্রশ্ন   : হাইড্রোজেনের তিনটি আইসোটোপের নাম বল।
উত্তর : হাইড্রোজেন বা প্রোটিয়াম, ডিউটেরিয়াম ও ট্রিটিয়াম।

প্রশ্ন   : হাইড্রোজেনের কয়টি আইসোটোপ আছে?
উত্তর : সাতটি।

প্রশ্ন   : হাইড্রোজেনের কয়টি আইসোটোপ প্রকৃতিতে পাওয়া যায়?
উত্তর : তিনটি।

প্রশ্ন   : হাইড্রোজেনের কয়টি আইসোটোপ গবেষণাগারে সংশ্লেষণ করা হয়?
উত্তর : প্রকৃতিতে প্রাপ্ত তিনটি বাদে বাকি চারটি।

প্রশ্ন   : আইসোটোপ কাকে বলে?
উত্তর : বিভিন্ন ভরসংখ্যাবিশিষ্ট একই মৌলের পরমাণুকে পরস্পরের আইসোটোপ বলে।

প্রশ্ন   : হাইড্রোজেনের আপেক্ষিক পারমাণবিক ভর কী?
উত্তর : হাইড্রোজেনের তিন ধরণের আইসোটোপের শতকরা পর্যাপ্ততার পরিমাণকে গড় করলে এর ভর পাওয়া যায় 1.008 একে আমরা বলতে পারি আপেক্ষিক পারমাণবিক ভর।

প্রশ্ন   : ক্লোরিনের আপেক্ষিক পারমাণবিক ভর কত?
উত্তর : 35.5

প্রশ্ন   : কোনো মৌলের একাধিক আইসোটোপ প্রকৃতিতে থাকলে, তাদের নিজ নিজ শতকরা পরিমাণ ও ভরের গুণফলের সমষ্টিকে কত দ্বারা ভাগ করলে আপেক্ষিক পারমাণবিক ভর পাওয়া যায়?
উত্তর : 100 দ্বারা।

প্রশ্ন   : কোনো মৌলের একটি পরমাণুর ভর হাইড্রোজেনের একটি পরমাণুর ভরের তুলনায় যতগুণ ভারি, তাকে ঐ মৌলের কি বলে?
উত্তর : আপেক্ষিক পারমাণবিক ভর।

প্রশ্ন   : অক্সিজেনের আপেক্ষিক পারমাণবিক ভর কত?
উত্তর : 16

প্রশ্ন   : আধুনিক সংজ্ঞানুসারে মৌলের আপেক্ষিক পারমাণবিক ভর নির্ণয়ের সূত্র লিখ।
উত্তর :
আপেক্ষিক পারমাণবিক ভর =
( মৌলের একটি পরমাণুর ভর )/( একটি কার্বন 12 আইসোটোপের ভরের 1/12 অংশ )

প্রশ্ন  : পর্যায় সারণিতে পরমাণুসমূহের যে ভর দেয়া হয়েছে তার সবগুলো কিরকম ভর?
উত্তর : আপেক্ষিক পারমাণবিক ভর।

প্রশ্ন   : কার্বন 12 আইসোটোপের ভরের 1/12 অংশের ভর কত?
উত্তর : 1.66×10^-24 গ্রাম।

প্রশ্ন   : একটি অক্সিজেন অণুর আপেক্ষিক আণবিক ভর কত?
উত্তর : 32

প্রশ্ন   : প্রাকৃতিক ও কৃত্রিম উপায়ে তৈরি আইসোটোপের সংখ্যা কত?
উত্তর : 1300’র উপরে।

প্রশ্ন   : অস্থিত আইসোটোপগুলো কি বিকিরণ করে?
উত্তর : বিভিন্ন ধরণের রশ্মি যেমন- আলফা, বিটা, গামা রশ্মি বিকিরণ করে।

প্রশ্ন   : অস্থিত আইসোটোপগুলো বিভিন্ন ধরণের রশ্মি বিকিরণ করে কিসে পরিণত হয়?
উত্তর : একই মৌলের অন্য আইসোটোপ অথবা অন্য মৌলের আইসোটোপে পরিণত হয়।

প্রশ্ন   : অস্থিত আইসোটোপগুলো বিভিন্ন রশ্মি বিকিরণ করে একই মৌলের অন্য আইসোটোপ অথবা অন্য মৌলের আইসোটোপে পরিণত হয়। মৌলের পরমাণুর এই ধর্মকে কি বলে?
উত্তর : তেজস্ক্রিয়তা।

প্রশ্ন   : নিউক্লিয়াসে পরিবর্তন ঘটলে সে প্রক্রিয়াকে কি বলে?
উত্তর : নিউক্লিয়ার বিক্রিয়া।

প্রশ্ন   : কোন রশ্মিসমূহ অধিক গতিসম্পন্ন?
উত্তর : পরমাণু থেকে নির্গত রশ্মিসমূহ।

প্রশ্ন   : কোন রশ্মি জীবন্ত কোষের ক্ষতিসাধন করে?
উত্তর : গামা রশ্মি।

প্রশ্ন   : তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ কিভাবে তৈরি করা হয়?
উত্তর : নিউক্লিয়ার বিক্রিয়ার মাধ্যমে।

প্রশ্ন   : চিকিৎসাক্ষেত্রে তেজস্ক্রিয় আইসোটোপের কয় ধরণের ব্যবহার রয়েছে?
উত্তর : দু’ধরণের।

প্রশ্ন   : চিকিৎসাক্ষেত্রে তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ কোন কোন কাজে ব্যবহার করা হয়?
উত্তর : কোনো রোগ বা রোগাক্রান্ত স্থান নির্ণয় এবং রোগ নিরাময়ে।

প্রশ্ন   : দেহের হাড় বেড়ে যাওয়া এবং কোথায় কেন ব্যথা হচ্ছে তা নির্ণয়ের জন্য কোন আইসোটোপ ব্যবহার হয়?
উত্তর : Tc-99m (Isotope of Technetium).

প্রশ্ন   : কোন ইঞ্জেকশন দিলে বেশ কিছু সময় পরে পর্দায় দেখা যায় হাড়ের কোথায় কি ধরণের সমস্যা আছে?
উত্তর : Isotope of Technetium বা সংক্ষেপে Tc-99m.

প্রশ্ন   : Tc-99m থেকে কোন রশ্মি নির্গত হয়?
উত্তর : গামা রশ্মি।

প্রশ্ন   : ভরসংখ্যার পরে m দ্বারা আইসোটোপের কোন অবস্থা প্রকাশ করে?
উত্তর : Metastable ( মেটাস্ট্যাবল )।

প্রশ্ন   : হাড়ের ব্যথার চিকিৎসায় কোন আইসোটোপ ব্যবহার হয়?
উত্তর : 153Sm অথবা 89Sr.

প্রশ্ন   : 99m-Tc থেকে গামা রশ্মি নির্গত হওয়ার পর কোন ভরবিশিষ্ট আইসোটোপ উৎপন্ন হয়?
উত্তর :99Tc ভরবিশিষ্ট আইসোটোপ।

প্রশ্ন   : টিউমারের উপস্থিতি নির্ণয় ও তা নিরাময়ে কি ব্যবহার করা হয়?
উত্তর : তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ।

প্রশ্ন   : টিউমার নিরাময়ের জন্য কোনটি ব্যবহার করা হয়?
উত্তর : 60Co

প্রশ্ন   : ক্যান্সার কোষকলাকে কিভাবে ধ্বংস করা হয়?
উত্তর : 60Co থেকে নির্গত গামা রশ্মি নিক্ষেপ করে।

প্রশ্ন   : কোনটি থাইরয়েড গ্রন্থির কোষ-কলা বৃদ্ধি প্রতিহত করে?
উত্তর : 131 I (131 Iodine).

প্রশ্ন   : রক্তের লিউকোমিয়া রোগের চিকিৎসায় কি ব্যবহৃত হয়?
উত্তর :32P এর ফসফেট।

প্রশ্ন   : 238Pu চিকিৎসাক্ষেত্রের কোন কাজে ব্যবহৃত হয়?
উত্তর : হার্টে পেইসমেকার বসাতে।

প্রশ্ন   : তেজস্ক্রিয় আইসোটোপের ব্যবহার ক্ষেত্রের নাম লিখ ।
উত্তর : চিকিৎসাক্ষেত্র, কৃষিক্ষেত্র, খাদ্য সংরক্ষণ, বিদ্যুৎ উৎপাদন ইত্যাদি।

প্রশ্ন   : বিভিন্ন ধরণের ক্যান্সার নিরাময়ে ব্যবহার হয় এমন কয়েকটি আইসোটোপের নাম লিখ।
উত্তর : 131Cs, 192Ir, 125I, 103pd, 106Ru

4 Comments

মন্তব্য করুন