Connect with us
★ Grathor.com এ আপনিও ✍ লেখালেখি করে আয় করুন★Click Here★

লাইফস্টাইল

বন্ধুত্ব নিয়ে স্ট্যাটাস – পৃথিবীতে বন্ধুত্বের সংজ্ঞা

Bipon 360

Published

on

পৃথিবীতে বন্ধুত্বের সংজ্ঞা এতো বেশি যে, বলে শেষ করা যায়নাএকজনের কাছে বন্ধুত্ব একরকমতো অন্যজনের কাছে বন্ধুত্বের সংজ্ঞা অন্যরকমবন্ধুত্বের একটি সংজ্ঞা নিয়েই হতে পারে বিশালবইআবার হতে পারে দীর্ঘ বক্তৃতাহতে পারে আমার বিরক্তিকর লেখাতবে মনে হয় জনহেএর এই সংজ্ঞাটা না দিলে বন্ধুত্ব বুঝা যায়নাবন্ধুত্ব হলো জীবনের সূর্যোদয়
সত্যি অবাক করার বিষয়, তিনি তার বন্ধুদের কতো বড় করে দেখছেনগোটা পৃথিবীর কাছে তুমি একজন মানুষ মাত্রবন্ধুর কাছে তুমি গোটা পৃথিবীভালো বন্ধু সেযে মনে করে, তুমি একটা ভালো ডিম, যদিও সে জানে ডিমটা খানিকটা ফাটা
আবার বন্ধুত্ব হচ্ছে চুইংগামের মতো হৃদয়ের কাছাকাছি, যা একবার মনে স্থান করে নিলেই হলো, ছাড়তে চাইলেও তা সম্ভব হয় না।
বন্ধুত্ব তিন ধরনের
(১) খাবারের মত, যাদের ছাড়া চলে না।
(২) ঔষধের মত, যাদের মাঝে মাঝে দরকার হয়।
(৩) অসুখের মত, যাদের কেউ চায় না।
‘তুমি যদি ৫শ’ বছর বেঁচে থাকো, আমি যেনো একদিন কম বাঁচি, যাতে তোমায় একদিনের জন্যেও মিস না করি।’বন্ধুত্ব নিয়ে সুবচনের শেষ নেই। আবার বন্ধুত্বের সুনির্দিষ্ট সংজ্ঞাও নেই। তবে এটা অস্বীকার করার কোনো জো নেই যে, বেঁচে থাকতে হলে অবশ্যই ভালো বন্ধু প্রয়োজন।
ভালো বন্ধুর মাধ্যমে তুমি আর কিছু না বুঝ বা না পাও কিন্তু তুমি কেমন, তোমার ভুলটা সে দেখাবে, আবার তোমাকে তোমার ভালো কাজের প্রশংসাও সেই করবে।
“তোমার ভালো বন্ধু সে-ই যে তোমার মধ্যকার সর্বোত্তম গুণটা বের করে আনবে।”-হেনরি ফোর্ড। বন্ধুত্ব হচ্ছে দু’জনের পরস্পরের প্রতি গ্রহণযোগ্য ও প্রত্যাশিত আচরণ। বন্ধুত্ব হচ্ছে ‘বিশ্বাস’। বন্ধুত্ব হচ্ছে ‘দু’দেহ একমন।’ — এরিস্টটল।
বন্ধুরা জানে এবং মানে তারা পরস্পরের ক্ষতি করবে না। এটা সত্যি যে, বন্ধুত্ব গড়ে উঠে কিছু প্রদর্শিত মূল্যবোধের ওপর, যার মধ্যে রয়েছে বন্ধুর বেলায় সবচেয়ে ভালোটাই ঘটুক এ প্রত্যাশার লালন, সহানুভূতি ও একাগ্রতা, সত্যবাদিতা, সততা ও পারস্পরিক সমঝোতা। মানব সভ্যতাই গড়ে উঠেছে বন্ধুত্বের ছায়ায়। একজন ভালো বন্ধু সবারই কাম্য। একজন সৎ বন্ধুর কাছে বা তার সানিধ্য পেতে সবাই ব্যাকুল থাকে।
কবি এ এস বলেছেন
“সত্যিকার বন্ধুত্বে সত্যবাদিতা চাই-ই চাই।” একজন সত্যিকার ও সত্যবাদী বন্ধু তোমাকে ভালোবাসবে আবার তোমার মন্দ কাজগুলোর সরাসরি সমালোচনাও করবে। তবে অনেক বন্ধুই আছে সুদিনের!! যাদের দুর্দিনে খুঁজে পাওয়া যায় না বা চাইলে ও পাওয় যায় না। সত্যিকারের বন্ধু সম্পর্কে অস্কার ওয়াইল্ড লিখেছেন, “যে তোমাকে পেছনে থেকে নয়, সামনে থেকে ছুরি মারতে পারে সে-ই।” কী ভয়ানক উক্তি। তবে এই কথার অন্তরালে অনেক ভালো কথা লুকিয়ে আছে। বন্ধুত্বের রশিটা সব সময়ই জৈব সীমার উর্ধে রাখা উচিত।
বয়স ও অর্থ দিয়ে বন্ধুকে পরিমাপ করা উচিত নয়। বন্ধুত্বের জায়গাটা মনের মধ্যে বিশাল করা দরকার। বর্তমান সময়ের বন্ধুত্ব কেমন এবার তা নিয়ে একটু আলোচনা করি। যুগ বদলাচ্ছে। এটা বেশ পুরোনো কথা। যুগের সঙ্গে বদলাচ্ছে সবকিছু এটাও সবার জানা।
তেমনি বদলে যাচ্ছে বন্ধুত্বের আবেগ-অনুভূতি, গতি-প্রকৃতি। নদীর নাব্যতার মতো কমে যাচ্ছে বন্ধুর গভীরতা। বন্ধুত্বে সৃষ্টি হয়েছে অনেক বিভাজন। আমাদের এখন অনেক বন্ধু। স্কুলের বন্ধু, কলেজের বন্ধু, অফিসের বন্ধু, ক্লাবের বন্ধু, কিংবা পার্টির বন্ধু, এফ বির বন্ধু। অনেক ধরনের বন্ধু আমাদের। যার কাছে স্বার্থ নেই সেই আমাদের বন্ধু। কিন্তু প্রকৃত বন্ধু? কমে যাচ্ছে সেই সংখ্যা। কারও কারও নেই বললেই চলে।
এই সময়ে শিশু-কিশোরদের বড় বন্ধু কে?সরাসরি উত্তর-কম্পিউটার। শতকরা ৮৫ ভাগ শহুরে শিশুর ক্ষেত্রে এটা সত্যি। তাদের প্রিয় বন্ধুর নাম মহান কম্পিউটার। হবেই তো কম্পিউটার, কারণ এর সঙ্গেই তো তারা বেশি সময় কাটাচ্ছে। তারা খেলতে পারছে না। ঘুরতে পারছে না। বাবা মাও বন্ধু হচ্ছে না। কারণ বাবা-মাকে ঠিকমত কাছে পাচ্ছে না তারা। আর তাদের এসব চাহিদা পূরণে সর্বদাই নিয়োজিত মহান বন্ধু কম্পিউটার।
কম্পিউটারে খেলছে, গান শুনছে, ইন্টারনেটের মাধ্যমে ঘুরছে পৃথিবী। কম্পিউটারই তাদের প্রকৃত বন্ধু। বিজ্ঞান আমাদের দিয়েছে বেগ, কেড়ে নিয়েছে আবেগ। আমাদের আবেগ কোন্ স্তরে তা উদাহরণ দিয়ে বুঝতে হবে না। অপরদিকে বন্ধুত্ব পুরোটাই আবেগ নির্ভর। সুতরাং বর্তমানে প্রকৃত বন্ধুত্বের অস্তিত্ব যে হুমকির মুখে এটা সবারই জানা। প্রযুক্তি নির্ভর সময়ে এসে আমাদের বন্ধুত্ব বাড়ছে কিন্তু গুণ ও মান কমছে। ফেস বুক সবারই পরিচিত। বন্ধু বানানোর বিশাল ফ্যাক্টরী হলো ফেসবুক বা বন্ধু বানানোর মেশিন। এই মেশিনটি এমনই ক্ষমতাধর যে, রোজ লক্ষ কোটি বন্ধু তৈরি হচ্ছে। একবার ঢুকলেই আপনার বন্ধুর সংখ্যা হবে অগণিত। ছোট-বড়, ধনী-গরিব ভেদাভেদহীন। সবাই সবার বন্ধু হচ্ছে। হাত বাড়ালেই বন্ধু।
মার্ক টোয়েনের একটি উক্তি হলো
“যে কোনো মানুষের ক্ষেত্রে তার বন্ধু তার জন্য সম্পদ স্বরূপ।” সে হিসেবে ফেসবুকের সবাই বিশাল সম্পদশালী। এজন্যে তারা সম্পদশালী কারণ তাদের অনেক বন্ধু। বিষয়টি সত্যিই প্রশংসার দাবিদার। কিন্তু বিপত্তিটা এখানে যে, অনেকের অভিযোগ ফেস বুকের বন্ধুত্ব প্রকৃতপক্ষে কোনো বন্ধুত্বই নয়। বিষয়টি শুধুই মজা করা।
দুএকটি ব্যতিক্রম বাদে ফেস বুকের বন্ধুত্ব ফেসবুকেই সীমাবদ্ধ থাকে।
ফেসবুক , মোবাইল ও ইমেই মাধ্যামে প্রতিনিয়তই বন্ধুত্বের পাল্লা ভারী হচ্ছে। কিন্তু আগের বন্ধুর মতো প্রকৃত বন্ধু এখন আর খুঁজে পাওয়া যায় না। প্রযুক্তির কল্যাণে এখন মানুষের বন্ধুর অভাব হয় না। অভাব হয় প্রকৃত বন্ধুর। যতোই আমরা প্রযুক্তির দিকে ধাবিত হচ্ছি, ততোই আমাদের মাঝে রোবটিকতা কাজ করছে। আর কমে যাচ্ছে প্রকৃত বন্ধু। সঙ্কুচিত হচ্ছে আমাদের আবেগ। ‘গোলাপ যেমন একটি বিশেষ জাতের ফুল, বন্ধুও তেমন একটি বিশেষ জাতের মানুষ।’-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। বাস্তবিকভাবে একজন বন্ধুর কাছে একজন বন্ধুর অবস্থান এমনই হওয়া উচিত!!!
Keyword:
বন্ধুত্ব নিয়ে স্ট্যাটাস, স্বার্থপর বন্ধু স্ট্যাটাস, বন্ধুত্ব ও স্বার্থপরতা, বন্ধুত্ব কি, বেইমান বন্ধু উক্তি, স্বার্থপর বন্ধু চেনার উপায়, স্বার্থপর বন্ধু উক্তি, প্রকৃত বন্ধু, স্বার্থপর বন্ধু নিয়ে উক্তি, বন্ধু নিয়ে ফেসবুক স্ট্যাটাস, বন্ধু নিয়ে কিছু উক্তি, বন্ধুত্ব নিয়ে কবিতা, বন্ধু নিয়ে ছন্দ, বন্ধু নিয়ে কিছু কথা, বন্ধুত্বের ছোট কবিতা, স্বার্থপর বন্ধু কবিতা, স্বার্থপর বন্ধু sms, বন্ধুদের নিয়ে কিছু কথা, বন্ধুদের নিয়ে কবিতা|

Advertisement
11 Comments

11 Comments

  1. Utsa Kumer

    Utsa Kumer

    February 13, 2020 at 6:26 pm

    onek sundor

  2. Muktadir Hasan

    Muktadir Hasan

    March 21, 2020 at 10:21 am

    ok

  3. Sabina Akter

    Sabina Akter

    April 7, 2020 at 10:15 am

    অসাধারণ

  4. Partha Kumar

    Partha Kumar

    April 25, 2020 at 6:46 am

    Nice

  5. Shanjida Islam

    Shanjida Islam

    May 2, 2020 at 3:51 pm

    Gd

  6. Mojammal Haque

    Mojammal Haque

    May 2, 2020 at 5:28 pm

    Hmm

  7. Mayra Islam

    Mayra Islam

    May 13, 2020 at 8:50 am

    সুন্দর

  8. Rez wana

    Rez wana

    May 19, 2020 at 5:05 pm

    ভালো

  9. Asadullah Jilani

    Asadullah Jilani

    May 24, 2020 at 5:09 pm

    ভালো

You must be logged in to post a comment Login

Leave a Reply

লাইফস্টাইল

করোনার পর চাকরি পেতে যেসব দক্ষতা লাগবে।

নিঃস্বার্থ পথিক

Published

on

করোনার এই মহামারীর কারনে পুরো বিশ্ব অর্থনৈতিকভাবে বিপর্যস্ত । এর ফলে পুরো বিশ্বজুড়ে চাকরি হারাতে লাখো লাখো মানুষ। বর্তমানে এমন পরিস্থিতিতে চাকরির বাজারে টিকে থাকা বেশ কঠিন হয়ে পড়েছে। তাই যদি কনোদিন আবার এই মহামারি শেষ হয়ে পৃথিবী স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসে তাহলে চাকরি পেতে হলে আপনাকে কয়েকটি দক্ষতা থাকা অবশ্যক-এমনটা জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

আজ আমি আপনাদের কয়েকটি দক্ষতা তুলে ধরবো যেগুলো ক্যারিয়ারে টিকিয়ে রাখতে সহায়তা করবে। প্রিয় পাঠক,তো চলুন তেমন কয়েকটি দক্ষতার বিষয়ে জেনে নিই।

নেতৃত্বের দক্ষতা:  যখন 
কোনো বিমানে যান্ত্রিক ত্রুতির সমস্যায় পড়ে থাকে তখন কেবলমাত্র একজন পাইলট পারে সেটিকে দক্ষতার সাথে নিরাপদ জায়গায় ল্যান্ড করিয়ে সেটিকে দক্ষতার সাথে পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে। শত শত মানুষের প্রান বাঁচাতে। ঠিক তেমনই এরকম বিপদের সময়ে সঠিক দৃঢ় নেতৃত্বের গুণাবলীর ব্যক্তিরা একদল মানুষকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন। সুতরাং চাকরির বাজারে আপনাকে টিকিয়ে রাখতে হলে শক্ত নেতৃত্বের দক্ষতা সম্পন্ন হতে হবে।


পরিচ্ছন্নতা: পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা দিকে যথেষ্ট নজর রাখুন। বিশেষ করে করোনার পরিস্থিতির কারনে নিজেকে ফ্রেশ রাখাটা খুবিই জরুরী।আপনি যদি চাকরির বাজারে প্রবেশ করতে চান তাহলে পরিচ্ছন্নতার উপর গুরুত্ব দেয়া উচিত।


প্রযুক্তি দক্ষতা:  করোনাভাইরাসের নির্মূলের পরবর্তী সময়ে চাকরী প্রার্থীদের সবচেয়ে বেশি সহায়তা করবে তা হলো 
প্রযুক্তিবিষয়ক জ্ঞান,দক্ষতা।


বিশেষজ্ঞদের মতে, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, ইন্টারনেট খুটিনাটি,সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যারের জ্ঞান,মাইক্রোসফট অফিসের কাজ ইত্যাদি ভবিষ্যতে আরও বিস্তৃত হবে। অতএব গুরুত্বপূর্ণ হলো এই লকডাউন সময়ে বসে না থেকে যতটা সম্ভব অবসর সময়কে কাজে লাগিয়ে প্রযুক্তিগত দক্ষতা অর্জন করা।


আপনাকে পরিবর্তনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে। অপেক্ষা করুন এই করোনা ভাইরাসের মহামারী শেষ হবার পর আমাদের জীবনে অনেক পরিবর্তন আসতে চলেছে। হুট করে জানতে পারবেন আপনি যে অফিসে কাজ করেন,যে প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন সেটা আর আগের মত নেই সেবন সবকিছু বদলে গেছে। সেসব পরিবর্তনের সঙ্গে আপনাকেও অবশ্যই মানিয়ে নিতে হবে তবেই আপনি টিকিয়ে থাকতে পারবেন।

আবেগময় বুদ্ধিমত্তা: আপনারা হয়তো অবাক হচ্ছেন আবেগময় সেটা আবার কি? আবেগময় বুদ্ধিমত্তা হলো সেই গুণ যা অন্য একজন ব্যক্তিকে তার আবেগ,দৃষ্টিভঙ্গি আরও ভালভাবে বুঝতে পারা এবং তার আবেগকে,দৃষ্টিভঙ্গিকে কাজে লাগিয়ে সফলতা অর্জন করা। পৃথিবীর বড় বড় গুনী নেতাদের এই গুণ রয়েছে। তারা সহানুভূতিশীল,দায়িত্বশীল, এবং যে কনো ব্যক্তিকে দেখলেই সহজেই অনুমান করতে পারে।

Continue Reading

লাইফস্টাইল

ফিটনেস অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারের শীর্ষ ৭ টি সুবিধা

MD Rahul

Published

on

সবাই কেমন আছেন।আশাকরি সবাই ভালো আছেন।আজ জেনে নিন ফিটনেস অ্যাপ্লিকেশন ব্যাবহারের সেরা সুবিধা সম্পর্কে।

ফিটনেস অ্যাপ কী?

ফিটনেস অ্যাপস হলো সংস্থাগুলি আপনাকে ফিট এবং সুস্থ রাখতে ডিজাইন করা অ্যাপ্লিকেশন। এই অ্যাপ্লিকেশনগুলি খুব সহজেই মোবাইল ফোনে ডাউনলোড করা যায়। এই অ্যাপ্লিকেশনের উদ্দেশ্য হলো আপনার খাবার গ্রহণ, জলের গ্রহণ এবং ওয়ার্কআউট প্যাটার্ন ট্র্যাক করে আপনার জীবনযাত্রাকে স্বাস্থ্যকর করে তোলা। কিছু অ্যাপ্লিকেশন এমনকি আপনার হার্টের হার এবং রক্তচাপের উপর নজর রাখে যা উচ্চ রক্তচাপের ব্যক্তিদের জন্য উপকারী।কিছু স্বাস্থ্য এবং ফিটনেস অ্যাপ্লিকেশন এমনকি স্বাস্থ্য কোচ আছে, যারা তাদের ক্লায়েন্টদের তাদের স্বাস্থ্য লক্ষ্যগুলি কার্যকরভাবে অর্জন করতে সহায়তা করে।

ফিটনেস অ্যাপ্লিকেশনগুলির সুবিধা

১.আপনার ডায়েট সহজে পর্যবেক্ষণ করুন

ওজন পর্যবেক্ষক বা যারা ওজন বাড়াতে চান তারা প্রতিটি খাবারে খাওয়ার খাবারের ধরণ এবং পরিমাণ উল্লেখ করতে পারেন। এই তথ্য থেকে, স্বাস্থ্য অ্যাপ্লিকেশনগুলি আপনার খাবারের ক্যালোরি, কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন এবং ফ্যাট সামগ্রী গণনা করে। এইভাবে, আপনি এমন খাবারগুলি এড়াতে পারেন যা আপনার স্বাস্থ্যের জন্য সঠিক নাও হতে পারে। আপনি সহজেই আপনার সমস্ত খাবারের পরিমাণ গ্রহণ করতে পারেন এবং কেবলমাত্র একটি ক্লিকে একটি ডিজিটাল খাবার ডায়েরি বজায় রাখতে পারেন। গবেষণায় দেখা গেছে যে খাদ্য ডায়েরি বা খাবারের লগ বজায় রাখা ব্যক্তিদের আরও সচেতনভাবে খাবার খেতে সহায়তা করে।

২.আপনার অগ্রগতি নিরীক্ষণ

এখন আপনি কেবলমাত্র এক ক্লিকে আপনার সমস্ত ওয়ার্কআউট এবং স্বাস্থ্যের অগ্রগতি পর্যবেক্ষণ করতে পারেন। ফিটনেস অ্যাপ্লিকেশনগুলি আপনার সমস্ত স্বাস্থ্য বিবরণ এবং আপডেট পূরণ করতে সক্ষম করে। উদাহরণস্বরূপ – প্রতিবার আপনি যখন পরীক্ষা করেছেন তখন আপনি রক্তে গ্লুকোজ স্তর এবং রক্তচাপের মাত্রা রেকর্ড করতে পারেন। এটি আপনাকে একসাথে আপনার স্বাস্থ্যের বিশদটি ট্র্যাক করতে সহায়তা করে। এমনকি আপনার বর্তমানের রক্তের পরামিতিগুলি আপনার পূর্ববর্তীগুলির সাথে তুলনা করতে পারেন, যা আপনার স্বাস্থ্যের উন্নতি হয়েছে কি না তা আপনাকে ধারণা দেবে।

৩.বিনামূল্যে স্বাস্থ্য এবং ফিটনেস টিপস দিন

অনেক স্বাস্থ্য এবং ফিটনেস অ্যাপ্লিকেশনগুলি স্বাস্থ্য এবং ফিটনেস সম্পর্কিত পরামর্শ এবং নির্দেশিকা সরবরাহ করে, যা ব্যক্তিদের তাদের স্বাস্থ্য লক্ষ্য পূরণে সহায়তা করে। আপনি নিখরচায় ওয়ার্কআউট বা অনুশীলন ধারণা পেতে পারেন যা আপনাকে আপনার ওয়ার্কআউটের রুটিন সহজেই পরিকল্পনা করতে সহায়তা করে।

৪. আপনার পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করুন

পেডোমিটার অ্যাপ্লিকেশনগুলি এখন মোবাইল ফোনে উপলভ্য, যেখানে আপনি কয়েকটি পদক্ষেপ রাখতে পারেন এবং আপনি যে দূরত্বটি দিয়েছিলেন সেগুলি ট্র্যাক করতে পারে। এই জাতীয় অ্যাপ্লিকেশনগুলি আপনাকে প্রয়োজনীয় সমস্ত তথ্য দিয়ে আপনার পদক্ষেপের গণনা লক্ষ্য পূরণে সহায়তা করে। আপনার পদক্ষেপগুলি পর্যবেক্ষণ করা আপনার দৈনিক পদক্ষেপের সংখ্যা উন্নতি করতে পারে এবং আপনার লক্ষ্য অর্জনের দিকে আরও কাজ করতে পারে।

৫. ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য কোচ সরবরাহ করুন

স্মার্টফোন প্রযুক্তিগুলি এখন জীবনকে আরও সহজ করে তুলেছে। আপনার আর প্রশিক্ষক বা স্বাস্থ্য কোচ বা ফিটনেস ক্লাসের খোঁজ করতে হবে না। ফিটনেস অ্যাপ্লিকেশনগুলি আপনাকে ফিট এবং সুস্থ রাখতে দুর্দান্ত সুযোগগুলি সরবরাহ করে। কিছু অ্যাপের সাশ্রয়ী মূল্যে ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য কোচ রয়েছে।কোচ আপনাকে আপনার ফিটনেস লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা করে এবং আপনাকে ফিটনেস ক্রিয়াকলাপ এবং আপনার ডায়েট সম্পর্কেও শিক্ষিত করে। সর্বোত্তম অংশটি হলো এই সুবিধাটি পেতে আপনাকে দীর্ঘ সময় ধরে ভ্রমণ করার দরকার নেই। আপনাকে যা করতে হবে তা হলো অ্যাপটি ডাউনলোড করে একটি ফিটনেস প্রোগ্রাম শুরু করা

৬.এক স্বাস্থ্য সরঞ্জামে সমস্ত

ফিটনেস অ্যাপ্লিকেশনগুলি হলো ওয়ান স্টপ স্টেশনের মতো যেখানে আপনি আপনার সমস্ত লাইফস্টাইল পরামিতি যেমন স্টেপ কাউন্ট, ডায়েট, জলের গ্রহণ, রক্তের পরামিতি এবং ওয়ার্ক আউট রুটিনগুলি পর্যবেক্ষণ করতে পারেন। এই সমস্ত কিছুর রেকর্ড রাখতে আপনার বিভিন্ন ডায়েরি বা বই বজায় রাখতে হবে না। ফিটনেস অ্যাপ্লিকেশনগুলি আপনার জীবনযাত্রার অভ্যাসগুলি উন্নত করতে সহায়তা করে, কারণ এগুলি আপনার স্বাস্থ্যের উপর একটি বিশাল ইতিবাচক প্রভাব ফেলে।

৭.আপনাকে অনুপ্রাণিত রাখুন

ফিটনেস অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সুবিধা হলো ‘মোটিভেশন’। ফিটনেস অ্যাপ্লিকেশনগুলি থেকে বিজ্ঞপ্তি এবং অনুস্মারকগুলি আপনার স্বাস্থ্য লক্ষ্যগুলি সম্পর্কে আপনাকে স্মরণ করিয়ে রাখে, এভাবে আপনাকে প্রেরণা জোগায়। আপনার স্মার্টফোনটি ব্যবহার করার সময় আপনি একদিনে আপনার ফিটনেস অ্যাপটি বিভিন্ন সময়ে আসতে পারেন। ফিটনেস
অ্যাপ্লিকেশনগুলি আমাদের জীবনকে আরও সহজ করে তুলেছে এবং আপনাকে প্রতিদিন আপনার ক্রিয়াকলাপগুলি ট্র্যাক করতে সক্ষম করে। এইভাবে, আপনাকে আপনার ক্রিয়াকলাপ এবং সামগ্রিক ফিটনেসের দিকে মনোনিবেশ করে তোলে।

পোষ্টটি কেমন লাগলো প্রিয় পাঠকবৃন্দ। আপনাদের উত্তরের অপেক্ষায়। পোষ্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।






Continue Reading

লাইফস্টাইল

আপনার শিশুর জন্য সঠিক জুতো কীভাবে নির্বাচন করবেন

MD Rahul

Published

on

সবাই কেমন আছেন।আশাকরি সবাই ভালো আছেন।আজ নিয়ে আসলাম আপনার শিশুর জন্য কোন ধরনের জুতা নির্বাচন করবেন।
আপনার বাচ্চা তার পায়ে পড়ার আগেই আপনি স্বাভাবিকভাবেই এই শিশুর জুতো কিনতে আগ্রহী। আপনার ক্ষুদ্র টোটস তাদের সেরা পা এগিয়ে রাখার আগে এটি কেবল সময়ের বিষয়। সর্বদা একটু প্রস্তুতির প্রয়োজন হয়, তবে চুলচেরা কিছুই হয় না! অনেক পিতা-মাতা সিদ্ধান্ত নেন যে তাদের বাচ্চা তাদের প্রথম বুটিগুলি কাটিয়ে উঠতে আরও বেশি সময় কাটবে, অন্যরা খুব শীঘ্রই এটির জন্য যায়। যেভাবেই হোক, শীঘ্রই বা পরে আপনার শিশুর পক্ষে সঠিক জুতা খেলাধুলা করা এবং অতিরিক্ত পরিধানের অনুভূতির সাথে পরিচিত হওয়া প্রয়োজন
বাচ্চাদের জন্য বাজারটি আরাধ্য এবং সুন্দর জুতা দিয়ে প্লাবিত হয়েছে, তবে বাবা-মায়ের পক্ষে আপনার শিশুর ঠিক ঠিক ফিট হওয়া জুতো বাছাই করা গুরুত্বপূর্ণ। আপনার পছন্দের দোকানে জুতার তাকগুলিতে মনোমুগ্ধকর ফ্যাশনে সজ্জিত এই তলগুলির চেহারা দিয়ে দূরে সরে যাবেন না। প্রলোভন এড়াতে এবং আপনার শিশুর জন্য কী আরামদায়ক হবে তা বেছে নিতে।

আপনি কয়েকটি সহজ পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করতে পারেন:

জুতোর সঠিক আকার বেছে নেওয়ার সময় বাচ্চাদের প্রাপ্তবয়স্কদের মতো একই পরিমাণ মনোযোগ প্রয়োজন। অতএব, জুতোর আরাম এবং নমনীয়তা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে এবং এটি নির্বাচনের মূল মানদণ্ড হওয়া উচিত।একটি শিশুর জন্য জুতো যথাযথ উপযুক্ত হওয়া উচিত – খুব আলগা হলে আপনার শিশুটি পড়ে যেতে পারে বা হাঁটতে একেবারে অসুবিধাগ্রস্থ হতে পারে। খুব বেশি টাইট হলে আপনার বাচ্চার ফোস্কা বা জুতোয়ের কামড় পড়তে পারে, যার ফলে পায়ে জ্বালা বা ব্যথা হতে পারে যা খুব ঘা হয়ে যেতে পারে এবং আরও খারাপ হতে পারে।
আবহাওয়ার পরিস্থিতিও মনে রাখা উচিত। গ্রীষ্মের জন্য স্যান্ডেল, -অন বা খোলা টুড জুতো উপযুক্ত হবে, যা আপনার শিশুর পায়ে শ্বাস নিতে সহায়তা করে। জুতার তলগুলি পিচ্ছিল হওয়া উচিত এবং অবিচ্ছিন্নভাবে পুরু হওয়া উচিত না কারণ তারা নিবিড় হাঁটাচলা না করে।আপনি নিজের প্রবেশ করতে সক্ষম হবেন আপনার বাচ্চাটি ফিটটি পরীক্ষা করতে জুতোটি স্পোর্ট করে এবং জুতার আঙুল এবং শেষের মধ্যে কমপক্ষে আধা ইঞ্চি ফাঁক করে আঙ্গুলটি স্বাচ্ছন্দ্যে আঁচড়ান। চিকিত্সকের সাথে চেক করুন, আপনার সাধারণ পাতায় আপনার শিশুর পায়ের আকার আপ।

সাবধানতা অবলম্বন করা:

গন্ধযুক্ত পা এবং জুতা। কিছু বাচ্চাদের গন্ধ খারাপ হতে পারে, বড় হওয়ার চেয়ে খারাপ। সুতরাং, স্বাস্থ্যকর উদ্দেশ্যে ধুয়ে যাওয়া জোড়া জুতাতে বিনিয়োগ করা ভাল। বালির কামড় এবং পায়ের আঙ্গুলের সংক্রমণ এড়াতে জুতা বা এমনকি স্যান্ডেলগুলির অভ্যন্তর থেকে বালু বা কাদা পরিষ্কার করুন। জুতো গোড়ালি যদি উঁচু বা বুট হয় তবে শিশুর হাঁটাচলা সীমাবদ্ধতা এড়াতে পায়ের গোড়ালিগুলির চারদিকে চলাচল অবাধ এবং নমনীয় কিনা তা পরীক্ষা করুন। বাচ্চাদের ধীরে ধীরে মনোযোগ দেওয়া উচিত দ্বিতীয় বিভাজনে তারা পড়ে যেতে পারে এবং আপনার বিশ্বকে উপরের দিকে ডাউন করতে পারে। অতএব, জরিযুক্ত জুতা সঙ্গে তাদের অনেক পুনরায় টাই করতে প্রস্তুত থাকুন। সামান্যতম অবহেলা আপনার শিশুকে তার পায়ে কাঁপিয়ে তুলতে পারে। কিছু শ্বাস প্রশ্বাসের জন্য, ভেলক্রো দিয়ে জুতো বেছে নেওয়া ভাল। বাবার পা এক রকম নয় এক পা সবসময় অন্যটির চেয়ে কিছুটা বড় থাকে তাই বড় ফুট আরও ভাল ফিট করা জুতো বাছাই করা ভাল।

অনুপযুক্ত ফিটিং জুতো এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

বাচ্চা হিসাবে, আপনার শিশুর হাড়গুলি নমনীয় এবং যদি একটি ছোট আকারের জুতো পরানো হয় তবে নিজেকে সংকোচিত পরিবেশে উপযুক্ত করে তুলতে পারে। আপনার বাচ্চা অভিযোগ করতে বা কানা দিতে পারবে না, কারণ প্রভাবগুলি তাত্ক্ষণিকভাবে হবে না, তবে সময়ের সাথে সাথে, একটি বিধ্বংসী প্রভাব ফেলতে পারে। আপনার শিশুর জন্য বিবেচিত ভুল আকারের জুতাগুলির খারাপ প্রভাবগুলি বোঝার জন্য গবেষকরা এবং চিকিৎসকরা এখানে যা রেখেছেন তা এখানে।খুব সংক্ষিপ্ত এবং শক্ত জুতো পায়ের আঙ্গুলের প্রাকৃতিক অবস্থানকে বিকৃত করে যার ফলে পায়ের পায়ের জোড়গুলির অবস্থান পরিবর্তন হয়। টাইট বা ছোট জুতোতে পায়ের আঙ্গুলগুলি টানটান হয়ে যায় ফলে টেন্ডার ব্যথা, প্রদাহ এবং পায়ের পেশী সংক্ষিপ্ত হয়। স্বাভাবিকভাবেই, শর্ট জুতাগুলিতে রক্ত ​​সঞ্চালনের সমস্যা সৃষ্টি করে, ঠান্ডা এবং অসাড়তা অনুভূতি, ভেরিকোজ শিরাগুলির মতো শিরাজনিত সমস্যা দেখা দিলে পা তার প্রাকৃতিক অবস্থান হারাতে থাকে। সমস্ত মাননীয় জুতো খারাপ অঙ্গবিন্যাসের কারণ হতে পারে, কারণ আপনার শিশুটি বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সন্ধান করতে পারে আরামদায়ক অঞ্চলটি স্লুইচিং করে বা পোঁদ নিয়ে পুরোপুরি বাইরে দাঁড়িয়ে বা তার শরীরের ওজন একাকীভাবে পা দুটির উপর দিয়ে বিশ্রাম নেওয়ার মাধ্যমে লড়াই করার জন্য আরাম জোন।অসুস্থতাযুক্ত জুতোজনিত কারণে সবচেয়ে সাধারণ এবং অত্যন্ত গুরুতর সমস্যা হ’ল ব্যান। সংক্ষিপ্ত বা আঁট জুতো পায়ের আঙ্গুলের গভীর বাঁক নিতে সময়সীমার কারণে যথাযথভাবে পায়ের প্রান্তরেখা নষ্ট করতে পারে, ফলে চরম ব্যথা হয় এবং কখনও কখনও অপারেশনেরও প্রয়োজন হয়।

কেনার উপযুক্ত সময়:

দিনের শেষে, আপনি আপনার শিশুর জুতা বাছাই করার সঠিক সময় সিদ্ধান্ত নেওয়ার পক্ষে সেরা বিচারক। কেবলমাত্র আপনি সেই সময়টি জানেন যখন আপনার শিশু প্রচুর মজাদার মেজাজে থাকে, এটি জুতার কেনাকাটার উপযুক্ত সময়। সর্বোপরি, আপনার বাচ্চাকে সেই জুতা খেলাধুলা করতে এবং সঠিক জোড় বেছে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে সহায়তা করার জন্য আপনার চারপাশে হাঁটতে হবে। এখন, যদি আপনার কান্নার বাচ্চা আপনাকে পাগল করে তোলে তবে তা সম্ভব হবে না। আপনার যদি আপনার প্রবাসে খুব বেশি চালাতে হয় তবে আপনার শিশুর জুতো চেক সেশনগুলি প্রথমে শেষ করার চেষ্টা করুন এবং আপনার বাচ্চা যখন সমস্ত ক্লান্ত এবং ছাদটি নীচে নেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকে তখন উভয়ই মলত্যাগের কারণ হয়ে থাকে।

জুতো পরিবর্তনের ফ্রিকোয়েন্সি:

আপনি যখন আপনার শিশুর জুতো বাছাই করেন তখন আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে যে শিশুর পায়ের আঙ্গুল এবং জুতার শেষের মধ্যে কমপক্ষে আধা আঙ্গুলের দূরত্ব রয়েছে। কিছু বাবা-মা বাচ্চার হাঁটার ব্যয় সর্বাধিক পরিধানের চেষ্টা করে বড় আকারের জুতোয় বিনিয়োগ করে। প্রতিটি শিশুর জন্য বৃদ্ধির ফ্যাক্টর পরিবর্তিত হয়, সুতরাং, বড় আকারের জুতার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া আপনার শিশুর দ্রুত বৃদ্ধির উপরও নির্ভর করে। তিন সপ্তাহ থেকে এক মাস পর্যন্ত যে কোনও জায়গায় আপনার বাচ্চার জন্য নতুন জোড়া জুতা লাগতে পারে। জুতোর পরিবর্তন বিবেচনা করার জন্য আপনাকে একা এবং উপরের কভারটি পরিধান এবং টিয়ার করতে হবে।
এই শব্দগুলি মনে রাখবেন, সমস্ত পদক্ষেপগুলি আপনার পায়ের ভিত্তিতে পৌঁছানোর পরে এবং আপনার টটগুলি তাদের চতুর ছোট শক্ত পায়ে যাত্রা শুরু করার চেয়ে ভাল আর কিছু নেই।

পোষ্টটি কেমন লাগলো তা কমেন্ট করে জানাবেন। এই রকম আরো আপডেট আর্টিকেল পেতে আমাদের সাথে থাকুন।পোষ্টটি পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।






Continue Reading