Connect with us
★ Grathor.com এ আপনিও ✍ লেখালেখি করে আয় করুন★Click Here★

উইন্ডোজ টিপস

মাইক্রোফোন এর সাউন্ড কে দুই থেকে তিন গুণ করে নিন আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপে ,

MD SALIM HOSSAIN

Published

on

আপনি ল্যাপটপ বা কম্পিউটার ইউজ করেন , কিন্তু আপনি যখন কোন কিছু আপনার ল্যাপটপ বা কম্পিউটারের মাইক্রোফোন দিয়ে শোনার জন্য চেষ্টা করেন তখন , আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপে ইনসার্ট করা মাইক্রোফোন এ কথা কম শুনা যায় তখন আপনার কেমন লাগে মনে হয় খুব খারাপ লাগে ।

যারা স্ক্রিন রেকর্ড করে ইউটিউবিং করেন তা অনেক সময় একটা সমস্যায় পড়েন । সেটা হচ্ছে , আপনি যখন আপনার মাইক্রোফোন দিয়ে কম্পিউটার বা ল্যাপটপে কোন কিছু রেকর্ড করেন তখন আপনি বা আপনার কথাগুলো আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপে সঠিকভাবে রেকর্ড হয় না এবং সঠিক ভলিয়ম আপনি শুনতে পান না অর্থাৎ আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপ আপনার ভলিউমটাকে অর্থাৎ কথার ভলিউমটাকে সঠিকভাবে রেকর্ড করে না । তখন আপনি হতাশ হয়ে পড়েন যে আমি এত জোরে কথা বলছি তবুও কেন আমার কথাগুলো স্পষ্ট ভাবে কম্পিউটার রেকর্ড করছে না , তাহলে কি আমার মাইক্রোফোনে কোন সমস্যা হয়েছে নাকি কম্পিউটারের কোন ফাংশন এ সমস্যা রয়েছে ? সেই বিষয় নিয়ে আজকে আমি কথা বলব এবং সমাধান করব যে কিভাবে আপনারা এর থেকে সমাধান পাবেন তো কথা না বাড়িয়ে চলুন কাজে নেমে পরি >>>

এটা করার জন্য প্রথমে আপনাকে উইন্ডোজ ১০ এর সার্চ বারে লিখতে হবে কন্ট্রোল প্যানেল । তারপর আপনাকে কন্ট্রোল প্যানেলে যেতে হবে —

কন্ট্রোল প্যানেলে যাওয়ার পর আপনি দেখতে পাবেন হার্ডওয়ার এন্ড সাউন্ড নামে একটি সেটিং রয়েছে । আপনি হার্ডওয়ার এন্ড সাউন্ড এ ক্লিক করুন । ক্লিক করার পর আপনাদের সামনে অনেকগুলো ফাশন আসবে , সেখান থেকে আপনি সাউন্ড অপশনে ক্লিক করুন । সাউন্ড অপশনে ক্লিক করার পর আপনাকে । প্লেব্যাক নামে একটা অপশন দেখতে পাবেন । সেখান থেকে আপনি রেকর্ডিং এ ক্লিক করুন । রেকর্ডিং এ ক্লিক করার পর আপনি মাইক্রোফোন নামে একটি অপশন দেখতে পাবেন , আপনি মাইক্রোফোন নামের যে অপশন টি দেখতে পাবেন সেখানে ডবল ক্লিক করুন ক্লিক , ডবল ক্লিক করার পর মাইক্রোফোন প্রোপার্টিজ নামের একটি উইন্ডো ওপেন হবে , সেখান থেকে আপনি লেভেল এ ক্লিক করুন —

লেভেল এ ক্লিক করার পর আপনার সামনে দুটো সেটিং আসবে একটি হচ্ছে মাইক্রোফোন এবং তার নিচে থাকবে মাইক্রোফোন পোস্ট । প্রথমে মাইক্রোফোন অপশন টি ১০০ % করে দিন । মাইক্রোফোন অপশন টি 100% করার পর আপনি চলে আসুন মাইক্রোফোন bost অপশন এ । মাইক্রোফোন অপশন আসার পর আপনি এটাকে । +১০ করে দিন অথবা প্লাস ২০ করে দিন । তাহলে সেটা করার পর আপনি ওকে প্রেস করুন । তারপর উইন্ডোটি ক্লোজ হয়ে যাবে । ক্লোজ হয়ে যাওয়ার পর আপনি আরও একটা উইন্ডো দেখতে পাবেন সেটাতে ওকে করে দিন । ওকে করে দিলে আপনি আপনার মাইক্রোফোন এর সাউন্ড তাকে দ্বিগুণ শুনতে পাবেন ।

আশা করি আজকের পোস্টটি আপনাদের কাছে ভালো লাগবে যদি ভালো লেগে থাকে , তাহলে অবশ্যই আমার পোষ্টের সুন্দর একটি কমেন্ট করবেন ধন্যবাদ সবাইকে ।

Advertisement
4 Comments

4 Comments

  1. miraz raj

    miraz raj

    July 1, 2020 at 4:46 pm

    Nice

  2. Maria Hasin Mim

    Maria Hasin Mim

    July 1, 2020 at 10:40 pm

    Okay

You must be logged in to post a comment Login

Leave a Reply

উইন্ডোজ টিপস

উইন্ডোতে যেভাবে অপ্রয়োজনীয় ফাইল মুছে ফেলবেন

Tumpa Sorkar

Published

on

 

স্থায়ীভাবে কোন ফাইল মোছার সময় কখনো কখনো একটি ত্রুটির সম্মুখীন হতে হয়। এটি স্পাইওয়্যার, ম্যালওয়্যার,অ্যাডওয়্যার বা কোন ট্রোজান হতে পারে। কিছু ক্ষেত্রে ফাইল এক্সপ্লোরারের মতো প্রয়োজনীয় উইন্ডোজ প্রোগ্রামগুলি ব্যবহার করে যা অপসারিত হতে বাধা দেয়।

যদি টাস্ক ম্যানেজারটি ব্যবহার করা ব্যর্থ হয়, তবে আপনি এই সমস্যাযুক্ত ফাইলগুলি থেকে মুক্তি পেতে পারেন এবং ম্যানুয়ালি প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করে বা বিনামূল্যে এবং সহজ অ্যাপ্লিকেশনগুলি ডাউনলোড করে তা মুছে ফেলতে পারেন।

১.ফাইল মোছার অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন

কিছু ফ্রি ও নিরাপদ অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে, যা দিয়ে অাপনি সামান্য গবেষণা করে অনুসন্ধান করতে পারবেন। অ্যাপ্লিকেশন গুলো হল: অানলকার, লকহান্টার,ফাইলঅ্যাসাসিন।

এই অ্যাপ্লিকেশন গুলো ম্যালওয়্যার মুছে ফেলার জন্য ব্যবহৃত হয়।এই অ্যাপ্লিকেশনের নিয়মাবলী গুলো মেনে অাপনি ওয়েবসাইট থেকে এগুলো ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারেন।

২.ডাউনলোড করা অ্যাপ্লিকেশনে ডাবল ক্লিক করুনঃ

অাপনি যদি ফাইলঅ্যাসাসিন ব্যবহার করে থাকেন,তবে একটি উইন্ডোজ দেখতে পাবেন।এখানে অাপনি যে ফাইল ডিলিট করতে চান তা সিলেক্ট করতে বলবে।

অাপনি ফাইল টাইপ করে ম্যানুয়ালি ইনপুট করতে পারবেন অাবার উইন্ডোর নিচে ব্রাউজ করতে পারবেন। অন্যান্য অ্যাপ্লিকেশনের লেঅাউট সামান্য পরিবর্তিত হলে ও প্রক্রিয়া এক রকম।

৩.ফাইল মুছে ফেলুনঃ

মুছে ফেলতে চান এমন ফাইল অাগে সিলেক্ট করে নিন, ক্লিক করুন,তারপর অ্যাপ্লিকেশন কিছু বিকল্প সরবরাহ করবে।সেখান থেকে “delete” নির্বাচন করুন।

৪.Execute নির্বাচন করুনঃ

এটি নির্বাচন করলে কয়েক মূহুর্তের মধ্যে ফাইলটি মুছে ফেলা হবে।তখন অাপনি প্রোগ্রামটি বন্ধ করতে পারেন।ফাইলটি মুছে গেছে কিনা দেখতে হলে ফাইলের মূল অবস্থানে দেখতে পারেন।

কমান্ড প্রম্পট ব্যবহার করার মাধ্যমেঃ

কমান্ড প্রম্পট ব্যবহার করার মাধ্যমে অাপনি অপ্রয়োজনীয় ফাইল মুছে ফেলতে পারেন।

১.অাপনার কম্পিউটার রিস্টার্ট দিনঃ

পিসিতে কাজ করার সময় যদি কোন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়, এমন অবস্থায় পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়ার অাগে কম্পিউটার রিস্টার্ট দেওয়ার প্রয়োজন হয়ে থাকে। কোন ফাইল মুছে ফেলতে হলে পরবর্তী পদক্ষেপ নিতে হবে।

২.কমান্ড প্রম্পট এ যানঃ

Start এ গিয়ে অাপনি search bar এ কোন কোটেশন চিহ্ন ছাড়া CMD বা ” কমান্ড প্রম্পট”টাইপ করে অনুসন্ধান করতে পারেন।আপনি আপনার কীবোর্ডে ⊞ Win + R ক্লিক করে এটিও করতে পারেন।

৩.কমান্ড প্রম্পট এ ক্লিক করুনঃ

কমান্ড প্রম্পট এ রাইট বাটন ক্লিক করলে ড্রপডাউন মেনু প্রম্পট করবে। এখান থেকে “Run as administration” সিলেক্ট করুন। এই পদ্ধতি সম্পূর্ণ করতে অ্যাডমিন অ্যাক্সেস থাকা প্রয়োজন।

৪. একটি উইন্ডো প্রদর্শিত হবেঃ

একটি কালো উইন্ডো দেখাবে।এখানে যে ফাইলটি অাপনি ডিলেট করতে চান,সেটি ইনপুট করবেন।

৫.অাপনার কমান্ড লিখুনঃ
এই কমান্ডটি নিম্নলিখিতগুলির মতো কিছু দেখবে:

DEL /F /Q /A C:\\Users\\Your username\\The location of the file\\Name of the file you wish to delete

উদাহরণস্বরূপ, আপনি যদি “unwanted.exe,” নামের একটি ফাইল মুছে ফেলার চেষ্টা করছেন তবে এটি দেখতে পাবেন:

DEL /F /Q /A C:\\Users\\Your Username\\Desktop\\unwanted.exe

৬.Enter চাপুনঃ

এখন স্থায়ীভাবে ফাইলটি মুছে যাবে। ফাইলটি ডিলিট হলো কি না তা দেখার জন্য অাপনি মূল অবস্থানে
গিয়ে পরীক্ষা করতে পারেন।

Continue Reading

উইন্ডোজ টিপস

মাইক্রোসফ্ট নতুন উইন্ডোজ ১০ স্টার্ট মেনু ডিজাইন এবং আপডেট আল্ট-ট্যাব ঘোষণা করেছে।

Mojammal Haque

Published

on

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম

আসসালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহ,

আশা করি সবাই ভালো আছেন। শুরু করছি আজকের লেখনি। পাঠকগন উপকৃত হলে আমার প্রচেষ্টা সফল হবে।

মাইক্রোসফ্ট একটি নতুন উইন্ডোজ ১০ স্টার্ট মেনু ডিজাইন চালু করছে যা এর লাইভ টাইলসকে সুবিধা দেবে বলে বিশ্বাস করা যাচ্ছে। সফটওয়্যার জায়ান্টটি এই বছরের শুরুর দিকে প্রথমে রিফ্রেশ ডিজাইনে ইঙ্গিত করেছিল এবং এটি আজ উইন্ডোজ ১০ পরীক্ষকদের জন্য পৌঁছেছে। মাইক্রোসফ্ট ব্লগ পোস্টে ব্যাখ্যা করেছে যে তারা আরও বেশি প্রবাহিত ডিজাইন দিয়ে স্টার্ট মেনুটি সতেজ করেছে যা অ্যাপ্লিকেশন তালিকার লোগোর পিছনে শক্ত রঙের ব্যাকপ্লেটগুলি সরিয়ে দেয় এবং টাইলগুলিতে একটি অভিন্ন, আংশিক স্বচ্ছ পটভূমি প্রয়োগ করে মাইক্রোসফ্টকে একটি ব্লগ পোস্টে ব্যাখ্যা করেছে।

মূলত, স্টার্ট মেনুতে ব্লক টাইল্ড ইন্টারফেসের রঙ হ্রাস এটিকে সামান্য সরল করে তুলবে এবং আপনি প্রতিদিনের ভিত্তিতে ব্যবহার করেন এমন অ্যাপ্লিকেশনগুলির জন্য স্ক্যান করা সহজ করে তুলবে। এটি একটি সূক্ষ্ম পরিবর্তন, তবে এটি অবশ্যই স্টার্ট মেনুটিকে কিছুটা কম বিশৃঙ্খল দেখায় এবং একই সাথে নীল রঙ ভাগ করে নেওয়া অনেক টাইলস এড়িয়ে যায়।

আপডেট স্টার্ট মেনুর পাশাপাশি সর্বশেষতম উইন্ডোজ ১০ বিল্ডে অল্ট-ট্যাবে কিছু বড় পরিবর্তন অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। মাইক্রোসফ্ট ব্যাখ্যা করে যে আজকের গড়ের সাথে শুরু করে, মাইক্রোসফ্ট এজতে সমস্ত ট্যাব খোলা শুরু হবে আল্ট-ট্যাবে প্রদর্শিত হবে। প্রতিটি ব্রাউজার উইন্ডোতে কেবল সক্রিয় নয়, মাইক্রোসফ্ট এটিও ব্যাখ্যা করে। এটি এমন একটি পরিবর্তনের মতো বলে মনে হচ্ছে যা অভিজ্ঞ উইন্ডোজ ব্যবহারকারীদের জন্য কিছুটা বিভ্রান্তিকর হতে পারে, তবে মাইক্রোসফ্ট আপনাকে ধন্যবাদ জানাতে পারে ক্লাসিক আল্ট-ট্যাব অভিজ্ঞতায় ফিরে যেতে।

মাইক্রোসফ্ট অতীতে উইন্ডোজ ১০ বিল্ডে অল্ট-ট্যাব পরিবর্তনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছিল, যখন কোম্পানিটি প্রতিটি অ্যাপে ট্যাব যুক্ত করার পরিকল্পনা করছিল। এখানে যে কোনও অলট-ট্যাব পরিবর্তনের আশেপাশে প্রচুর প্রতিক্রিয়া দেখা যাবে, বিশেষত যদি মাইক্রোসফ্ট পরের বছরের বড় উইন্ডোজ ১০ আপডেটের জাহাজগুলি যখন এই বছরের শেষের দিকে চালিত করে তখন ডিফল্টরূপে এটি চালু করার পরিকল্পনা করে।

মাইক্রোসফ্ট এই নতুন উইন্ডোজ ১০ বিল্ডের সাথে কিছুটা ছোট পরিবর্তনও করছে। ডিফল্ট টাস্কবারের উপস্থিতি এখন এক্সবক্স লাইভ ব্যবহারকারীদের জন্য পিন করা এক্সবক্স অ্যাপ্লিকেশন বা অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীদের জন্য আপনার ফোন পিন করা আরও ব্যক্তিগতকৃত হবে। এটি পিসি বা প্রথম লগইনে নতুন অ্যাকাউন্ট তৈরির মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে, সুতরাং বিদ্যমান টাস্কবারের বিন্যাস অপরিবর্তিত থাকবে।

বিজ্ঞপ্তিগুলিতে আপনাকে দ্রুত সেগুলি খারিজ করার জন্য ডান দিকের উপরের কোণে একটি এক্স অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে, এবং মাইক্রোসফ্ট উইন্ডোজ ১০-এ তার সেটিংস অ্যাপ্লিকেশনটিও উন্নত করছে। যে লিঙ্কগুলি সাধারণত উত্তরাধিকারী নিয়ন্ত্রণ প্যানেল সিস্টেম পৃষ্ঠার সিস্টেম অংশের দিকে আপনাকে ধাক্কা দেয় তারা এখন সরাসরি নির্দেশ করবে আপনি সেটিংসে পৃষ্ঠা সম্পর্কে। এটি এখন কন্ট্রোল প্যানেলের সেই সিস্টেম বিভাগে সাধারণত আরও উন্নত নিয়ন্ত্রণ পাবে এবং মাইক্রোসফট প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে “আরও অনেক উন্নতি হবে যা সেটিংসকে আরও নিয়ন্ত্রণ প্যানেলে আনবে।

সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ্য থাকুন। সবাই সবার জন্য দোয়া করবেন। কমেন্ট করে উৎসাহ দিবেন।

আল্লাহ হাফেজ

Continue Reading

উইন্ডোজ টিপস

উইন্ডোজ 10 অটো হাইড টাস্কবার অন করবেন যেভাবে .

MD SALIM HOSSAIN

Published

on

windows 10

আসসালামু আলাইকুম ! আশাকরি সকলে ভালো আছেন , কারণ যারা গ্রথর এর সাথে থাকে , তারা সকলেই ভালো থাকে । তো কথা না বাড়িয়ে আমরা টিউটোরিয়ালে ফিরে যাই ।

বর্তমান সময়ে যারা কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ব্যবহার করে থাকে , তাদের বেশিরভাগ লোকই উইন্ডোজ ১০ ব্যবহার করে থাকে , কিন্তু আপনি যদি একটু নিচের দিকে লক্ষ্য করে দেখেন তাহলে দেখতে পাবেন যে্‌ ,টাস্কবার নামে একটি অপশন রয়েছে সেখানে আলাদা একটা কালার থাকে যেমন কালো । অনেক সময় দেখা যায় যে আমরা একটা কাজ করতে গিয়েছি , তখন এই টাস্কবার অনেক সময় আমাদের কাজটাকে ব্যাঘাত ঘটায় । তাই আজকে আমরা আলোচনা করব যে কিভাবে আপনি অটো হাইড টাস্কবার সিস্টেম চালু করবেন wwindows 10 এ ।

যে কথা না বললেই নয় , আপনার উইন্ডোজটি হতে হবে উইন্ডোজ টেন এবং এটি হতে হবে সর্বশেষ-আপডেট তা না হলে এই সিস্টেমটি আপনার কাজ করবে না ।

আজকে আমি আপনাদের সামনে দুইটি পদ্ধতি শেয়ার করব । যে দুইটা পদ্ধতি অবলম্বন করলে আপনি সহজেই এই কাজটি করতে পারবেন এবং আপনাকে কোন ধরনের সফটওয়্যার এর সাহায্য নিতে হবে না । তাহলে কথা না বাড়িয়ে আমরা আমাদের কাজের দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ি ————————–

প্রথম পদ্ধতিঃ
আপনি যদি চান যে , আপনি আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপে তাস্কবার কে অটো হাইড করবেন । তা হলে সর্বপ্রথম আপনাকে windows এর হোমপেজের যেতে হবে এবং রাইট ক্লিক করতে হবে । রাইট ক্লিক করার পর আপনি সেখানে দেখতে পাবেন Properties নামের একটি অপশন পাবেন । প্রোপার্টিজ নামের সেই অপশনে ক্লিক করুন প্রোপারটিস ক্লিক করার পর আপনি দেখতে পাবেন তাস্কবার নামের একটি অপশন দেখাচ্ছে । আপনি তাস্কবার অপশনে ক্লিক করুন । তাস্কবার অপশনে ক্লিক করার পর নিচের দেখতে পাব অটোহাইট তাস্কবার । সেখানে টিক মার্ক দিয়ে দিন , অটোহাইট তাস্কবার এ ক্লিক দেওয়ার পর আপনি নিচের দিকে দেখতে পাবেন , এপ্লাই নামে একটি অপশন রয়েছে , আপনি এপ্লাই নামের এই অপশনে ক্লিক করুন । ক্লিক করার পর ওকে প্রেস করুন । ওকে প্রেস করার পর আপনি সেটা ক্লোজ করে দিন তাহলেই হয়ে যাবে আপনার ফটো হাইড তাস্কবার সিস্টেম অন ।
২য় পদ্ধতিঃ
সর্বপ্রথম আপনি আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপ থেকে সার্চ অপশনে যান এবং টাইপ করুন CMD . সার্চ বারে সার্চ করার পর আপনি দেখতে পাবেন – Command Prompt – নামে একটি অপশন রয়েছে আপনি সেখান থেকে রাইট ক্লিক করুন এবং রান এস অ্যাডমিনিস্ট্রেটর এ ক্লিক করুন এবং নিচের কোডটি টাইপ করুন –
powershell -command “&{$p=’HKCU:SOFTWARE\Microsoft\Windows\CurrentVersion\Explorer\StuckRects3′;$v=(Get-ItemProperty -Path $p).Settings;$v[8]=3;&Set-ItemProperty -Path $p -Name Settings -Value $v;&Stop-Process -f -ProcessName explorer}”

উপরে যে কমান্ডটি লেখা হলো সেটি লিখে এন্টার করে দিলে আপনার উইন্ডোজ এর টাস্কবার অটো হাইড হয়ে যাবে —
আসুন এবার জেনে নেই এই অপশনটা কে বন্ধ করবেন কিভাবে বন্ধ করতে চাইলে নিচের কমান্ডটি টাইপ করুন । powershell -command “&{$p=’HKCU:SOFTWARE\Microsoft\Windows\CurrentVersion\Explorer\StuckRects3′;$v=(Get-ItemProperty -Path $p).Settings;$v[8]=2;&Set-ItemProperty -Path $p -Name Settings -Value $v;&Stop-Process -f -ProcessName explorer}”

আশা করি পোস্টটি আপনার একটু পরিমান হলেও সাহায্য করবে । যদি পোস্টটি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই একটি সুন্দর কমেন্ট করবেন এবং আপনি যদি কোন জায়গায় বুঝতে না পারেন তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করবেন । আমি যথাসাধ্য চেষ্টা করব আপনাদের বোঝানোর জন্য ।
তাহলে আজকে এখানেই শেষ করছি আল্লাহ হাফেজ!

Continue Reading