★ Grathor.com এ আপনিও ✍ লেখালেখি করে ভূমিকা রাখতে পারেন এবং পাশাপাশি অর্থ আয় করতে পারেন★এখানে ক্লিক করে বিস্তারিত জানুন★

যে কথা গুলো কারো সাথে বলে বেড়ানো উচিৎ নয়।

আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সবাই মহান আল্লাহ তায়ালার অশেষ রহমতে খুব ভালো আছ। মানুষের জন্মের  পর থেকে জীবন শুরু হয়।সে জীবনে মানুষের মোকাবিলা করতে হয় নানা প্রেক্ষাপটের সাথে।এই জীবন যুদ্ধে অনেকে ঠিকে থাকতে পারে না। ফলে বেছে নেয় ভয়ংকর একটি পন্থা।  যা হলো মৃত্যু। আমার মতে জীবন যুদ্বে ঠিকে থাকা ব্যক্তিই বীর। কিন্তু জীবনে আমরা কিছু ভুল করে থাকি যার কারণে আমাদের অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এরকম একটা দিক নিয়ে আজকে আমি আলোচনা করার চেষ্টা করব। যা হয়তো অনেকের ভালো লাগতে পারে আবার খারাপ লাগতে পারে। চলো শুরু করা যাক।

মানুষ গল্প করতে খুব ভালোবাসে। আমরা অনেক বেশির ভাগ সময় গল্পগুজব করে পার করে দেয়। অনেকে এখন ভাবতে পারেন আমি গল্প করতে বাঁধা দেব। কিন্তু না আমি গল্প করতে বাঁধা দেব কেন? গল্প করা এবং গল্প শোনা মানুষকে মানসিকভাবে সুস্থ রাখতে সহায়তা করে। তাই তা খুব ভালো।

তবে আমরা কিছু এক্সপার্ট লেভেলের গল্পকারী রয়েছি। যারা কোনো ধরনের কথা হজম করতে পারে না। তারা সব কথা অন্যের কাছে বলে দেয়। যার কারণে তারা জীবনে চলতে ফিরতে গিয়ে নানা সমস্যার মুখোমুখি হন। তাই আজকে আমরা আলোচনা করব আমাদের জীবনের কোন ধরনের কথা গুলো কারো সাথে শেয়ার করা উচিৎ নয়। চলো জেনে নেই।

১) ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা: প্রত্যেক মানুষের জীবনে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা থাকে। পাগল মানুষ ছাড়া কেউ এর বাহিরে নয়। এই যে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা এটা আপনার জীবনে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যা বলে বেড়ানোর মতো কথা নয়। আপনার ঘরের আপনজন পরে কাউকে আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে অবহিত করা খুবই বাজে কাজ। মানুষ তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাকে বাস্তবায়ন করার জন্য অনেক কাজ করে থাকে। যার ফলে আপনার জীবনের মূল্যবান কিছু সময় এর পিছনে ব্যয় হয়। তাই আপনার এই পরিকল্পনা সম্পর্কে কেউ যদি জেনে আপনার অনিষ্ট করে ফেলে। তাহলে ভেবে দেখেন আপনার কতটুকু ক্ষতি হলো। সেই ক্ষতি সামলে উঠতে আপনার আরও সময়ের প্রয়োজন। তাই আপনার এই ভুলটি আপনার জীবনের অনেক মূল্যবান  কিছু হারিয়ে ফেলতে পারে। তাই সাবধান কারো সাথে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা শেয়ার করবেন না।

২) ইনকামের পরিমাণ: আপনি কত টাকা মাসে ইনকাম করেন তা কাউকে বলে বেড়াবেন না। এতে আপনার অনেক ক্ষতি হতে পারে। যেমন আপনি আপনার সেলারির পরিমাণ আপনার বন্ধুর সাথে শেয়ার করলেন। কিন্তু আপনার হঠাৎ চাকরিটা ছেড়ে দিতে হলো। আর বর্তমান চাকরির সেলারি আগের চেয়ে অর্ধেক।  তখন একদিন আপনার সেই বন্ধু আপনার কাছে তার বিপদে কিছু টাকা ধার চাইল। যা আপনার পক্ষেে দেওয়া সম্ভব নয়। কারণ আপনার সেলারি অনেক কম। তার ফলে আপনি টাকা ধার দিতে ব্যর্থ হলেন। কিম্তু আপনার বন্ধু জানে আপনার সেলারি অনেক বেশি। তা সত্ত্বেও আপনি তাকে টাকা ধার দেননি। তার ফলে সে মনে কষ্ট পাবে। আপনার সাথে তার সামাজিক সম্পর্ক  খারাপ  হবে। এভাবে আপনি বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে পারেন। তাই সাবধান আপনার মাসিক সেলারির পরিমাণ বলে বেড়াবেন না।

৩) পারিবারিক সমস্যা: প্রত্যেকের পরিবারে কিছু না কিছু সমস্যা লেগেই থাকে। কিন্তু তা বলে বেড়ানো উচিৎ নয়। এতে আপনার সামজিক সমস্যা বাড়তে পারে। দুষ্ট লোকেরা আপনার দূর্বলতা জেনে যাবে। ফলে তারা তাদের স্বার্থে আপনার দূর্বলতাকে ব্যবহার করবে। এতে আপনি সামাজিক ভাবে কূলষিত হতে পারেন।তাছাড়া আপনার পরিবারের সমস্যাটা বড় আকার ধারণ করবে। তাই এই কথা গুলো কারো সাথে বলে বেড়াবেন না।

আশা করি কথাগুলো একটু হলেও সবার উপকারে আসবে। তাই কমেন্ট করে জানাবেন কেমন লাগলো আপনার। ঘরে থাকুন,সুস্থ থাকুন। সবাইকে সুস্থ রাখতে সহায়তা করুন। আল্লাহ হাফেজ।