Connect with us
★ Grathor.com এ আপনিও ✍ লেখালেখি করে আয় করুন★Click Here★

রিভিউ

রণদাপ্রসাদ সাহা : অগোচরে মানুষের তরে কাজ করে যাওয়া এক মহান ব্যাক্তিত্ব

Nisat Anzum

Published

on

জীবনীভিত্তিক মুভি কিংবা জীবনীভিত্তিক বই সব সময়ই আমাকে একটু বেশি টানে। একটা মানুষ এর পুরো জীবনের চড়াই উতরাই এর গল্পগুলো আরেকজন মানুষ থেকে পুরোপুরি ভিন্ন হয় সবসময়। প্রতিটি মানুষের জীবনের গল্প হয় একদম ভিন্ন ভিন্ন। জীবনীভিত্তিক বই গুলো খুব কাছ থেকে দেখার সুযোগ করে দেয় যেনো সেই মানুষটকে।লকডাউনের দিনে বই খুঁজতে গিয়ে পেলাম ,কলেজ জীবনে পাওয়া পুরস্কার পাওয়া একটা জীবনীভিত্তিক বই।
আজকে যার জীবনীভিত্তিক বই নিয়ে আলোচনা করবো তিনি হচ্ছেন একজন এমন মানুষ যিনি ছিলেন একাধারে উদ্যোক্তা, দানবীর, শিক্ষানুরাগী, সমাজসেবক। হ্যা বলছি , রণদাপ্রসাদ সাহার কথা।
বইয়ের নাম: রণদাপ্রসাদ সাহার জীবন কথা
লেখক: হেনা সুলতানা
বইয়ের ধরণ: ঐতিহাসিক ব্যক্তিত্বের জীবনী
প্রকাশক: বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র
প্রচ্ছদ: ধ্রুব এষ
লেখক পরিচিতি:
বইটি সম্পর্কে লেখার পূর্বে লেখক হেনা কামালের সঙ্গে একটু পরিচয় করিয়ে দেই যিনি কিনা ১৯৮৬ সালে ভারতেশ্বরী হোমস এ সহকারী শিক্ষিকা হিসেবে যোগদান করেন। মূলত সেই থেকে লেখকের মনে এক ধরনের গভীর অনুভূতি সৃষ্টি হয় যে কেনো রণদাপ্রসাদ সাহার জীবনী নিয়ে কোনো ধরনের পূর্ণাঙ্গ জীবনী লেখা হয় নাই,কেনো কোনো ধরনের চলচ্চিত্র নির্মাণ করা হয়নি এই বুদ্ধিজীবীর নামে, যে কিনা মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হয়েছিলো ছিলো ,তাই তার অনুভূতিগুলো এক করে তিনি এই বই লেখার প্রয়াস করেন।

বই সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত বর্ণনা:
লেখক রণদাপ্রসাদ সাহার জীবনী নিয়ে লেখার সময় কিছু অংশে ভাগ করেছেন এবং আলাদা খন্ড করে প্রতিটি অংশ বই এ তুলে ধরেছেন।
যেমন: রণদাপ্রসাদ সাহার——-
১. জীবনযুদ্ধ
২. চিন্তাধারা ও আদর্শ
৩. শিক্ষাবিস্তার
৪. একজন সেবক
৫.জীবন যেখানে যেমন
৬. সম্রাট আলমগীরের ভূমিকায় রণদাপ্রসাদ

প্রতিটি অংশ এ লেখক রণদাপ্রসাদ সাহা সম্পর্কে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন খুব নিখুঁত ভাবে। জীবনযুদ্ধ অংশে ফুটে উঠেছে মা ছাড়া রণদাপ্রসাদ সাহার শৈশব কিভাবে কেটেছে।তার অস্থায়ী সুবেদার হিসেবে বেঙ্গল রেজিমেন্টে যোগদান, কাজী নজরুল ইসলামের সাথে তার সখ্যতা এবং আরো অনেক কিছু।
চিন্তাধারা ও আদর্শ এ রণদাপ্রসাদ সাহার ভাবনা জুড়ে ছিলো শুধু মানুষের সেবা।তিনি ছিলেন সম্পুর্ণ স্বশিক্ষিত।
শিক্ষাবিস্তারে তার অবদান যুগ যুগ ধরে এখনো মানুষ মনে করে ।তিনি প্রকৃত শিক্ষা অনুরাগী ছিলেন , ভারতেশ্বরী হোমস , কুমুদিনী হাসপাতাল , দেবেন্দ্র কলেজ এছাড়া বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে রয়েছে তার বিশাল অবদান ।
কুমুদিনী হাসপাতাল একজন সেবক হিসেবে তার সবচেয়ে বড় পরিচায়ক,যার জন্য তিনি মৃত্যুর আগ পর্যন্ত সংগ্ৰাম করে গেছেন।
শিক্ষার পাশাপাশি তিনি শিল্পের প্রতিও যে ছিলেন বিশেষ ভাবে আন্তরিক ৭৩ বছর বয়সে সম্রাট আলমগীরের ভূমিকায় অভিনয় তাই বলে দেয় আমাদের।

Advertisement
5 Comments

5 Comments

  1. Mojammal Haque

    Mojammal Haque

    May 31, 2020 at 1:03 am

    thanks

  2. Partha Kumar

    Partha Kumar

    May 31, 2020 at 9:28 am

    Nice

  3. Md Golam Mostàfa

    Md Golam Mostàfa

    May 31, 2020 at 4:13 pm

    ভাল লিখেছেন ভাই।

  4. Anisur Rahman

    Anisur Rahman

    May 31, 2020 at 8:24 pm

    good

  5. Zillur Rahman

    Zillur Rahman

    June 1, 2020 at 1:51 am

    আপনার লিখার মধ্যে পরিপক্ব লেখকের পাণ্ডিত্যময় কিছু খুঁজে পাওয়া যায়!তাই আপনার লিখা কলাম পড়া মিস হয় না☺☺

You must be logged in to post a comment Login

Leave a Reply

রিভিউ

রেফার করে টাকা আয়ের কতগুলো বেস্ট সাইট সম্বন্ধে জেনে নিন।

Naimul Islam

Published

on

আসসালামুয়ালাইকুম। তো কেমন আছেন আপনারা? আশা করি অনেক বেশি ভালো আছেন। তো আজকে আমি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি আর। তা হল কিভাবে আমরা রেফার করে আয় করব এমন কতগুলো সাইট নিয়ে। আসলে রেফার করে আয় করা নিয়ে অনেক ধরনের সাইট আছে। যে সকল সাইট থেকে আমরা খুবই ভালভাবে রেফার করে ইনকাম করতে পারি সেসব নিয়ে আলোচনা করন। 

 

প্রথমে বলে দিচ্ছি রেফার করা মানে তো আপনারা সবাই জানেন। রেফার করা হচ্ছে যে আপনি আপনার বন্ধুকে ওই অ্যাপটিতে ঢোকার জন্য সাজেস্ট করবেন আর সেক্ষেত্রে আপনার বন্ধু আপনার দেওয়া কোড অথবা লিংক অনুসরন করে সাইটে প্রবেশ করবে। তাহলে চলুন কতগুলো সাইটের সাথে পরিচয় করিয়ে দিই যেখানে আপনি রেফার করে ইনকাম করবেন।রেফার করে  ইনকাম করা নিয়ে অনেক  অনেক অনেক সাইট আছে 

তবে কতগুলো বেস্ট সাইট যেখান থেকে রেফার করে মোটামুটি ভালো অঙ্কের টাকা পাবেন সেই দিক বিবেচনা আমি আপনাকে পোস্টটি করলাম। 

 

Grathor:প্রথমে দিচ্ছি গ্রাথোর সাইটকে। এই সাইটে আপনার রেফারেল লিংক ক্লিক করে শুধুমাত্র রেফার করলে সাথে সাথে দুই টাকা করে দেয়া হয়। আর যদি সেই রেফার করা বন্ধুটি পাঁচটি পোস্ট লিখে আর পোস্টগুলো এপ্রুভ হয় তাহলে আপনাকে অতিরিক্ত 38 টাকা এড করা হয়। এখানে টাকা এমাউন্ট অনেক বেশি বিধায় আমি একে সবার আগে রেখেছি। এটি বাংলাদেশের উন্মুক্ত ব্লগ সাইট।এখানে আপনি ব্লগিং করে, লেখালেখি করে ইনকাম করতে পারবেন। এখানে রেফার করে ইনকাম করা সম্ভব।

 

রিং আইডি অ্যাপঃ এখানে রেফার করে আপনি প্রতি রেফারের জন্য 20 টাকা করে পাবেন। আর 200 টাকা হলে আপনি আপনার প্রথম উইথড্র নিতে পারবেন।এখানে শুধু রেফার করবেন আর আয় করবেন। আপনার রেফারেল কোড যদি কেউ রেফার বক্সে প্রবেশ করার সাথে সাথে আপনাকে 20 টাকা দেয়া হবে। এভাবে 200 টাকা নিতে পারবেন বিকাশে। 

 

BestExchange:বেস্ট এক্সচেঞ্জ সাইট হলো এক ধরনের বিটকয়েন এক্সচেঞ্জ  সাইট। এখানে বিটকয়েন অথবা এখানে বিভিন্ন ধরনের  কারেন্সী ডলারে পরিণত করা হয়। আপনি রেফার করে এফিলিয়েট প্রোগ্রামের মাধ্যমে অনেক বেশি ইনকাম করতে পারবেন। মাত্র 1 ডলার হলে আপনি এখানে পেপালের মাধ্যমে উইথড্র নিতে পারবেন।

অবশ্যই পড়বেনঃ

#ফ্রী মোবাইল রিচার্জ সাইট।রেজিষ্ট্রার করলেই ২০ টাকা ফ্রী রিচার্জ।Grathor

 

#ইমেইল পড়ে, এড দেখে আয় করুন হাজার হাজার টাকা।পেমেন্ট বিকাশে।Grathor

 

Clip Claps App: ক্লিপ ক্ল্যাপ্স অনেক দারুন একটি অ্যাপ। এই অ্যাপের রেফার করলে আপনি এই অ্যাপের জেমস বক্স পাবেন। এই জেমস বক্স খুললেই আপনাকে বিভিন্ন ধরনের রেফেল টিকেট, কয়েক ডলার দিবে আর। এখানে মাত্র 10 ডলার হলে উইথড্র পাবেন। রেফার করে এখানে প্রচুর পরিমাণ ইনকাম করা যায়।আর এখানে উইথড্র পাবেন তার নিশ্চয়তা ১০০ ভাগ।বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষই এখানে উইথড্র পেয়েছে।

 

তো কেমন লাগলো আপনাদের? ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন। আর রেফার করে ইনকাম করা নিয়ে অনেক সাইট আছে। সেগুলোই লিখতে গেলে অনেক সময় যাবে, লেখা অনেক বেশি বড়ো হবে। কাজেই দেরি না করে এখনি শেষ করে দিচ্ছি। খোদাহাফেজ।

 

Continue Reading

রিভিউ

অ্যানড্রয়েড ফোনে অবসর সময় কাটানোর জন্য সেরা ফাইটিং গেমস।

Arman Hossan

Published

on

ইন্টারনেট দুনিয়াতে একঘেয়েমিতা দূর করার জন্য অনেক মজার মজার অন্যরকম ও অদ্ভুত ওয়েবসাইট রয়েছে, গেমস রয়েছে। এগুলো থেকে আমরা অনেক কিছু যেমন জানতে পারি তেমনি একটু মজার সময়ও কাটাতে পারি। আমরা অনেক সময় অনেক কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকি, অনেক কাজ করি, জব করি বিভিন্ন জায়গায়, আবার অনেকে ফ্রীল্যান্সিং করে অর্থ উপার্জন করি। আমরা যাই করি না কেন এটা ঠিক যে সব সব কাজের পরেই শরীরে কোনো না কোনো ক্লান্তি আসে। এমনকি আমরা যদি কোনো কাজ না করি কিংবা বাড়িতে বসে থাকলে তা হলেও আমাদের শরীরে ক্লান্তি আসে। আর এই ক্লান্তি দূর করার জন্য আমরা বিভিন্ন ধরনের বিনোদন নিই। সেটা হতে পারে অবসরে টিভি দেখা, মোবাইল ইউজ করা, খেলাধুলা করা, এমনকি মোবাইল গেমস এর মাধ্যমে বিনোদন নেওয়া। আসলে মোবাইল গেমস হলো এমন একটি জিনিস যার দ্বারা বড়-ছোট যে কোন বয়সের একটি বিনোদন নিতে পারে। ইন্টারনেটে বিভিন্ন প্রকার গেমস রয়েছে এখান থেকে আমরা বিনোদন নিতে পারি। কিন্তু সব গেম আবার বিনোদন দিতে পারেনা। তাই আমি আজ আপনাদের উদ্দেশ্যে এমন একটি গেমস নিয়ে কথা বলব যার মাধ্যমে আপনারা আপনাদের অবসর সময়ে বিনোদন দিতে পারবেন। এটি একটি ফাইটিং গেমস। আমি নিজেও ব্যবহার করেছি তাই আপনাদের উদ্দেশ্যে এটি রিভিউ করছি। কেননা এই গেমসটি ব্যবহার করে আমি অবসর সময় কাটাতে পেরেছি এবং গেমসটি খুবই মজার। গেমসটির নাম হচ্ছে নিনজা ওয়ারিয়র। আশা করি এই গেমসটি ব্যবহার করে আপনারা আপনাদের মনকে উৎফুল্ল রাখতে পারবেন। গুগল প্লে স্টোরে নিনজা ওয়ারিয়র লিখে সার্চ করলে এটি পেয়ে যাবেন। গেমসটিতে প্রায় বিশটি লেভেল এর বেশি রয়েছে এবং লেবেলগুলো খুবই ইন্টারেস্টিং। আশা করি আপনারা আপনাদের ক্লান্তি সময়টুকু এই গেমস এর মাধ্যমে কাটাতে পারবেন। আজ এ পর্যন্তই। আল্লাহাফেজ।

Continue Reading

রিভিউ

Snapseed অ্যাপ দিয়ে ফটো এডিটিং

firoz alam niloy

Published

on

আসসালাকুম বন্ধুরা সবায় কেমন আছেন অবশ্যয় সবায় ভালো আছেন বন্ধুরা আজকে আপনাদের মাঝে শেয়ার করবো ফটো এডিটিং টিউটিরাল যার মাধ্যমে আপনার ফটোর Yellow Color Background দিবেন ফটো টা অনেক সুন্দর দেখা যাবে তো শুরু করা যাক প্রথমে Play Store app থেকে Snapseed App টা ডাউনলোড করে নিবেন তারপরে অপেন করবেন অপেন করার পর + অাইকনে ক্লিক করবেন তারপরে আপনার Gallery থেকে ব্যাকরাউন্ট ফটো সিলেক্ট করে নিবেন নেত্তয়ার পর টিক মার্কে ক্লিক করবেন এবার কিভাবে এডিট করবেন প্রথমে আপনারা ব্যাকরাউন্ট ফটো টা পরিমান মতো ব্লার করে নিবেন ব্লার করার জন্য Tools ক্লিক করলে বিভিন্ন অপশান অাসবে সেখানে থেকে অামরা চলে যাবো Lens Blur অপশানে ক্লিক করে যাবেন যাত্তয়া পর ব্যাকরাউন্ট ফটোতে পরিমান মতো ব্লার করে নিবেন নেত্তয়ার পর সেভ করে নিবেন এবার আমরা ফটো এড করবো ফটো এড করার জন্য Tools ক্লিক করবেন পনে যাবেন Double Exposure অপশানে ক্লিক করে ইমেজ অাইকনে ক্লিক করে Gallery থেকে আপনার ইমেজ টা সিলেক্ট করে নিবেন নেত্তয়ার পর ব্যাকরাউন্ট ফটোর সাথে মিলিয়ে নিবেন নেত্তয়ার জন্য উপরে Edit Stack ক্লিক করে View Edits ক্লিক করে ব্যাকরাউন্ট ফটো মুচে ফেলবেন তারপরে ফ্রেসটা আরো সুন্দর করবো তার জন্য Tools ক্লিক করবেন করার পর Setective অপশানে যাত্তয়ার পর ফ্রেসে উপরে মার্ক করে ধরে Brightness বাড়িয়ে দিলে ফ্রেস অারো সুন্দর দেখা যাবে এবার যদি আপনার ফটোতে কোনো রকমের দাগ অাছে কিনা যদি থাকে তাহলে অাপনি Tools ক্লিক করবেন তারপরে চলে যাবেন Healing অপশানে ক্লিক করবেন করার পর অাপনার ফটোতে যেসব জায়গায় দাগ অাছে সেখানে গিয়ে ক্লিক করলে সব দাগ মুচে যাবে তারপরে সেভ করে নিবেন এবার ফটোটা ইস্মুথ করবো ইস্মুথ করার জন্য Edit Stile ক্লিক করে View Edits ক্লিক করবেন তারপরে ফ্রেসে অংশে ড্র করলে আরো ইস্মুথ হয়ে যাবে তারপরে যাবেন Tools যাবেন যাত্তয়ার পর Detaits যাবেন যাত্তয়ার পর Structur বৃদ্ধি করে দিবেন আর sharpening বৃদ্ধি করে দিবেন তাহলে ফটো টা আরো সুন্দর দেখা যাবে তার সেভ করে নিবেন তাহলে আপনার ফটো Yellow Color Background এডি হয়ে যাবে। বন্ধুরা কোনো সমস্যা হলে কমেন্ট মাধ্যমে জানান বন্ধুরা সবায় ভালো থাকেন ধন্যবাদ।

Continue Reading