★ Grathor.com এ আপনিও ✍ লেখালেখি করে ভূমিকা রাখতে পারেন এবং পাশাপাশি অর্থ আয় করতে পারেন★এখানে ক্লিক করে বিস্তারিত জানুন★

একটি ছাতা তার মালিককে ফিরিয়ে দেওয়া এবং অসাধারণ অনুভূতি

প্রত্যেক মানুষের জীবনেই হরেক রকমের ঘটনা ঘটে থাকে । এর মধ্যে কিছু কিছু ঘটনা ঘটে যা সবসময় মনে থাকে । এবং সেগুলো হতে পারে শিক্ষনীয় কারণ কিছু ঘটনায় থাকে টিপস এবং অনুভূতি।  আমার জীবনেও মনে থাকার মতো অনেক ঘটনা আছে তার মধ্যে একটি ঘটনা এখন শেয়ার করছি । যদিও ঘটনাটি সাধারণ একটি ঘটনা কিন্তু ধার্মিকদের জন্য খুবই প্রশান্তির । সেই সাথে ছোটদের জন্য এটি হতে পারে শিক্ষনীয় ।

আমি যে এলাকায় থাকি সে এলাকার সবচেয়ে বড় মসজিদে মাগরিবের নামাজের জন্য যাই । বৃষ্টির দিন ছিল তাই ছাতা নিয়ে যেতে হয়েছিল । মজার ব্যাপার হলো আমি অনেক পুরোনো ও একটা শিক ভাঙ্গা ছাতা নিয়ে গিয়েছিলাম । ছাতাটি মসজিদের এক কর্নারে রেখে নামাজ আদায় করি । নামাজ শেষে যে স্থানে ছাতাটা রেখেছিলাম সেখান থেকে ছাতাটি নিয়ে বাসায় ফিরি ।

বাসায় ফিরতেই আবিষ্কার করলাম ছাতাটি আমার নয় । আমারটা তো পুরোনা ও ভাঙা এটা তো সেটা নয় বরং এটি নতুন এবং ভালো একটি ছাতা । তবে ছাতাটা দেখতে অনেকটা আমার ছাতার মতোই । তাই হয়তো ছাতাটির মালিক ভুল করে নিজের ছাতা রেখে আমারটা নিয়ে গেছেন ‌। কিছু বুঝতেই পারেনি ।


এমনিতে কিছুটা শয়তান টাইপের হলেও মাত্র নামাজ আদায় করে আসায় কোন প্রকার বাজে চিন্তা যেমন ছাতাটা আমার কাছেই রেখে দিয়ে আমিই ব্যবহার করবো সেসব  মাথায় আসে নি বরং ভাবতে থাকলাম কিভাবে ছাতাটি ফিরিয়ে দেওয়া যায় ।

একটু চিন্তা করতেই বুঝতে পারলাম ছাতাটি মাগরিবের নামাজের সময় যে স্থানে ছিল এশারের নামাজে গিয়ে সে স্থানেই রাখবো । এটাই ছাতা ফিরিয়ে দেবার সেরা উপায় । ছাতাটার মালিক হয়তো একই চিন্তা করবে যদি দেখে থাকে যে তার ছাতাটা আরেকটা ছাতার সাথে পাল্টাপাল্টি হয়ে গেছে । এবং ছাতাটা আগের স্থানে রাখলে যার যার ছাতা ফিরে পাবে ।

যেমনি ভাবা তেমনি কাজ । এশারের নামাজের সময় হলে একই মসজিদে গিয়ে সেই স্থানেই ছাতাটা রেখে কাছেই নামাজ শেষ করি । এবং নামাজ শেষ করে ছাতার দিকে গেলে দেখলাম এক ভদ্রলোক সেই ছাতাটি নিচ্ছে । এবং উনার হাতে আমার ভাঙ্গা ছাতা । বন্ধ করা অবস্থায় বুঝার উপায় নেই ছাতাটা ভাঙ্গা ‌ । কিন্তু আমার ছাতা আমি দেখেই চিনে ফেলেছিলাম ।


উনাকে এই ব্যাপারে জিজ্ঞেস করলে বললো মাগরিবের সময় ভুল করে আমার ছাতার সঙ্গে উনার ছাতাটি পাল্টাপাল্টি হয়ে যায় । এবং নিজের ছাতা নিতে ও আমারটা ফিরিয়ে দিতে এই স্থানেই ছাতাটি রাখতে আসে ।

বাহ্ ভদ্রলোকের চিন্তা আমার চিন্তার সঙ্গে হুবহু মিলে গেলে । আমিও বললাম আমিও একই কারণে উনার ছাতাটি এখানে রেখেছি যেনো ফিরিয়ে দিতে পারি । মনে অদ্ভুত এক ভালো লাগা কাজ করতে থাকলো ।

শেষে উনার ছাতা উনি নিলেন এবং আমারটা আমি নিলাম । নিজের নতুন ছাতা ফিরে পেয়ে ভদ্রলোকের চেহারা রীতিমতো উজ্জ্বলতায় ভরে উঠেছিল । এই উজ্জ্বলতা দেখে আমার যে প্রশান্তির অনুভূতি হয়েছিল তা ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয় ।

এশারের নামাজের সময় সেই মসজিদে না গেলে হয়তো নতুন ছাতাটি আমিই ব্যবহার করতে পারতাম । কিন্তু সামান্য একটা ছাতা ফিরে পেয়ে লোকটির উজ্জ্বল চেহারা দেখে যে প্রশান্তির অনুভূতি পেয়েছিলাম তা এমন অনেকগুলো নতুন ছাতা ফ্রিতে পেলেও সেই অনুভূতি কখনোই পাবো না ।

শুধু একটা ছাতা ফিরিয়ে দেওয়ার ঘটনাটি যদিও সাধারণ কিন্তু অনুভূতি ছিল অসাধারণ । এবং আশা করি ঘটনাটি পড়লে অন্তত ধার্মিকদের ভালো লাগবে ।

11 Comments

মন্তব্য করুন