Connect with us
★ Grathor.com এ আপনিও ✍ লেখালেখি করে আয় করুন★Click Here★

আউটসোর্সিং

ওয়েব ডেভেলপিং নিয়ে কিছু কথা

Published

on

ওয়ার্ডপ্রেসে কিভাবে পিএইচপির দক্ষতা কাজে লাগাবো?

প্রথমে আপনাকে ওয়ার্ডপ্রেসের মেকানিজম জানা থাকতে হবে যেমন আপনাকে জানতে হবে ওয়ার্ডপ্রেস কিভাবে কাজ করে ওয়ার্ডপ্রেস কোন ল্যাঙ্গুয়েজ দিয়ে তৈরি করা হয়েছে।

ওয়ার্ডপ্রেসের থিম এবং প্লাগিন নামে দুটি ফিচার আছে যে দুটি ফিচার দ্বারা ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইটের ফ্রন্টেন্ড এবং ব্যাকেন্ড কন্ট্রোল করা যায়।

ওয়ার্ডপ্রেস একটি সিএমএস হওয়ার কারণে এই সেই সিএমএস তৈরি করা হয়েছে পিএইচপি দ্বারা। তাই খুব সহজেই আপনি আপনার পিএইচপি দক্ষতাকে ওয়ার্ডপ্রেসের বিভিন্ন ডেভলপমেন্ট কাজে ব্যবহার করতে পারবেন।

ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডেভেলপমেন্ট:

যদি আপনার বেসিক পিএইচপি সম্পর্কে ভালো ধারনা থাকে তাহলে আপনি ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডেভেলপমেন্ট শুরু করতে পারেন আর সাথে যদি অ্যাডভান্স পিএইচপি মাইএসকিউএল সম্পর্কে ধারণা থাকে তাহলে থিম ডেভেলপমেন্ট বুঝতে আপনার পানির মতো সহজ মনে হবে।

ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ডেভেলপমেন্ট:

যদি আপনি ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডেভেলপমেন্ট মেকানিজম এবং ওয়ার্ডপ্রেস থিম কিভাবে তৈরি করতে হয় তা বুঝে তৈরি করতে পারেন তারপর আপনার কাজ হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ডেভেলপমেন্ট এ কাজ করা।

ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ডেভলপমেন্ট যেমনটা সহজ ঠিক তেমনটা কঠিন তাই আপনাকে অবশ্যই পিএইচপি এডভান্স লেভেল সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকতে হবে। যদি পিএসপি এডভান্স লেভেল সম্পর্কে ভালো ধারনা থাকে তখন আপনি আপনার পিএইচপি জ্ঞানকে প্লাগিন ডেভলপমেন্ট এ কাজে লাগিয়ে ছোট ছোট কিছু প্লাগিন তৈরি করুন। ধরুন আপনি আপনার কাস্টম পিএসপি কোডগুলো কে ওয়ার্ডপ্রেস বিল্ট ইন ফাংশন দাঁড়া ওয়ার্ডপ্রেস এনভায়রনমেন্ট ইমপ্লিমেন্ট করুন।আশা করি তাহলে আপনি বুঝতে পারবেন আপনার পিএইচপি দক্ষতা কতটুকু আপনি কাজে লাগাতে পারছেন।

পিএইচপি অবজেক্ট অরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং :

অবজেক্ট-ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং (পিএইচপি ওওপি), পিএইচপি 5-তে যুক্ত হওয়া এক ধরণের প্রোগ্রামিং ভাষার নীতি, যা জটিল, পুনরায় ব্যবহারযোগ্য ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন তৈরিতে সহায়তা করে।

আমি এতক্ষন যে পিএইচপি নিয়ে কথা বলেছি সেটি হচ্ছে প্রসিডিউরাল পিএইচপি এখন আমি কথা বলব স্ট্রাকচারাল পিএইচপি নিয়ে যা হচ্ছে অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড পিএইচপি।

প্রসিডিউরাল পিএইচপি এবং অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড পিএইচপি দুটি আপনার একই কাজ করবে এবং তাদের কাজের ধরন একই কিন্তু প্রসিডিউরাল পিএসপি যেকোনো একটি কাজ কে নির্দিষ্ট করে কাজ করে এবং এই কাজগুলো বারবার ব্যবহার করা কঠিন।

কিন্তু যদি আপনি অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড পিএইচপি দিয়ে কোন একটি ওয়েব এপ্লিকেশন তৈরি করেন তাহলে আপনি আপনার কোডের বিভিন্ন অংশকে পুনরায় বিভিন্ন জায়গায় ব্যবহার করতে পারবেন এবং প্যাটার্ন কোডগুলো ব্যবহার করে আপনি আপনার পোস্টগুলো সাজিয়ে রাখতে পারবেন যাতে করে আপনি আবার আপনার কোডগুলো ব্যবহার করতে পারেন।

প্রসিডিউরাল পিএইচপি থেকে অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড পিএইচপি কাজ করার সুবিধা হচ্ছে আপনি আপনার কোডগুলো কে সহজে বারবার ব্যবহার করতে পারবেন এবং আপনার কোড লিখার পরিমাণ কমে যাবে।

অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড পিএইচপি রিয়েল লাইফ ইমপ্লিমেন্টেশন ঃ

যখন আপনার অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড পিএইচপিতে এর বেসিক ধারণা এবং কনসেপ্ট স্পষ্ট হয়ে যাবে তখন আপনি আবার অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড পিএইচপি দিয়ে কিছু প্রজেক্ট তৈরি করার চেষ্টা করুন। তাহলে আপনার অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড পিএইচপি এর দক্ষতা আরও বেশি বৃদ্ধি পাবে।

তারপর ওয়ার্ডপ্রেসের প্লাগিন তৈরি করার চেষ্টা করুন অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড পিএইচপি জ্ঞানের মাধ্যমে।আমি বারবার আপনাকে ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ডেভলপমেন্ট নিয়ে কাজ করার কথা বলছি হয়তোবা ভাবতে পারেন কেন বলছি?

প্রথমত হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ডেভেলপমেন্ট এ কাজ করলে আপনার পিএইচপি দক্ষতা অনেক বৃদ্ধি পাবে এবং আপনার মধ্যে অনেক লজিক ডেভেলপ হবে।

ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ডেভলপমেন্ট এর অনেক রিসোর্স আছে যা আপনার কাজে অনেক বেশি সহায়তা করবে কিন্তু যদি আপনি আপনার দক্ষতা অন্য কোন জায়গায় ব্যাবহার করতে চান তাহলে হয়তোবা রিসোর্স পেতে কষ্ট হতে পারে অথবা রিসোর্সের অভাবে আপনি সঠিক কাজটি উপলব্ধি করতে পারবেন না।

যখন আপনি অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড পিএইচপি দিয়ে ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন তৈরি করে ফেলবেন তখন আপনি প্রথমত যে কাজটি করবেন সেটি হচ্ছে যে কোন ওয়ার্ডপ্রেসের অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড প্লাগিন কে এডিট করার চেষ্টা করবেন নিজের মত করে।

যেমন উকমার্স ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন গুলো তৈরি করা হয় অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড পিএইচপি দিয়ে তাই যদি আপনি একটু কমার্সের প্লাগিনগুলো নিয়ে ঘাটাঘাটি করেন এবং নিজের মতো করে এডিট করার চেষ্টা করেন তাহলে আপনার অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড দক্ষতা আরও বৃদ্ধি পাবে।

যদি সম্ভব হয় উকমার্স এর কিছু এক্সটেনশন তৈরি করার চেষ্টা করুন।

জেকোয়েরি এর সাথে পিএসপি সংযুক্ত করা:

যখন আপনি পিএইচপি নিয়ে কাজ করবেন তখন আপনার অবশ্যই জাভাস্ক্রিপ্টের ব্যবহার থাকা লাগবে যা আপনার পিএইচপি ডেভেলপমেন্ট শেখার ক্ষেত্রে অনেক বেশি কাজে লাগবে। জেকোয়েরি অথবা জাভাস্ক্রিপ্টের এই লাইব্রেরীটি আপনার পিএইচপি দ্বারা তৈরিকৃত ফাংশনালিটি গুলোকে আরো ব্যবহারযোগ্য করে তুলবে।তাই জেকোয়েরি, জেসন এবং এজাক্স সম্পর্কে বেসিক ধারনা রাখুন।

জেসনঃ

জেসন হচ্ছে আপনার পিএইচপি এবং মাইএসকিউএল এর দ্বারা যে ডাটাবেজটি তৈরি হয়েছে সেই ডাটাবেজের ডাটা গুলোকে জেকোয়েরি এর মাধ্যমে ইউজারের কাছে দেখাতে পারবে তাছাড়া আপনি বিভিন্ন কিছু আপডেট করতে পারবেন আপনার ডাটাবেজ এর ভিতর জেসন এর মাধ্যমে।

অ্যাজাক্সঃ

অ্যাজাক্স হচ্ছে পিএইচপি এর লোডিং ফিচারটি কে বন্ধ করে আপনাকে রিয়েল টাইম ডাটা ভিউ করাবে। তারমানে আপনার ব্রাউজারের লোডিং ছাড়াই আপনি যেকোনো ডাটা সেকেন্ডের মধ্যেই ভিউ করতে পারবেন।

আশা করি এই আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লাগবে নেক্সট আমি পিসি তে আরো বিভিন্ন কাজ সম্পর্কে ধারণা দিব যাতে করে আপনার পিএইচপি নিয়ে নিজেকে একজন ডেভেলপার হিসেবে পরিচয় দিতে পারেন।

আউটসোর্সিং

পেশা যখন আউটসোর্সিং

Published

on

By

বর্তমানে আউটসোর্সিং অথবা ফ্রীল্যান্সিং আমাদের দেশে খুবই পরিচিত এবং জনপ্রিয়। আমাদের দেশে বর্তমানে অনেক ওয়েব ডেভেলাপার ,গ্রাফিক্স ডিজাইনার ,রাইটার ,মার্কেটার বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটপ্লেসে সাফল্যের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন। আবার অনেক নতুন নতুন ফ্রীল্যান্সার এই পেশায় আগ্রহী হয়ে এই পেশার দিকে ঝুঁকছেন। আপনি চাইলে আউটসোর্সিংকে পার্টটাইম অথবা ফুলটাইম দুভাবেই পেশা হিসেবে নিতে পারেন। তবে আপনি যেভাবে আউটসোর্সিংকে ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে চান না কেন শুরুর দিকে আপনাকে এটার পিছনে প্রচুর পরিমান সময় ব্যয় করতে হবে। সবচেয়ে বেশি সময় ব্যয় করতে হবে কাজ শিখার সময় শুধুমাত্র কাজ শিখে দক্ষ হয়েই এই পেশায় নাম মঙ্গলজনক। তাহলে আপনাকে আর পিছে ফিরে তাকাতে হবে না। আউটসোর্সিং এ সফল ক্যারিয়ার গড়তে চাইলে প্রথমে আপনাকে কতগুলো জিনিস মাথায় রাখতে হবে। ১.আপনাকে প্রথমে আউটসোর্সিং সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিতে হবে। জেনে নিতে হবে এখানে কোন ধরণের কাজের কেমন চাহিদা রয়েছে।
২.মার্কেটপ্লেস এ কাজের ধরণ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে আপনাকে এই পেশায় আসতে হবে।চাহিদানুযায়ী যে কোনো পছন্দমতো বিষয়ে নিজেকে দক্ষ করে গড়ে তুলবেন। ৩.মনে রাখবেন যেই কাজ শিখা সহজ সেই কাজের রেট তুলুনামূলক কম। তাই অন্তত ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখে কষ্ট করে ভালো মানের কাজ শিখুন।
৪.বর্তমানে আউটসোর্সিং মার্কেটপ্লেসে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ,গ্রাফিক্স ডিজাইন ,সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান এর চাহিদা প্রচুর। উল্লেখিত বিষয়সমূহে প্রশিক্ষন নিয়ে নিজেকে দক্ষ করে গড়ে তুলুন।
আপনি ইচ্ছে করলে অনলাইনে ইন্টারনেট এর মাধমে আউটসোর্সিং শিখতে পারেন। তাছাড়া সিডি অথবা ভিডিও দেখে ও শিখতে পারেন। তাছাড়া কোর্স এর মাধ্যমে আপনি আউটসোর্সিং শিখতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে আপনাকে যেই বিষয়ে কোর্স করতে চান ওই বিষয়ে প্রাথমিক জ্ঞান আগে থেকে অর্জন করার চেষ্টা করবেন। এতে যেমন আপনার কোর্স এর পড়া বুঝতে বেশি সুবিধা হবে ঠিক তেমনি আপনি কোর্স চলাকালীন সময়ে কাজ শুরু করে দলের ইনকাম করার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে। আউটসোর্সিং এ কাজ পাওয়ার জন্য অনেক ভালো ভালো মার্কেটপ্লেস রয়েছে। ঠিক তেমনি রয়েছে অনেক ভুয়া সাইট। তাই জেনে বুঝে কাজ করার ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নিবেন। আউটসোর্সিং এর ক্ষেত্রে সাফল্যের মূলমন্ত্র হলো দক্ষতা। তাই জেনে বুঝে দক্ষ হয়ে এই পেশায় নিজেকে যুক্ত করতে পারলে সফল ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন

Continue Reading

আউটসোর্সিং

লাইক কমেন্ট করে বিকাশে টাকা তুলুন সহজে

Published

on

বন্ধুরা আপনারা সকলেই ফেসবুক ব্যবহার করেন কিন্তু কেউতো সেখান থেকে টাকা ইনকাম করতে পারেননা, কিন্তু এবার এমন একটি সাইট সম্পর্কে বলব যেটা সোশ্যাল মিডিয়া সাইট, এটি সম্পূর্ণ ফেসবুকের মত একটি সাইট, এই সাইট থেকে আপনি ইনকাম করতে পারবেন, এই সাইটে ইনকাম করতে হলে প্রথমে নিচের লিংক থেকে রেজিষ্ট্রেশন করুন। রেজিষ্ট্রেশন করার সময় আপনার ইমেইল, নাম, ইউজার নেম, পাসওয়ার্ড, পোষ্ট কোড, ঠিকানা, বর্তমান পেশা, মোবাইল নম্বর, জেন্ডার সঠিক ভাবে দিবেন। কোন প্রকার ভূল তথ্য দেয়া থেকে বিরত থাকবেন, ভূল তথ্যের কারনে আপনি পেমেন্ট না পেতে পারেন, রেজিষ্ট্রেশন এর ১ম ধাপের পর আপনার প্রোফাইল ছবি দিন, কোন প্রকার স্পাম ছবি দিবেননা। রেজিষ্ট্রেশন শেষ করার পর আপনার ইউজার নেম ও পাসওয়ার্ড দিয়ে সঠিকভাবে লগ ইন করুন, পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে বা হারিয়ে গেলে রিসেট করে নিবেন। লগ ইন করার পর ফেসবুকের মত হোমপেজ দেখতে পাবেন, সেখানে বিভিন্ন বন্ধুদের নাম পাবেন, ফেসবুকের মত এখান থেকে বন্ধু যোগ করে নেবেন। এরপর ফেসবুকের মত বন্ধু দের পোষ্ট দেখতে পাবেন। ঐ পোষ্টগুলো লাইক ও কমেন্ট করবেন। প্রতিটি লাইকের জন্য ২ পয়েন্ট আপনার ক্রেডিট ব্যালেন্স এ যোগ হবে, আর কমেন্ট করলেও ২ পয়েন্ট যোগ হবে। এভাবে বন্ধুদের সকল পোষ্ট গুলোতে লাইক ও কমেন্ট করবেন। আর আপনি যদি নিজের ছবি বা কোন লেখা পোষ্ট করেন তাহলে ২ পয়েন্ট যোগ হবে। এভাবে আপনি প্রতিদিন ২০০ পয়েন্ট বা তার বেশি ও ইনকাম করতে পারবেন। আর্নিং পয়েন্ট সিস্টেম প্রায় পরিবর্তন হয় তাই সাইটের টপ পোষ্ট ও নোটিফিকেশন গুলো দেখবেন। আপনার সেটিংস অপশন থেকে আর্নিং দেখতে পারবেন। সর্বনিম্ন .২০ সেন্ট হলে রিচার্জ এর মাধ্যমে ইউথড্র করতে পারবেন, ০.২০ সেন্ট থেকে ০.৫০ সেন্ট পর্যন্ত মোবাইল রিচার্জ এর মাধ্যমে টাকা উঠাতে পারবেন, মোবাইল রিচার্জ ২৪ ঘন্টা থেকে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে পেয়ে যাবেন, নিচের লিঙ্কে আপনি আমার পেমেন্ট প্রুফ ও পাবেন। আর ১ ডলার হলে বিকাশ রকেট পেপাল বিটকয়েন ওয়েস্টার্ন মানি সহ অন্যান্ন মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন। এসব মাধ্যমের টাকা ৪৮ ঘন্টা থেকে ১ সপ্তাহের মধ্যে পেমেন্ট করে। এছাগা আপনার বন্ধুদেরকে এই সাইটে ব্যাবহার করিয়ে আপনার রেফার করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন, সেটিংস এর আর্নিং অপশন থেকে এ্যাফ্লিয়েট আর্নিং অপশনে ক্লিক করে আপনার রেফার লিংক পাবেন। আর টাকা ইউথড্র করার সময় যেভাবে ইউতড্র দিবেন তা হলো আপনার বিকাশ রকেট বা রিচার্জ নম্বর দিয় / বিকাশ বা রকেট ইংরেজিতে লিখে এটদারেট দিয়ে জিমেইল ডট কম লিখে ডলার দিয়ে সাবমিট করবেন। কোন কিছু বুজতে সমস্যা হলে এসপাইটাইম ডট কম এর সাইটের এডমিন আমির বিন হামজা স্যারবে সরাসরি ম্যাসেজ করতে পারবেন। তাই আপনার অব্যবহৃত সময়টুকু ব্যায় করে প্রতিদিন সহজে এসপাইটাইম সাইট থেকে কিছু টাকা ইনকাম করে নিন। এছাড়া বিভিন্ন আর্নিং এর সঠিক ধারনা পেতে এই সাইটে নিয়মিত ভিজিট করুন।
ধন্যবাদ সবাইকে।

https://www.espytime.com/register?ref=jakaria96bd

Continue Reading

আউটসোর্সিং

এ্যাফ্লিয়েট করে ইনকাম করুন যত খুশি তত ডলার

Published

on

প্রথমে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন. bit.ly/2oCu8rs এরপর Affiliate Program অপশনে ক্লিক করুন।ক্লিক করার পর রেজিষ্ট্রেশন অপশনে follow this link অপশনে ক্লিক করুন। সেখানে আপনি আপনার ইউজার আউডি, ইমেইল, পাসওয়ার্ড ও যেসব তথ্য চাহিত সেগুলো দিবেন। এসব দেওয়ার পর নিচের বিভিন্ন রূলসের টিক মার্ক গুলো দিয়ে দিন এরপর রোবট ক্যাপচা পূরণ করুন।

এরপর ইপনার মেইলে একটা মেইল যাবে। সেখান থেকে ভেরিফাই করে দিন। ভেরিফাই করার পর Affiliate Program অপশনে ক্লিক করুন এবং লগইন করুন। ইগ ইন এর সময় পূর্বে ব্যবহৃত আপনার ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে আপনার রোবট পূরন করে লগ ইন করুন। লগইন করার পর মানি ইউথড্র অপশন থেকে পেমেন্ট মেথড সেট করে নিবেন।

এর পর ড্যাশবোর্ড থেকে আপনার https://www.bestchange.com/?p=125954 এরকম একটা লিংক দেখতে পাবেন। এই লিঙ্ক আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন। আপনার বন্ধুরা এই লিঙ্কে ক্লিক করলে আপনি প্রতি ক্লিকে ০.০৪ সেন্ট ডলার পাবেন। তবে অনেক সময় এটা কম বেশি হতে পারে।

আর ইউথড্র করতে আপনার একাউন্ট ব্যালেন্স মিনিমাম ১ডলার হতে হবে। ইউথড্র দেওয়ার ৫দিনের মধ্যে আপনার পেমেন্ট একাউন্টে টাকা পৌছে যাবে। এটা একটা ডলার এক্সচেঞ্জ সাইট এবং সারা বিশ্বের মধ্যে নাম্বার ওয়ান সাইট তাই এই সাইটে আপনি একটু চেষ্টা করলে প্রতিদিন ইচ্ছামত ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

কোনও অনুমোদিত অ্যাকাউন্টের অভ্যন্তরীণ কাঠামো সম্পর্কে জানতে, আপনি ব্যবহারকারীর নাম এবং পাসওয়ার্ড উভয় হিসাবে সিস্টেমে লগইন করতে পারেন।

এই লিঙ্ক ফেসবুক, ইমেইল, টুইটার, ইমো সহ আপনার সকল পরিচিত জনকে ইনভাইট করবেন। মনে রাখবেন প্রতি ৯০ দিনের মধ্যে একটি ডিভাইস থেকে একবার ভিউ কাউন্ট হবে। একই মোবাইল দিয়ে বার বার চেষ্টা করবেনা। এছাড়া আপনি যেকোন সাহায্য পেতে ইউটিউবে বা গুগলে সার্চ করলে সবকিছু পেয়ে যাবেন।

এদের আর্নিং সিস্টেমটা একটু দেখে নিন-

এক দর্শনার্থীর জন্য আইটেমগুলি বিভিন্ন পৃথক পরিমাণে গঠিত:

বেসিক হার – $ 0.04।
যদি ব্যবহারকারী আপনার দ্বারা নিযুক্ত থাকে:

এক্সচেঞ্জার মনিটরিং পরিষেবা ব্যবহার করে, আপনি অতিরিক্ত $ 0.01 x 9 পাবেন;
3 দিনে সাইটে ফিরে আসে, আপনি অতিরিক্ত $ 0.02 পান;
7 দিনে সাইটে ফিরে আসে, আপনি অতিরিক্ত $ 0.03 পান;
14 দিনে সাইটে ফিরে আসে, আপনি অতিরিক্ত $ 0.04 পান;
30 দিনে সাইটে ফিরে আসে, আপনি অতিরিক্ত $ 0.06 পান;
60 দিনের মধ্যে সাইটে ফিরে আসে, আপনি অতিরিক্ত $ 0.09 পান;
90 দিনে সাইটে ফিরে আসে, আপনি অতিরিক্ত $ 0.13 পাবেন;
120 দিনের মধ্যে সাইটে ফিরে আসে, আপনি অতিরিক্ত $ 0.15 পান;
অংশীদার হিসাবে নিবন্ধিত, আপনি আমাদের সিস্টেমে তাদের আয়ের 30% উপার্জন করেন;
অংশীদার হিসাবে নিবন্ধিত এবং অন্য অংশীদারকে নিযুক্ত করে, আপনি আমাদের সিস্টেমে পরের আয়ের 10% উপার্জন করেন।

তাই দেরি না করে এখনি কাজ শুরু করে দিন। ধন্যবাদ সবাইকে। সকলে আমার রেফারে একাউন্ট করবেন।

Continue Reading
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন