★ Grathor.com এ আপনিও ✍ লেখালেখি করে ভূমিকা রাখতে পারেন এবং পাশাপাশি অর্থ আয় করতে পারেন★এখানে ক্লিক করে বিস্তারিত জানুন★

গল্পঃ দুষ্টু মেয়ে নিতু ও মিতু

নিতু ও মিতু দুই বোন।বাবা মজিদ সাহেব বড় একজন ব্যবসায়ী।তেলের ব্যবসা করেন।বেশ কয়েকটা তেলের ডিপো আছে মজিদ সাহেবের।শহরে বেশ কয়েকটা বাড়ীও আছে তার।বাড়ী ভাড়া ও ব্যবসা থেকে ভাল একটা আয় হয়।তবে খুব ভাল মনের মানুষ তিনি।এত ধনী হওয়া সত্ত্বেও সাদাসিধে চলাফেরা করেন।কোন গরিমা নেই।নিতু মিতুর মাও খুব ভাল মানুষ।যাকে বলে  মাটির মানুষ।কিন্তু মেয়ে দুটো হয়েছে একেবারে বিচ্ছু টাইপের।

জহির মজিদ সাহেবের দূর সম্পর্কের আত্মীয়। লেখা পড়া করার জন্য শহরে এসেছে।নিতু মিতুদের বাসার ছাদে একটা ছেট্ট রুমে থাকে জহির।নিরিবিলি পরিবেশে লেখাপড়া করে সে।কিনতু দুই বোনের যন্ত্রনায় সে ভালভাবে পড়াশুনা করতে পারে না।কারনে অকারনে এসে বিরক্ত করে ওরা।

জহির খুব ঠান্ডা স্বভাবের ছেলে।তাছাড়া ওদের বাসায় থাকে নালিশ করে যদি থাকার জায়গাটা হারাতে হয় এই ভয়ে কিছু বলে না।একদিন দেখে লুঙ্গি ফুটা করে রেখেছে।আবার আর একদিন দেখে প্যান্ট কেটে রাখছে।মাঝে মাঝে বাসার যত ময়লা আছে সব জহিরের রুমের সামনে রাখা। এ ভাবেই জহিরের দিন চলতে লাগল।একদিন পড়তে বসেছে হঠাত একটা ইটের টুকরা এসে পড়ল ওর সামনে।নিতু মিতু ছাড়া এই কাজ অন্য কেউ করেনি এটা জহির ঠিকই বুঝতে পারল।


নিতু কলেজে পড়ে আর মিতু ক্লাশ নাইনে।লেখাপড়ায় খুব ভাল ওরা।জহিরের সাথে খুবই দুষ্টুমি করে ওরা।কিন্তু কোন কথা বলে না।জহিরও নিজ থেকে কখনও কথা বলেনি ওদের সাথে।দুই বছর ধরে জহির ওদের বাড়ীতে থাকে কিনতু কখনো ওদের ঘরে যায়নি। সেই প্রথম যেদিন এসেছিল সেদিন ছাড়া।জহির পদার্থবিদ্যায় অনার্স পড়ছে।খুব মেধাবী সে।দুনিয়ার কেন প্যাঁচ গোছ সে বিলকুলই বুঝে না।

নিতু মিতু মাঝে মাঝে ছাদে এসে বই নিয়ে হেটে হেটে পড়ে।একদিন নিতু একটা পড়া বারবার ভুল পড়ছে।তখন জহির এসে বলল এটা এভাবে না। শুনেই নিতু খুব রেগে গেল।বলল,আপনাকে কি আমি বলতে বলেছি কোনটা ভুল আর কেনটা শুদ্ধ।কথা বলার জন্য বাহানা খুজেন তাই না।আপনাদের মত বেহায়া ছেলেদের আমি ভালকরেই চিনি।জহির লজ্জা পেয়ে সরি বলে তার রুমে চলে গেল।

নিতু রুমে এসে দেখলে আসলেই সে ভুল পড়েছে।শুধু শুধু জহিরকে এত কথা শুনিয়েছে।তার মনটা খানিক খারাপ হয়ে গেল।তাছাড়া জহির খুব ভাল ছেলে। এত জ্বালাতন করার পরও সে কখনও কিছু বলেনি।কয়েকদিন পর একটা চ্যাপ্টার নিতুর মাথায় ডুকছে না।তখন মিতুকে দিয়ে জহিরকে ডেকে আনালো।জহির খুব সুন্দর করে পড়াটা বুঝিয়ে দিল।মন্ত্রমুগ্ধের নিতু জহিরের কথা শুনল।খুব ভালভাবে কথাও বলতে পারে জহির।সবার অবশ্য এই গুনটা থাকে না তবে জহিরের আছে।


একদিন নিতু মিতু ছাদে এল জহিরকে খুজতে। সে তখন পড়তেছিল।জহির ওদের দেখেই ভাবল কোন দুষ্টুমির মতলব নিয়ে এসেছে কে জানে।এমন সময় মিতু এগিয়ে এসে বলল,বাবা বলেছে আপনাকে রাতে আমাদের বাসায় খাওয়া দাওয়া করতে। আর কি যেন কথা বলবে আপনার সাথে।জহির বলল,ঠিক আছে আমি আসব।নিতু মিতু চলে গেল।এই প্রথম কোন প্রকার দুষ্টুমি ছাড়া দু বোন ছাদ থেকে নেমে গেল।

জহির নিতু মিতুদের বাসায় গেল।খাবার খেতে গিয়ে দেখে দুনিয়ার সব খাবার টেবিলে।অনেক দিন জহিরের ভাল মন্দ খাওয়া হয় না।যাক আজ পেট পুরে খাওয়া যাবে।নিতু খাবার পরিবেশন করছে।জহিকে কেন যেন একটু বেশিই যত্ন করে খাওয়াচ্ছে।ব্যাপার কি কে জানে।এমন সময় মজিদ সাহেব বলল,জহির তুমি আমার এই দুই দুষ্টু মেয়েকে পড়াতে হবে।তবে সাবধান এদের কোন কথায় কিন্তু পাওা দিবা না।জহির মুচকি হেসে রাজি হয়ে গেল।