তরুণদের জন্য ৩টি পার্ট টাইম ব্যবসা

আস সালামু আলাইকুম। কেমন আছেন সবাই? আজকের এই নিবন্ধটিকে ডিজাইন করা হয়েছে ছাত্র তরুনদের জন্য। আমাদের দেশে বেশির ভাগই মানুষই মধ্যবৃত্ত। দেখা যায় পড়া-শোনার খরচ ঠিক মতো দিতে পারে না বাসা থেকে। প্রয়োজন পড়ে পার্ট টাইম কিছু করার।


কিন্তু পড়া-লেখার পাশাপাশি পার্ট টাইম হিসেবে কী কাজ করবেন সেটা খুজে বের করা খুবই কঠিন। কারণ স্কুল কলেজে যাওয়া আসা এবং হোমওয়ার্ক করার পর দিনের তেমন সময় আর থাকে না। আবার দেখা যায় আমাদের সেই রকম কোনো পুঁজিও নেই।
তাই আমি আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি পড়াশোনার পাশাপাশি, অল্প পুঁজি কম সময় দিয়ে লাভজনক কয়েকটি পার্ট টাইম কাজ নিয়ে।

১. টি-শার্ট

বর্তমান টি-শার্ট ব্যবহার করে না এমন মানুষ খুজে পাওয়া যাবে না। বিশেষ করে তরুণরা। স্বাভাবিক ভাবে এখন টি-শার্ট ব্যবহার করা অন্যতম ফ্যাসন। আপনি গার্মেন্টস থেকে কম দামে (৪০-৫০) বেশ কিছু টি-শার্ট কিনলেন। খুব বেশি হলে ৭০-৮০ টাকা নেবে। আপনি এগুলো আবার ১৫০-২৫০ টাকার মতো করে বিক্রি করতে পারবেন।

আপনি এই কাজটি করতে পারেন। এতে আপনার বাজারে দোকান খোলা বা শপিং হাউজ ভাড়া করার কোনো প্রয়োজন নেই।
আপনি ই-কমার্স এর মাধ্যমে ব্যবসা করতে পারেন। ফেসবুকে একটা পেজ খুলে সেখানে টি-শার্ট এর ছবি দিবেন এবং এর মূল্য কত বলে দিবেন। দেখবেন এতে আপনার অন্যান্য ব্যবসায়ির থেকে অনেক বেশি ইনকাম হচ্ছে।
এর জন্য আপনাকে সারা দিন সময় দেওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই। দিনে ২-৪ ঘণ্টা সময় দিলেই যথেষ্ট। আপনি পড়াশোনা সহ যে কোনো চাকরি করার পর পার্ট টাইম হিসেবে এই ব্যবসা করতে পারেন।

২. ১-৯৯ ব্যবসা (১-৯৯ টাকায় যে সমস্ত দ্রব্যাদি পাওয়া যায়)

আপনি হয়তো অনেক জায়গায় দেখেছেন এই ব্যবসাটি। এটি অনেক লাভজনক ব্যবসা। আপনি খুবই সামান্য পুঁজি দিয়ে এই ব্যবসাটি করতে পারবেন। অনেক জিনিস রয়েছে যা ৫০-৬০ টাকায় পাইকারী দামে ক্রয় করা যায়। আপনি সেগুলো কিনে ৯৯ টাকা দামে বিক্রি করতে পারেন। এখানে আপনি চকলেট থেকে শুরু করে চামুস, কাপ, বিভিন্ন ধরণের বাসনসহ নানান জাতের জিনিস পাওয়া যায়। এই ব্যবসা সাধারণত বিকেল বেলাতেই বেশি জমে। তাই আপনার সারাদিন ব্যয় করার কোন প্রয়োজন নেই। আপনি পার্ট টাইম হিসেবে বিকেল বেলাতেই এই কাজ করতে পারবেন।

৩. কম্পিউটার প্রশিক্ষণ

বর্তমান সময়ে চাকরি নিতে গেলে কম্পিউটার স্কিল অবশ্যই থাকতে হবে। তাছাড়া কম্পিউটার প্রশিক্ষণ নিয়ে ফটোকপি করা, ফ্রিল্যানসিং করা ইত্যাদি ব্যপাক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। আপনি কম দামে বেশ কয়েকটি কম্পিউটার কিনে প্রশিক্ষণের কাজ করতে পারেন। এখানেও আপনাকে সারাদিন সময় দেওয়ার প্রয়োজন নেই।

আপনি একজন ভালো প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত লোক নিয়োগ দিবেন। সে কম্পিউটার ট্রেইনিং করাবে। পাশাপাশি আপনি ইন্টানেট সংযোগ দিয়ে আরো অনেক ব্যবসা করতে পারবেন। ফটো কপি করা, ছবি তোলা, চাকরির আপ্লায় করা ইত্যাদি। আপনার নিয়োগকৃত লোক এই কাজ গুলো করবে আর আপনি দিনে ২-৩ ঘণ্টা সময় দিবেন তাহলেই হবে।

Related Posts

5 Comments

মন্তব্য করুন