Connect with us
★ Grathor.com এ আপনিও ✍ লেখালেখি করে আয় করুন★Click Here★

দেশের খবর

বাড়ছে নারী মাদকসেবীর সংখ্যা, মাদক গ্রহণে এগিয়ে ঢাকা

Habibur Rahman Rasel

Published

on

সম্প্রতি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের একটি প্রতিবেদন প্রকাশ পেয়েছে। সেখানে মাদকদ্রব্য গ্রহণ, মাদকব্যবসার সাথে সংশ্লিষ্টতা ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সারা দেশের উপর একটি জরিপের ফলাফল প্রকাশ করা হয়। সেখানে দেখা যায় প্রতিনিয়ত বেড়ে চলেছে নারী মাদকসেবীর সংখ্যা। স্কুল কলেজ ভার্সিটি পড়–য়া মেয়েরা এ মাদকের সাথে বেশি জড়িত। উচ্চবিত্ত পরিবারের স্বাধীনচেতা নারী থেকে শুরু করে বস্তির শ্রমজীবি নারীরাও আসক্ত হয়ে পড়ছে মাদকের সাথে। ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব মেন্টাল হেলথের একটি গবেষণা থেকে জানা যায় দেশে বর্তমানে মাদকাসক্তের সংখ্যা ৭০ লাখ। এর মধ্যে ১০ শতাংশ মাদকাসক্ত হলো নারী। এবং দিন দিন নারী মাদকসেবীর সংখ্যা বাড়ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। ইদানিং রাজধানী ঢাকার কিছু অভিজাত এলাকার সড়কে , শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশে, ক্যান্টিনে, পার্কে এমনকি ফুটপাতের টঙ দোকানে দাঁড়িয়েও অনেক মেয়েকে ধুমপান করতে দেখা যায়। এছাড়া এদের মধ্যে অনেকেই গাঁজাসহ অন্যান্য মাদকের সাথে জড়িত। এসব মাদক সেবীর বেশিরভাগই শিক্ষিত এবং স্মার্ট। বন্ধুদের সাথে আড্ডাবাজি চালাতে গিয়ে একরকম ঝোঁকের মধ্যেই তারা জড়িয়ে পড়ছেন মাদকের সাথে। তাছাড়া আড্ডায় বসে অনেকের সাথে নিজে মাদক গ্রহণ না করাটা প্রেস্টিজ ইস্যু মনে করে অনেক মেয়ে মাদকে আসক্ত হয়ে পড়ছেন। তবে বস্তি অঞ্চলের নারীরা কিংবা শ্রমজীবি অনেক নারী পাারিবারিক ও পারিপাশির্^ক অভ্যাসের কারণে অনেকটা স্বাভাবিকভাবেই মাদকাসক্ত। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের গবেষণায় আরও প্রকাশিত হয় যে সারাদেশের ৮টি জেলার মধ্যে মাদক সরবরাহের দিক থেকে এগিয়ে আছে সিলেট জেলার মানুষ। সবচেয়ে বেশি মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত বরিশাল জেলার মানুষ। আর সবচেয়ে বেশি মাদক গ্রহণ করেন রাজধানী ঢাকার মানুষ। এছাড়া মোট মাদকাসক্তের ২৫% মাদকসেবী হলো শিশু। এদের বয়স ১৫ বছরের মধ্যে। এবং এদের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি রাজধানী ঢাকায়। প্রতিবেদন থেকে জানা যায় মাদকসেবীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত মাদক হচেছ গাঁজা ও ইয়াবা। এর মধ্যে ঢাকার মাদকসেবীরা বেশি গ্রহণ করেন ইয়াবা। বরিশালের মাদকসেবীরা সবচেয়ে বেশি গ্রহণ করেন গাঁজা। রংপুরের মাদকসেবীরা সবচেয়ে বেশি গ্রহণ করেন ফেনসিডিল ও রাজশাহীরা মাদকসেবীরা গ্রহণ করেন হেরোইন। সারা দেশে যে পরিমাণ গাঁজা ও ইয়াবা গ্রহণ করা হয় তার ৬৮.২ শতাংশ গাঁজা ও ৪৮.২ শতাংশ ইয়াবা। জরিপে দেখা যায় বেশিরভাগ মাদকসেবীদের বয়স ১৫ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে। মাদকের পিছনে তাদের গড় খরচ মাসিক হিসেবে ১৭ হাজার টাকার উপরে। জানা যায় দেশের ভিতরে মাদক আসে সবচেয়ে বেশি পার্শ¦বর্তী দেশ ভারত থেকে। তারপর মায়ানমার থেকে। মাদকসেবীরা সাধারণত খোলা মাঠে, ভাঙ্গা ও পরিত্যাক্ত বাড়িতে, নিজের বাড়িতে কিংবা কোনো নির্জন স্থানে গিয়ে মাদকসেবন করেন। এই মাদক গ্রহণের কারণ একেক জনের কাছে একেক রকম। শিক্ষিত তরুণদের মধ্যে চাকরি না পাওয়া, প্রেমে ব্যর্থতা, পারিবারিক অশান্তি ইত্যাদি কারণ চিহ্নিত করা যায়। বাংলাদেশী মাদকসেবীরা সাধারণত মাদক গ্রহণের ১০ থেকে ১৫ বছর পর্যন্ত মাদক পুরোদমে চালিয়ে যান। তারপর কিছু সংখ্যাক ছেড়ে দেন এবং কিছু সংখ্যক মাঝে মাঝে এবং কিছু সংখ্যাক পুরোদমেই মাদকগ্রহণে নিয়মিত হয়ে যান। পরিবহণ শ্রমিকদের বেশিরভাগই প্রায় ৮০ শতাংশ মানুষ মাদকের সাথে জড়িত।

দেশের খবর

পৃথিবীর সবথেকে সুন্দর ৫ টি দেশ।

Anik Saha

Published

on

আশা করি সবাই ভালো আছেন।আমাদের সবার  ভ্রমণ করতে ভালো লাগে।আমরা ইতিমধ্যে হয়তো বাংলাদেশের অনেক ভালো ভালো স্থানে ভ্রমণও করে ফেলেছি।এই ভ্রমণগুলো করে আমরা প্রকৃতির সৌন্দর্য দেখে অবাক হয়ে গিয়েছি।কিন্তু পৃথিবীতে এমন কিছু দেশ আছে যেগুলোতে যদি তুমি কোনোদিন ভ্রমণ করো তাহলে হয়তো তোমাদের মন সেখানে বসে যাবে আর আসতেই চাইবে না সেখান থেকে।এত সুন্দর দেশ যে পৃথিবীতে আছে সেটাও তুমি কল্পনা  করতে পারবে না।তাই যদি তোমাদের সেই জায়গা গুলোতে বা দেশ ভ্রমণ করার শকখ থাকে তাহলে অবশ্যই এই ৫ টি দেশে ভ্রমণ করবেঃ

৫.ইতালিঃএটি  ইউরোপের একটি দেশ।এই দেশে রয়েছে এমন কিছু জায়গা যেখানে গেলে তোমাদের মন ছুয়ে যাবে।আর এমনিও এই দেশটার প্রতিটি জায়গায় পরিস্কার পরিচ্ছন্ন।ইতালির নাগরিকরা নিজের দেশের এওত সৌন্দর্য দেখে গর্ববোধ করে।তারা অন্য্র দেশ থেকে নিজের দেশকে বেশি গুরুত্ব দিয়ে থাকে।তবে এই দেশটাতে রয়েছে প্রচুর করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত বেক্তি রয়েছে।এবং প্রচুর মানুষ মারা গয়েছে।তোমার যদি কো সময় ভ্রমণ করতে ইচ্ছে হয় তাহলে ইতালিতে জেতে পারো।

৪.ফ্রান্সঃঃফ্রান্স দেশটিকে আমরা ফুটবল খেলায় দেখতে পাই।কিন্তু এই দেশটি কতটা সুন্দর তা কি একবারও ভেবেছেন।অনেক মানুষ রয়েছে যারা বাংলাদেশ থেকে ফ্রান্স গিয়ে আর ফিরে না।এই দেশে প্রতিটি নাগরিককে দেওয়া হয় প্রচুর সম্মান।এউ দেশটাতে ভ্রমণ করার শখ থাকলে ভবিষ্যতে অবশ্যই যেতে পারো।তবে এই দেশটাতে যেতে হলে টাকাটা একটু বেশি পরিমান লাগবে।

৩.দুবাইঃঃআমরা একটা জিনিস লক্ষ করেছি যে প্রতিটি ছবিতে যখন অন্যান্য দেশে গিয়ে করা হয়।তখন দুবাইে বেশি যাওয়া হয়ে থাকে।খুবই শান্তিময় জায়গা এটি।তাছাড়া যদি কেও এই দেশে যায় তাদেরকে প্রচুর সম্মানের সাথে গ্রহণ করে সেই দেশের নাগরিকরা।তাই যদি আপনি শান্তিময় জায়গায় যেতে চান তাহলে অবশ্যই বলবো দুবাইয়ে যান।

২.নিউজিল্যান্ডঃ আমি যখন পৃথিবীর ১০ টি সেরা দেশের মধ্যে নিউজিল্যান্ডকে দেখতে পাই তখন অবাক হয়ে গিয়েছিলাম।তারপর দেশটার কিছু ফিচার দেখে আমি বুঝতে পারলাম সত্যি দেশটা অনেক সুন্দর।আর যদি কোনোদিন যাই তাহলে তো পাগল হয়ে যাবো সৌন্দর্যে।

১.আইসলেন্ডঃআইসলেন্ড হলো অন্যতম জনপ্রিয় একটি দেশ।আর এটা নিসন্দেহে একটি সুন্দর দেশ।যদিও এই দেশটার নাম আইসলেন্ড তারপরো এই দেশে তেমন কোনো ঠান্ডা নেই।এই দেশটিতে প্রচুর ঘোরার জন্য মানুষ আসে।এবং আপনি সবথেকে ভালো ভ্রমণ চাইলে এই দেশে যেতে পারেন।

এই ৫ টি দেশের মধ্যে কোনোটিতে যদি আপনি যান তাহলে আপনি সপ্নের দুনিয়ায় চলে এসেছেন মনে করবেন।আর আমরা সৌন্দর দেশ বলতে যুক্তরাষ্ট্র,যুক্তরাজ্যকে বুঝি।এই দেশগুলো উন্নত তবে ভ্রমণ করার জন্য এদের থেকে ভালো জায়গা আছে।সবাই ভালো থাকবেন,ধন্যবাদ।

 

Continue Reading

দেশের খবর

ব্যক্তিগত গাড়িতেই হবে ঈদযাত্রা

Priyam Biswas

Published

on

অবশেষে ব্যক্তিগত গাড়িতেই হবে ঈদযাত্রা:

কেমন আছেন সবাই আশা করি সবাই ভাল আছেন। সম্প্রতি দেশে অঘোষিত লকডাউন আজ থেকে শিথিল করা হল। আজকে থেকে ঈদের ছুটিতে নিজের প্রাইভেট গাড়ি করে আপনি যেতে পারবেন আপনার প্রিয় গ্রামের বাড়িতে বা আত্মীয়ৱ বাসায়। ব্যক্তিগত বন্ধ থাকবে গণপরিবহন। ইতিমধ্যে সকল জায়গা থেকে চেক পোস্ট সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে পুলিশের তরফ থেকে।
পুলিশের তরফ থেকে আরও বলা হয়েছে যে ঈদের সময় পরিবারের সকল সদস্য যাতে একসাথে ঈদ পালন করতে পারে সেজন্যেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
তবে ব্যক্তিগত বাহন হিসেবে কোন ধরনের বাহন কে বোঝাচ্ছে তারও ব্যাখ্যা দেন পুলিশের তরফ থেকে। বল হয়েছে যে ব্যক্তিগত গাড়ি বলতে কোন ভাড়ায় চালিত গাড়ি নয় নিজের গাড়ি আপনি শুধুমাত্র ব্যবহার করতে পারবেন যাদের নিজেদের নিজস্ব বাহন নেই তারা এই সুবিধা পাবেন না।
এই থেকে বোঝা যাচ্ছে যে গরিবের কাছে ঈদের আনন্দটা এবারের মতো কিছুটা হলেও ফিকে হয়ে উঠবে।
উল্লেখ্য যে এ সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে বিশেষজ্ঞগণ উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তাদের মধ্যে এই সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী হয়ে উঠবে কারণ দেশে করোনা পরিস্থিতির চরম বিশৃঙ্খলার পথে আরে মধ্যে যদি ঈদ যাত্রার জন্য অনুমতি দেওয়া হয় তবে তা আরও ভয়ংকর। ইতিমধ্যে বিগত তিন দিন ধরে প্রায় 1 হাজার 600 জনের বেশি করে লোক করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের শিকার হয়ে পরছে। আজ শুক্রবার এ ও এই সংখ্যার পরিমাণ প্রায়ই 1 800 এর কাছা কাছি। বিশ্বে আড়াই মাসের মাথায় করণা সংক্রমণ কমে আসলেও আমাদের দেশে তা দিন দিন বেড়েই চলছে।
এর আগে সরকার ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে সবাইকে যার যার অবস্থান থেকে উৎপাদনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল এবং একই সাথে এও বলা হয়েছিল যে যার যার কর্মস্থল কেও ত্যাগ করতে পারবেন না এই সাধারণ ছুটি চলাকালীন সময়ে। যদি কেউ এই নির্দেশনা না মানে তাহলে আইনি ব্যবস্থার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয় সরকারের পক্ষ থেকে। এর সাথে সকল গণপরিবহন যেমন বাস ,টেম্পু ,ট্রেন ইত্যাদিও চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। কিন্তু প্রয়োজনের সাথে মালবাহী ট্রেন , ট্রাক ও সাধারণ পরিবহন যেগুলো নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য আনা-নেওয়ার কাজে প্রয়োজন সেই সকল বাহন এই আইনের আওতায় পড়বে না বলে জানানো হয়েছিল।
কিন্তু এত ব্যবস্থার পরে আবার সবকিছু খুলে দেওয়া খুবই দুঃখজনক।
তবে যাই হোক বাংলাদেশের সচেতন নাগরিক হিসেবে করোনা সংক্রমণ এড়াতে যতটুকু সম্ভব সকল নিয়ম নীতি মেনে চলায় আমাদের কর্তব্য।

Continue Reading

দেশের খবর

25 তম স্থানে উঠে এলো বাংলাদেশ।

Priyam Biswas

Published

on

25 তম স্থানে উঠে এলো বাংলাদেশ:

কেমন আছেন আপনারা আশা করি সকলেই ভাল আছেন। আজকের দিনটা আমাদের জন্য খুবই কষ্টের দিন কারণ আজকে দেশের সংক্রমণের ইতিহাসের সর্বোচ্চ সংখ্যক সংক্রমণ পাওয়া গেছে যার সংখ্যা দাঁড়ায় প্রায় এক হাজার 873 জন এ পর্যন্ত করনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন প্রায় সাড়ে 400 এর বেশি মানুষ। এছাড়াও গত 24 ঘন্টায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে মোট 20 জন ব্যক্তি মৃত্যুবরণ করেছে। এখন পর্যন্ত আমাদের দেশের সংক্রমণের সংখ্যা প্রায় 32 হাজার ছাড়িয়ে গেছে।
এখন পর্যন্ত পৃথিবীর 220 টি দেশের মধ্যে করোনা ভাইরাস এর সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে। আর এই 220 টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান করো না সংক্রমনের মোট দিক থেকে 25 তম স্থানে উঠে এসেছে যা খুবই দুঃখজনক। কারণ এখন পর্যন্ত পুরো বিশ্বে করো না সংক্রমণের শিকার হয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা 53 লাখ 20 হাজার 834 জন আর মৃতের সংখ্যা 3 লাখ 40 হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এরমধ্যে সর্বোচ্চ সংখ্যক আক্রান্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে এবং সেখানে মৃতের সংখ্যা সর্বোচ্চ বলে জানা গেছে। তাই শীর্ষ 220 টি দেশের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান এক নম্বরে রয়েছে আর বাংলাদেশের অবস্থান 25 নম্বরে রয়েছে আর ভারতের অবস্থান 11 নম্বরে আছে। বাংলাদেশের ওপর স্থান অর্থাৎ 24 নম্বর স্থানে রয়েছে সুইডেন সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা 32 হাজার 809 জন আর সেখানে মারা গেছে আমাদের দেশ থেকেও অনেক বেশি পরিমাণ মানুষ যার পরিমাণ হচ্ছে সাড়ে তিন হাজারেরও বেশি প্রায় 4000 কাছাকাছি মানুষ করো না সংক্রমণের শিকার হয়ে মারা গেছে। আর বাংলাদেশের পরিস্থান অর্থাৎ 26 নম্বর স্থানে রয়েছে সিঙ্গাপুর। সিঙ্গাপুর 26 নম্বর স্থানে থাকলেও তাদের সেখানে করণা ভাইরাসটি ভিন্ন রকম আচরণ দেখাচ্ছে কারণ সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা 30 হাজার ছাড়ালো মৃতের সংখ্যা মাত্র 23 জন বলে জানা গেছে। যদিও সিঙ্গাপুরের চিকিৎসা ব্যবস্থা অন্যান্য দেশ থেকে অনেক ভালো তবুও এই ধরনের এত কম সংখ্যক মৃতের সংখ্যা খুবই সন্তোষজনক।
বাংলাদেশের করোনাভাইরাস প্রথম মিউটেশন এ দেখা যায় যে বাংলাদেশের করোনা ভাইরাস কিছুটা রাশিয়ার ভাইরাসের জিনগত মিল আছে। আর সেই রাশিয়ার স্থান হচ্ছে দুই নাম্বারে। এখন পর্যন্ত জানা গেছে যে রাশিয়ায় মোট আক্রান্তের পরিমাণ প্রায় 3 লাখ 35 হাজার ছাড়িয়েছে আর মৃতের সংখ্যা প্রায় সাড়ে তিন হাজার এর কাছাকাছি।
উল্লেখ্য যে যুক্তরাষ্ট্রের করনা পরিস্থিতি শীর্ষে থাকলেও তাদের দেশে করো না পরিস্থিতি দিন দিন স্বাভাবিকের পথে হাঁটছে। বর্তমানে তাদের দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের সংখ্যা এবং মৃত্যু দুই কমছে দিন দিন।

Continue Reading