grathor-ads

মেসেঞ্জার হ্যাক হলে কিভাবে বুঝব?

আজকাল আমরা সবাই মেসেঞ্জার ব্যবহার করি। অনলাইনে তথ্য আদান- প্রদান করতে, ছবি কিংবা মেসেজ পাঠাতে হলে মেসেঞ্জারের জুড়ি নেই। কেবল ইন্টারনেট কানেকশন থাকলেই পৃথিবীর যে কোনো প্রান্তে বসে মেসেঞ্জারে মেসেজ পাঠানো যায়। এমনকি মেসেঞ্জার দিয়ে অডিও বা ভিডিও কলে কথাও বলা যায়। আজকে আলোচনা করবো মেসেঞ্জার হ্যাক হলে কিভাবে বুঝব?


📢 Promoted post: বাংলায় আর্টিকেল লেখালেখি করে ইনকাম করতে চান?

আর মেসেঞ্জার হ্যাক হলে করণীয় কি। সেইসাথে কি কি প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে সেই সম্পর্কেও জানবো। এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। আর বিস্তারিত জানার জন্যে পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হিসেবে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে ফেসবুক। সেই ফেসবুকের আরেকটি অনুষঙ্গ হলো মেসেঞ্জার। মোবাইল বা ল্যাপটপে আপনি মেসেঞ্জারের মাধ্যমে মেসেজ আদান- প্রদান করতে পারেন।

👉Read more: ফুল নিয়ে ক্যাপশন (সাদা ফুল, কৃষ্ণচূড়া ফুল, সূর্যমুখী, সরষে ফুল, রঙ্গন ফুল) উক্তি, স্ট্যাটাস

সেই আপনার আইডি থেকে সচল হওয়া মেসেঞ্জার হ্যাক হয়েছে কিনা কিংবা আপনার মেসেজ অন্য কেউ পড়ছে কিনা কিভাবে বুঝবেন? 

মেসেঞ্জার হ্যাক হবার কারণ কি? মেসেঞ্জার হ্যাক হলে কিভাবে বুঝব?

আসুন জেনে নেই কি কি কারণে মেসেঞ্জার হ্যাক হতে পারে-

grathor-ads
  • ১. পাসওয়ার্ড চুরি হওয়া
  • ২. কোডের মাধ্যমে হ্যাক হওয়া
  • ৩. পাসওয়ার্ডের গোপনীয়তা রক্ষা না হওয়া
  • ৪. ফোন হারিয়ে যাওয়া
  • ৫. একাধিক ডিভাইস হতে কোনো প্রকার সিকিউরিটি ছাড়াই মেসেঞ্জার ওপেন করলে

মেসেঞ্জার চালানোর ক্ষেত্রে সতর্কতা

মেসেঞ্জার চালানোর ক্ষেত্রে কিছু সতর্কতা অবশ্যই অবলম্বন করতে হবে। সেগুলো কি আসুন জেনে নেই।

প্রথমত ব্যক্তিগত তথ্য এবং ছবি মেসেঞ্জারে শেয়ার করবেন না। দ্বিতীয়ত নিজের পাসওয়ার্ড অন্য কাউকে দেবেন না। তৃতীয়ত আপনার ব্যক্তিগত ডিভাইস ছাড়া অন্য কোথা হতে মেসেঞ্জার ওপেন করবেন না। সহজে অনুমান করা যায় এমন পাসওয়ার্ড দেবেন না।

📢 Promoted Link: Unlimited Internet Package Teletalk 2022 3G, 4G

চেষ্টা করবেন জনবহুল স্থানে আপনার ফেসবুক বা মেসেঞ্জারের পাসওয়ার্ড টাইপ করবেন না। এছাড়া কখনোই আপনার পাসওয়ার্ড শো করে রাখবেন না। সবসময় হাইড করে রাখবেন। ডিভাইসের কোথাও পাসওয়ার্ড লিখে রাখবেন না।

মেসেঞ্জার হ্যাক হলে কিভাবে বুঝব ?

আপনার আইডি থেকে আপনার চেনাজানা বা ফ্রেন্ডলিস্টে যারা আছেন, তাদের এমন এমন মেসেজ দেয়া হয়েছে যা আপনি পাঠাননি। আবার ভিন্ন ভিন্ন মেসেজিং গ্রুপে যুক্ত হয়েছে আপনার আইডি। অথচ আপনি সেসব গ্রুপে কোনোদিনই রিকুয়েস্ট পাঠাননি। এছাড়া নেতিবাচক ছবি, লিংক শেয়ার করা এমনকি অসামাজিক গ্রুপগুলোতেও যুক্ত আছে আপনার আইডি।

তখন বুঝবেন আপনার মেসেঞ্জার অন্য কেউ চালাচ্ছে। অন্য কারো অনুপ্রবেশ ঘটেছে আপনার আইডিতে।  এছাড়া আপনি মেসেঞ্জার সেটিংস থেকে লগইন টাইমও দেখতে পারেন। সেই থেকেও অনুমান করতে পারবেন আইডি হ্যাক হয়েছে কিনা।

এবার আলোচনা করবো আপনার মেসেঞ্জার হ্যাক হলে কি করবেন।

প্রথমত পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করবেন। যদি তা না পারেন, তাহলে বুঝবেন হ্যাকার ইতিমধ্যে পাসওয়ার্ড বদল করে ফেলেছে। তখন ফেসবুকে লগইন করে ফরগেট পাসওয়ার্ড দিয়ে নতুন করে পাসওয়ার্ড সেট করতে হবে।

চাইলে আপনি ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে রিপোর্ট করে বিষয়টি জানাতে পারেন। তখন তারা উপযুক্ত পদক্ষেপ নিলে আপনি আপনার আইডি ফেরত পাবেন। তবে তাদেরকে জানাতে হবে যে, আইডিটি আপনার এবং আপনিই আসল মালিক আইডিটির।

এজন্য বলে রাখি, যে কোনো অ্যানোনিমাস বা আনঅথোরাইজড লিংকে ক্লিক করবেন না। যে কোনো অ্যাপ ফোনে ইনস্টল করার আগে নিরাপত্তা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নিবেন।

এছাড়া বাংলাদেশ পুলিশ প্রদত্ত সাইবার সিকিউরিটি গাইডলাইন ফলো করতে পারেন। আর ফেসবুক হেল্প সেন্টারে ক্লিক করে আপনি উপযুক্ত প্রমাণ এবং স্ক্রিনশট দিয়ে রিপোর্টও করতে পারেন।

মেসেঞ্জার ব্যাবহারে সতর্কতা:

আপনি চাইলে থানায়ও অভিযোগ জানাতে পারেন। আর যারা ভুলভাল মেসেজ পেয়েছেন আপনার কাছ থেকে মানে আপনার আইডি থেকে তাদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিন।

নিরাপত্তার কারণে অজানা কারোর ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট এক্সেপ্ট করবেন না। যার তার সাথে ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করবেন না। মনে রাখবেন, ফেসবুক কর্তৃপক্ষ কখনোই আপনার পাসওয়ার্ড জানতে চাইবে না। তাই আপনার মেসেঞ্জার ইনবক্সে এই জাতীয় মেসেজ পেলে স্ক্রিনশট সহ ঐ আইডি রিপোর্ট করুন ফেসবুক কর্তৃপক্ষের কাছে। অথবা সেই আইডি ব্লক করে দিন।

এখানে আরেকটা বিষয় আছে। আপনার ফোন চুরি হলে বা হারিয়ে গেলে অনেক সময় মেসেঞ্জার আইডি হ্যাক হবার সম্ভাবনা থাকে। কারণ মেসেঞ্জার পাসওয়ার্ড ফোনে সেভ করা থাকে। তাই যতদ্রুত সম্ভব পাসওয়ার্ড বদলে ফেলুন।

মেসেঞ্জারের পাসওয়ার্ড বদল এবং কঠিন পাসওয়ার্ড দেয়া

চেষ্টা করবেন পাসওয়ার্ড মাঝে মাঝে বদল করতে আর প্রতিবার নতুন নতুন পাসওয়ার্ড ব্যবহার করুন। ফোনে পাসওয়ার্ড সেভ করা থাকলেও তাতে সিকিউরিটি দিয়ে রাখুন। সবাই নিরাপদ থাকুন এবং সাইবার ক্রাইম থেকে বাঁচুন। প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিন এবং সবসময় সচেতন থাকুন।

একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড এর উদাহরণ এবং তৈরির কৌশল

উদাহরণ: LdT7ko^#

একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড এ সর্বনিম্ন ৮ অক্ষরের হওয়া উচিত এবং এগুলো থাকা উচিত- Uppercase (বড় হাতের অক্ষর) + Lowercase (ছোট হাতের অক্ষর) + Numbers (সংখ্যা) + Symbols (সাংকেতিক চিহ্ন)। উপরের উদাহরণটি দেখলেই বুঝতে পারবেন।

এক ক্লিকে পাসওয়ার্ড তৈরির কৌশল : এই ধরনের পাসওয়ার্ড তৈরির করার সাইট থেকে আপনি খুব সহজে একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরি করে নিতে পারেন। লিংক: https://www.lastpass.com/features/password-generator এবং https://passwordsgenerator.net/

আজ এই পর্যন্তই। আশা করছি আর্টিকেলটি আপনাদের কাজে লাগবে। আর কোনো প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করতে পারেন। গ্রাথোরের সঙ্গে থাকুন, ধন্যবাদ।

Related Posts

18 Comments

মন্তব্য করুন