হারানো জিনিস ফিরে পাওয়ার ইসলামিক দোয়া | উপায় বা কৌশল

আজকের পোস্টে আমরা কোনো কিছু হারিয়ে গেলে করণীয় কি, হারানো জিনিস ফিরে পাওয়ার ইসলামিক দোয়া নিয়ে আলোচনা করব। কোনো কিছু হারিয়ে গেলে কি করতে হবে, কিভাবে ফেরত পাবে, হারিয়ে যাওয়া বস্তু ফিরে পাওয়া নিয়ে কতিপয় ইসলামিক আমল ও দোয়া নিয়ে এ পোস্টে আলোচনা করা হবে। তো আর দেরি না করে চলুন শুরু করা যাক।

কোনো বস্তু হারানো

আমরা মানুষ। আর মানুষ মাত্রই ভুল। আমাদের জীবনের একটি বড় অংশ হচ্ছে ভুল।

ছোট কোনো কাজ থেকে শুরু করে জীবনের গুরুত্বপূর্ণ যেকোনো কাজেই আমরা ভুল করতে পারি।

কেউই ভুলের উর্ধ্বে হয়। কোনো ব্যক্তিই কোনো কিছুই বা বস্তু স্বেচ্ছায় হারায় না। ভুলে মনের অজান্তেই সে বস্তুটি হারিয়ে ফেলে।

রিকশাওয়ালাকে টাকা দেওয়ার সময় ২০ টাকা পড়ে যাওয়া থেকে শুরু করে লাখ টাকার মোবাইল পর্যন্ত সবকিছুই হারিয়ে যেতে পারে।

এখন হারিয়ে যাওয়া দুই ধরণের হতে পারে যা হচ্ছে ভুলে হারিয়ে যাওয়া ও চুরি হয়ে যাওয়া।

ভুলে হারিয়ে যাওয়া: কোনো বস্তু হারিয়ে যাওয়ার বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বস্তুর মালিক বস্তুটি কোথায় রেখেছে তা ভুলে যায়।

যেমন: ওয়ালেট থেকে টাকা বের করার সময় টাকা, আইডি কার্ড বা গুরুত্বপূর্ণ কিছু পড়ে যাওয়া।

কোনো স্থানে তার ফোন বা কোনো বস্তু রেখে আসা ও ভুলে যাওয়া।

আবাসিক হোটেলে উঠে সেখানে নিজের কিছু রেখে আসা।

এসকল ক্ষেত্রে বস্তুটি হারিয়ে যায় অন্য কাজে মনোযোগ বেশি থাকা ও সচেতন না থাকা।

চুরি হয়ে যাওয়া: চুরি হয়ে যাওয়া একদম ভিন্ন বিষয়।

আপনার ঘরে টোকাই, চোর বা ডাকাত ঢুকে আপনার মূল্যবান জিনিসপত্র

যেমন: নগদ অর্থ, সোনা বা হিরার গয়না ইত্যাদি। কিংবা রেস্টুরেন্ট বা কোনো পাবলিক প্লেসে ব্যাগ রেখে ওয়াশরুমে যাওয়া। এক্ষেত্রেও সচেতনতার অভাবে চুরি হয়ে থাকে।

কোনো কিছু হারিয়ে গেলে করণীয় কি?

কোনো কিছু হারিয়ে গেলে আপনি বেশ কিছু কাজ করতে পারেন। নিম্নে তার কয়েকটি উল্লেখ করা হলো:

১. সচেতন হওয়া

কোনো কিছু হারিয়ে যাওয়া রোধ করার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে সচেতনতা অবলম্বন করা।

ওয়ালেট থেকে টাকা বা অন্যকিছু বের করার সময় সাবধানে ধীরে সুস্থে করা।

আশেপাশে দিকে খেয়াল রাখা। অতিরিক্ত ব্যস্ত স্থানসমূহে বা অত্যাধিক জনসমাগমের স্থানে কিছুক্ষণ পরপর পকেটে হাত দিয়ে চেক করা যে সবকিছু ঠিক আছে কিনা।

এছাড়াও আপনি নগদ টাকা ব্যবহারের পরিবর্তে ব্যংক প্রদত্ত ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করতে পারেন।

নগদ টাকা বহনের চেয়ে কার্ড বহন করা অনেক সহজ ও নিরাপদ।

কার্ড যদি চুরিও হয়ে যায় তাহলেও কোনো সমস্যা নেই।

কারণ চোর আপনার কার্ড নিলেও কার্ডের পিন জানে না তাহলে ওই কার্ড থেকে টাকা উত্তোলন অসম্ভব৷ কার্ড চুরির কিছুক্ষণের মধ্যে আপনি ব্যাংকে ফোন দিয়ে জানিয়ে দিতে পারেন তাহলে ব্যাংক আপনার কার্ডটি লক করে দিবে।

এছাড়াও বাসা বাড়ির দরজা জানালা সময় মতো বন্ধ করা উচিত। ঘুমিয়ে পড়ার আগে একবার উঠে চেক করা উচিত যে সব দরজা জানালা ঠিকভাবে আটকানো আছে কিনা।

২. স্মরণ করার চেষ্টা করা

কোথায় আপনার টাকা বা কোনো বস্তু পড়ে গিয়েছে তা স্মরণ করা স্মরণ করার চেষ্টার মাধ্যমেও হারিয়ে যাওয়া সম্পদ ফিরে পাওয়া যেতে পারে।

এজন্য আপনি যে যে জায়াগায় গিয়েছেন সেখানে গিয়ে একটু খুঁজে দেখতে পারেন। একটি উদাহরণের সাহায্যে বোঝা যাক।

ধরুন আপনি দোকান থেকে কিছু কেনাকাটা করে বাসায় এসছেন।

এসে দেখেন যে ওয়ালেটে ৩০০০ টাকা কম আছে। এখন স্মরণ করার চেষ্টা করুন যে আপনি কোথায় কোথায় বসে টাকা বের করেছিলেন।

ধরুন আপনি রিক্সায় আসা-যাওয়া করেছিলেন।

তাহলে এই দুইবার আপনি ওয়ালেট থেকে টাকা বের করেছিলেন৷ এছাড়া দোকানে থাকা অবস্থায় অবশ্যই টাকা বের করেছিলেন।

এখন আপনি আপনার বাসার আশেপাশে ও ওই দোকানেত আশেপাশে একটু খুঁজে দেখতে পারেন এবং দোকানদারকে জিজ্ঞাসা করতে পারেন যে সে কোনো টাকা পড়া পেয়েছেন কিনা।

এ পদ্ধতিতে হারিয়ে যাওয়া টাকা ফেরত পাওয়ার সুযোগ খুবই কম। তবুও করে দেখতে পারেন।

৩. হারানো বিজ্ঞপ্তি

আপনার আইডি কার্ড বা কোনো জরুরি কাগজপত্র হারিয়ে গেলে তার জন্য আপনি মাইংকিং করতে পারেন।

সহজ বাংলায় একটি হারানো বিজ্ঞপ্তি দিতে পারেন। আমরা প্রায়শই এই হারানো বিজ্ঞপ্তিসমূহ শুনে বা দেখে থাকি।

গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র থেকে শুরু করা মানুষ পর্যন্ত হারিয়ে গেলে এ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া যায়।

হারানো বিজ্ঞপ্তি দেওয়া অনেকটাই কার্যকর৷ কোনো ব্যক্তির আপনার আইডি কার্ড বা গুরুত্বপূর্ণ কোনো কাজগপত্র চুরি করে তেমন কোনো লাভ নেই।

সেক্ষেত্রে হারানো বিজ্ঞপ্তি দিলে কেউ ওই কাগজপত্র পেলে অবশ্যই আপনাকে জানাবে।

৪. পুলিশকে জানানো

হারিয়ে যাওয়া বস্তু ফিরে পাওয়ার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে পুলিশকে জানানো।

চুরি হয়ে যাওয়া বস্তু কিংবা ভুলে হারিয়ে যাওয়া বস্তু উভয়ক্ষেত্রেই আপনি পুলিশকে জানাতে পারেন। আপনার টাকা, মোবাইল, ল্যাপটপ বা অন্য কোনো ডিভাইস, গহনাসামগ্রী এমনকি গরু ছাগল হারিয়ে গেলেও তা পুলিশকে জানাতে পারেন। এজন্য আপনার থানায় গিয়ে একটি জিডি (জেনারেল ডায়েরি) ফাইল করে আসতে হবে৷ একে সাধারণ ডায়েরিও বলা হয়।

কেউ যদি আপনাকে হুমকি দেয় কিংবা আপনি যদি নিরাপত্তাহীনতা বোধ করেন, কিংবা আপনার কোনো সম্পদ হারিয়ে যায় সেসকল ক্ষেত্রে আপনি জিডি বা সাধারণ ডায়েরি করতে পারবেন। জিডি করার কয়েকদিনের মধ্যেই আপনার হারানো জিনিসটি খুঁজে পাওয়ার কাজ শুরু হবে। এটি সাধারণত একটি সময়সাপেক্ষ বিষয় কিন্তু আপনার জিনিস ফেরত পাওয়ার সুযোগ অনেক বেশি।

হারানো জিনিস ফিরে পাওয়ার দোয়া

হারানো জিনিস ফিরে পাওয়ার ইসলামিক দোয়া

কোনো জিনিস হারিয়ে গেলে তা ফিরে পাওয়ার জন্য বেশ কিছু ইসলামিক আমল রয়েছে৷ নিচে কয়েকটি বর্ণনা করা হলো।

আমাদের মূল্যবান বা প্রিয় কোনো জিনিস হারিয়ে গেলে আমরা অনেক অস্থির ও চিন্তায় পড়ে যাই। কিন্তু ধৈর্য্যহারা হলে চলবে না। অবশ্যই আল্লাহর উপর ভরসা রাখতে হবে। এবং এর সাথে সাথে সালাত আদায়ের মাধ্যমে প্রার্থনা করতে হবে। কুরআন মজিদে আল্লাহ তায়ালা ইরশাদ করেন, ‘আর তোমরা ধৈর্য ও সালাতের মাধ্যমে সাহায্য প্রার্থনা করো।’ (সুরা : আল বাকারা, আয়াত : ৪৫)

হুজাইফা ইবনে ইয়ামান (রা.) থেকে বর্ণিত,
‘রাসুল (সা.) যেকোনো বিপদাপদে নামাজে দাঁড়িয়ে যেতেন।’ (আবু দাউদ, হাদিস : ১৩১৯)

অর্থাৎ কোনো কিছু হারিয়ে গেলে প্রথম কাজ হলো ধৈর্য্যধারণ করা ও নামাজ আদায় করা।
এছাড়াও এর পাশাপাশি কোনো কিছু হারিয়ে গেলে একটি দোয়া পড়তে বলা হয়েছে।

হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে অমর (রা:) থেকে বর্ণিত,
‘কারো কোনো কিছু হারিয়ে গেলে সে যেন অজু করার পর‌ দুই রাকাত নামাজ পড়ে এবং তাশাহুদ পড়ার পর উল্লিখিত দোয়াটি পাঠ করে।

দোয়াটি হলো:
بسم الله يا هادي الضلال وراد الضالة اردد علي ضالتي بعزتك وسلطانك فإنها من عطائك وفضلك

উচ্চারণ: বিসমিল্লাহি ইয়া হাদিয়াদ দ্বালাল, ওয়া রা-দ্দাদ দ্বাল্লাহ; উরদুদ আলাইয়া দ্বাল্লাতি, বিইজ্জাতিক ওয়া সুলতানিকা; ফাইন্নাহা মিন আত্বায়িকা ও ফাদ্বলিক।

অর্থ: আল্লাহর নামে শুরু। হে হারানো জিনিসের সন্ধানদাতা, হারানো বস্তু প্রত্যাবর্তনকারী; আপনার সম্মান ও ক্ষমতার উসিলা দিয়ে প্রার্থনা করছি, আপনি আমাকে আমার হারানো জিনিসটি ফিরিয়ে দিন। এটি আপনার দান এবং অনুগ্রহ। (বাইহাকি, মুসান্নাফে ইবনে আবি শায়বা ও‌ তাবারানি, আল‌-ওয়াবিলুস সাইয়েব)।

তাহলে কোনো কিছু হারিয়ে গেলে চিন্তিত বা অস্থির হওয়া যাবে না। ধৈর্য্যধারণ করতে হবে ও আল্লাহর উপর ভরসা রাখতে হবে। এছাড়া নামাজ পড়তে হবে ও নামাজের পর হারানোর জিনিসটা নিয়ে প্রার্থনা করতে হবে।

তো পোস্টটি কেমন লাগলো দয়া করে কমেন্টে জানাবেন, যদি ভাল লেগে থাকে তাহলে অবশ্যয় শেয়ার করবেন, পোস্টটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ। এমন সব দারুন দারুন পোস্ট পেতে Grathor এর সাথেই থাকুন এবং গ্রাথোর ফেসবুক পেইজ ও ফেসবুক গ্রুপ এ যুক্ত থাকুন, আল্লাহ হাফেজ।

Related Posts

8 Comments

মন্তব্য করুন