কম টাকায় গ্রামে লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া

বর্তমানে গ্রামে থেকেও স্বল্প পুঁজিতে লাভজনক ব্যবসা করা সম্ভব। আপনি মাত্র ১০০০০ টাকা বা তার কম পুঁজিতে গ্রামে থেকেই ব্যবসা শুরু করতে পারবেন। তার জন্য আপনার প্রয়োজন আপনার ধৈর্য, দক্ষতা, সৃজনশক্তি আর অধ্যাবসায়। কম টাকায় গ্রামে লাভজনক ব্যবসা করতে হলে প্রথমে আপনাকে চিহ্নিত করতে হবে আপনার দক্ষতা ও আগ্রহ ক্ষেত্র। এ সকল ব্যবসায়ী বিনিয়োগ কম থাকায় বাস্তবে আপনার শ্রম ও দক্ষতাকে বিক্রি করতে হবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক কম টাকায় গ্রামে লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কেঃ-

১/ মাশরুমের ব্যবসা

আপনারা অনেকেই মাশরুমের বিষয়ে জানেন। বর্তমানে মাশরুমের চাষ সবথেকে বেশি লাভজনক একটি ব্যবসা। তবে শহরে এর চাহিদা অনেক বেশি কিন্তু শহরে সেভাবে মাশরুম চাষ করার পরিবেশ বা জায়গা কোনটাই নেই। আপনি আপনার বাড়ির আশেপাশে কোন একটা ভালো জায়গা তে ছোট করে প্রথমে শুরু করতে পারেন মাশরুমের চাষ। এই ব্যবসায় খরচের চেয়ে লাভের পরিমাণ অনেক বেশি। সবথেকে সুবিধা হলো মাশরুম বিক্রি করার জন্য আপনাকে চিন্তা করতে হবে না কারণ মাশরুমের চাহিদা অনেক বেশি রয়েছে।

২/ মুদিখানার দোকান

গ্রামে বসবাসকারী মানুষের জন্য এই ব্যবসাটি অনেক লাভজনক। এই ব্যবসাটি স্বল্প মূলধনী করা সম্ভব। মুদি দোকানের ব্যবসা অনেক সহজ কারণ প্রত্যেকটা পরিবারের মধ্যে সামগ্রী প্রয়োজন হয়। তবে কিছু টেকনিক এর সাথে এই ব্যবসাটি করতে হবে যেমনঃ আপনার মূলধন কে তিন ভাগে ভাগ করতে হবে। একভাগ দোকানের মাল তুলতে হবে, একবার কাস্টমারকে বাকি দিতে হবে, এবং আরেকটি ভাগ মূলধন হিসেবে জমা রাখতে হবে। এভাবে ব্যবসা করলে আপনি সফলভাবে গ্রামে বসে মুদিখানার দোকানে লাভজনক ব্যবসা গড়ে তুলতে পারবেন।

৩/ মাছের ব্যবসা

আমরা মাছে ভাতে বাঙালি। আমরা প্রত্যেকবার খাবারের সাথে মাছ পছন্দ করি এবং মাছের চাহিদা অনেক বেশি। আপনার পুকুর খনন করার মত জায়গা থাকে তাহলে আপনি এই ব্যবসা করতে পারেন। এটি বর্তমানে সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসা। এই ব্যবসা শুরু করতে খুব বেশি মূলধন এর প্রয়োজন হয় না। গ্রামে বসে থেকে আপনি এই লাভজনক ব্যবসা করতে পারেন।

৪/ মুরগির খামার

মুরগির খামারে বেশিরভাগ গ্রাম অঞ্চলে দেখা যায়। গ্রামে লাভজনক ব্যবসার মধ্যে একটি। একটি মুরগির খামার তৈরি করতে আপনার খুবই অল্প জায়গা প্রয়োজন হবে। এই ব্যবসা শুরু করতে একজন বিক্রেতার সাথে চুক্তি করতে হবে যে আপনাকে মুরগির ছানা, প্রয়োজনীয় খাবার এসব সরবরাহ করবে এবং কিছু নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত আপনাকে মুরগিগুলোকে প্রতিপালন করতে হবে। আপনি যদি নিজেই সবকিছু প্রথমে করতে চান তাহলে ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারেন। তাই আপনাকে অবশ্যই ব্যবসা শুরুতে এতটা দেশে ঝুঁকি বারটেক নেওয়া উচিত নয়। অবশ্যই আপনার উচিত হবে একজন ব্যবসায়ীর সাথে যোগাযোগ করে ব্যবসা শুরু করা।

৫/ ওষুধের দোকান

বর্তমানে গ্রামাঞ্চলের মানুষজন ফার্মেসির দোকানিদের উপর অনেকটাই নির্ভরশীল। কেননা গ্রামের মানুষজন কোন সমস্যা হলে ফার্মেসির দোকানিদের কাছে ছুটে চলে যায়। তাই আপনি যদি আপনার গ্রামে একটি ওষুধের দোকান দিতে পারেন আপনার ব্যবসার ভবিষ্যৎ নিয়ে আর ভাবতে হবে না। আর আপনার জন্য এটি অনেক লাভজনক এবং সেরা ব্যবসা হয়ে উঠতে পারে। তবে এই ব্যবসাটি আপনি হঠাৎ করে শুরু করতে পারবেন না। আপনি প্রথমে কোন ওষুধের দোকান থেকে কমপক্ষে ছয় মাস বা এক বছর কাজ করতে হবে তবে আপনি ওষুধ সম্পর্কে সকল ধারণা পেয়ে যাবেন।

৬/ পোশাকের দোকান

পোশাক আমাদের সবার জন্য গুরুত্বপূর্ণ একটি পণ্য। ছোট থেকে বড় দেশ হওয়ায় আমরা পোশাক পরিধান করে থাকি। আপনি যদি আপনার গ্রামে একটি কাপড়ের দোকান খোলেন এবং আধুনিক ভালো কাপড় সরবরাহ করতে পারেন তবে আপনি গ্রামে বসে একজন সফল ব্যবসায়ী হতে পারবেন। এজন্য আপনার প্রয়োজন হবে পোশাক সরবরাহকারীদের উপর। যারা কমিশনের বিভিন্ন পোশাক সাপ্লাই দিয়ে থাকে।

৭/কাঁচামালের ব্যবসা

আপনি ইচ্ছে করলে গ্রামে থেকে কাঁচামালের ব্যবসা করে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন। চাইলে কাঁচামালের দোকান দিয়ে এই ব্যবসা করতে পারেন অথবা কৃষকের কাছ থেকে কাঁচামাল সংগ্রহ করে বিভিন্ন দোকানে পাইকারি দামে এটা বিক্রি করতে পারেন। সাধারণত শহরে কাঁচামাল বা সবজির অনেক দাম। গ্রামে অধিকাংশ মানুষ কৃষক যারা সরাসরি উৎপাদনের কাজে জড়িত থাকে। গ্রাম থেকে আপনি সুলভ মূল্যে কৃষকদের উৎপাদিত ফসল কিনে বিক্রেতাদের কাছে বিক্রি করতে পারেন। এ ব্যবসায় অল্প সময়ে অল্প পরিশ্রমে অধিক টাকা ইনকাম করা যায়।

৮/ ফলের বাগান

গ্রামে লাভজনক ব্যবসার মধ্যে ফলের বাগান অন্যতম। এ ব্যবসায় অনেক শিক্ষিত যুবকরা ঝুঁকে পড়েছে। শখ করে শুরু করে অনেকেই এই ব্যবসাটিকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছে। ফলের বাগান করতে হলে আপনাকে প্রথমেই চিন্তা করতে হবে আপনি কোন ফলের চাষ করবেন এবং সে বিষয়ে আপনাকে যথেষ্ট জ্ঞান থাকা প্রয়োজন। কিভাবে চারা রোপণ করতে হবে কিভাবে ভালো ফল পাওয়া যায় সেই বিষয়ে জানতে হবে এভাবে আপনি খুব সহজ একটি ফলের বাগান তৈরী করতে পারবেন। বর্তমানে কিছু লাভজনক ফলের বাগান হচ্ছেঃ পেয়ারা, ড্রাগন, মাল্টা বাগান, কলাবাগান, আমবাগান কমলালেবুর বাগান। আপনি এসব ফলের বাগান করে খুব সহজে লাভজনক ব্যবসা গড়ে তুলতে পারেন।

শেষ কথাঃ-

আশা করি আপনি খুব ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন কম টাকায় গ্রামে থেকে কিভাবে ও কোন ব্যবসা গুলো আপনি সহজেই শুরু করতে পারবেন। ব্যবসা করতে হলে যে শুধু শহরে থেকেই করতে হবে এমন কিন্তু নয়। গ্রামে থেকে অনেক লাভজনক ব্যবসা শুরু করা যেতে পারে। এক্ষেত্রে আপনার শুধু থাকতে হবে দক্ষতা ও বিশ্বাস। এবং যে ব্যবসা করবেন সেই ব্যবসার প্রতি শ্রদ্ধা। গ্রামে ব্যবসা সম্পর্কে আপনার যদি কোন মতামত থেকে থাকে তবে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে জানাবেন। এবং আজকের পোস্ট পড়ে আপনি উপকৃত হলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করবেন।

Related Posts

2 Comments

মন্তব্য করুন