★ Grathor.com এ আপনিও ✍ লেখালেখি করে ভূমিকা রাখতে পারেন এবং পাশাপাশি অর্থ আয় করতে পারেন★এখানে ক্লিক করে বিস্তারিত জানুন★

বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অগ্রগতির সাথে সাথে বিশ্বব্যাপী নগরায়নের হার বাড়ছে। সাথে তাল মিলিয়ে মানুষও আস্তে আস্তে শহরের দিকে এগিয়ে চলেছে।

এমনকি ব্রিটিশ শাসনামলে ঢাকা শহরের পরিধি ছিল বুড়িগঙ্গা থেকে পলাশী মোড় পর্যন্ত, তবে আজ ঢাকা শহরের পরিধি নারায়ণগঞ্জ থেকে সাভার, উত্তরা, আবদুল্লাহপুর বা গাজীপুর পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। শুধু ঢাকা শহরই নয়, জনসংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে বিশ্বের প্রায় সমস্ত শহরের পরিধি আরও বড় হচ্ছে।লন্ডন ভিত্তিক একটি মিডিয়া আউটলেট, দ্য ইকোনমিস্টের গোয়েন্দা ইউনিট বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহরের তালিকা প্রকাশ করেছে।

প্রায় ১৩৩ টি দেশের বিভিন্ন শহরে গবেষণা ও সমীক্ষা চালানোর পরে এই তালিকা প্রকাশ করা হয়েছিল। তালিকাটি ১৩৯ বিভিন্ন পণ্যের বাজার মূল্যের পাশাপাশি প্রয়োজনীয় পরিষেবাদির উপর ভিত্তি করে তৈরি। নিউ ইয়র্ক, বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী বাণিজ্যিক শহর, অন্যান্য শহরের তুলনায় একটি শহরে বসবাসের ব্যয় নির্ধারণের জন্য একটি মডেল হিসাবে ব্যবহৃত হয়।এ বছর ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর হিসাবে খেতাব পেয়েছে।


প্যারিসের পাশাপাশি সুইজারল্যান্ডের বাণিজ্যিক রাজধানী জুরিখ এবং হংকং শীর্ষে রয়েছে। সিটি কস্ট অফ লিভিং ইনডেক্স অনুসারে তিনটি শহরের স্কোর ১৩৮। এক পয়েন্ট পিছনে এই তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে সিঙ্গাপুর।জাপানের দ্বিতীয় বৃহত্তম নগরী হিসেবে পরিচিত ওসাকার অবস্থান তিনে। ওসাকার সঙ্গে যৌথভাবে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে পরিচিত তেল আবিব।

চতুর্থ স্থান দখল করেছে পৃথিবীর রাজধানী হিসেবে পরিচিত নিউইয়র্ক এবং সুইজারল্যান্ডের অন্যতম প্রসিদ্ধ নগরী জেনেভা। লস অ্যাঞ্জেলেস এবং ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেন রয়েছে তালিকার পঞ্চম স্থানে।বিশ্বব্যাপী মহামারী কোভিড -১৯ এর কারণে বিশ্বের প্রায় সমস্ত শহরের অর্থনৈতিক সূচকগুলি অপেক্ষাকৃত নিম্ন অবস্থানে নেমেছে।যার প্রভাব পড়েছে মানুষের জীবনযাত্রায়।

তালিকায় দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে ব্যয়বহুল নগরীর তকমা পেয়েছে ভারতের বন্দরনগরী খ্যাত মুম্বাই আর ঢাকার অবস্থান ৭২।