Connect with us
★ Grathor.com এ আপনিও ✍ লেখালেখি করে আয় করুন★Click Here★

দেশের খবর

মাধ্যমিক শিক্ষাথীদের এসাইনমেন্ট সিলেবাস লিংক। এবারের বার্ষিক পরীক্ষা এবং সরকারে নতুন ঘোষণা।

Naimul Islam

Published

on

পহেলা নভেম্বরব থেকে শিক্ষার্থীরা যে এসাইনমেন্ট সাবমিট করবে তার ডাউনলোড লিংক NCTB কর্তৃক দেওয়া হয়েছে। এছাড়া এবারের বার্ষিক পরীক্ষা সম্বন্ধে সরকারের সিদ্ধান্ত এবং মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা কিভাবে এসাইনেমন্ট দিবে এবং সিলেবাস এই লেখায় দেওয়া হবে। 

 সরকার কোন বার্ষিক পরীক্ষা মাধ্যমিক পর্যায়ে না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, আমাদের সরকার এবার মাধ্যমিক পর্যায়ে কোন বার্ষিক পরীক্ষা নিবে না।

তিনি আরো বলেছেন, মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হবে অ্যাসাইনমেন্ট এর মাধ্যমে। এবং সেখানে তাদের দুর্বলতা খুঁজে শিক্ষকেরা পরবর্তী একাডেমিক বছরে তাদেরকে এ বিষয়ে পাঠদান ও মূল্যায়ন করবেন।

Place your ad code here

পাশাপাশি এবার জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা এবং জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে না।

তিনি এ সিদ্ধান্তটি নেন একটি ভার্চুয়াল প্রেস ব্রিফিংয়ে। 

তিনি আরো বলেন, ন্যাশনাল কারিকুলাম এবং পাঠ্যপুস্তক বোর্ড 30 দিনের একটি দীর্ঘ সিলেবাস প্রণয়ন করেছে। যেটি প্রত্যেকের মাধ্যমিক স্কুলে অ্যাসাইনমেন্ট হিসেবে নিতে হবে।

শিক্ষা মন্ত্রী আরো বলেছেন, সামাজিক কর্তৃপক্ষ বা কর্মীরা অ্যাসাইনমেন্ট সমূহ ডেলিভার করবে এবং শিক্ষার্থীদের থেকে সেটি সংগ্রহ করবে।

এ বছর কোনো বার্ষিক পরীক্ষা হবে না। এবং শিক্ষকেরা শিক্ষার্থীদের থেকে কোন রকম বার্ষিক পরীক্ষা সরাসরি স্কুলে নিতে পারবে না। বরং অ্যাসাইনমেন্ট এর মাধ্যমে এবার মূল্যায়ন হবে।

ষষ্ঠ-নবম শ্রেণীর এসাইনমেন্ট এর সিলেবাস লিংক এখানে ক্লিক করুন।

 আবার, এ অ্যাসাইনমেন্ট এর রেজাল্ট কোনরকম পরবর্তী একাডেমিক বছরে প্রভাব ফেলবে না সেটাও মন্ত্রী উল্লেখ করেছেন।

কথাবার্তার পাশাপাশি তিনি আরও উল্লেখ করেছেন যে,  পূর্ববর্তী বছরের রোল অনুযায়ী বা রেজাল্ট অনুযায়ী পরবর্তী বছরে মেধাক্রম অনুসারে রেজাল্ট দেয়া হবে অথবা এ বিষয়ে শিক্ষকদের ভালো ধারণা আছে।

অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান, মানবিক এবং কমার্স সেকশনে পরবর্তী ক্লাস নাইনে দেয়ার ব্যাপারে শিক্ষকেরা দেরিতে আলোচনা করবে।

যারা অনলাইন ক্লাস এ অংশগ্রহণ করেছে এবং ফলো করেছে তারা বাসায় বসে আবার পড়া সমূহর রিভাইস দিবে। আর যারা অনলাইন ক্লাস করতে পারেনি তারা 30 দিনের অ্যাসাইনমেন্টে তাদের পড়া কমপ্লিট করবে।

টেকনিক্যাল বোর্ডের স্টুডেন্ট রা তাদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং যথাযথ কর্মসূচি গ্রহণ করে। এ ব্যাপারে মন্ত্রণালয়ের পরবর্তীতে ইনস্ট্রাকশন দিবে।

উপশিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী এমপি, টেকনিক্যাল এবং মাদরাসা বোর্ডের সেকরেটারি মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম,প্রফেসর ড. সায়েদ মোহাম্মদ গোলাম ফারুক সহ আরো অনেকে এ ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে অংশ নেন। 

আমরা জানি, সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মার্চের 16 তারিখের পর থেকে বন্ধ করে দেয়া হয় সরকারি নির্দেশে করোমা মহামারীর কারণে। অক্টোবর 31 তারিখ পর্যন্ত বন্ধ ছিল, পরবর্তীতে 14 নভেম্বর বন্ধ রাখা হবে বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এছাড়া এবার পিইসি অনুষ্ঠিত হবে না তার মানে হলো, প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে না। তারা এমনিই পরবর্তী বছরে প্রমোশন পাবে।

শিক্ষা মন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, তারা আরো নানা ধরনের সিদ্ধান্ত নিবে। কেননা বিশেষজ্ঞরা বলেছেন যে, শীতকালে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আসবে যার ফলে আরো ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করবে এই মহামারী করোনা।

[মৌলিক পোস্ট/রিসার্চ]

 

keyword: assignment class 9 syllabus, assignment class 8 syllabus, assignment class 7 syllabus, assignment class 6 syllabus, assignment corona bd, dr. dipu moni briefing, এবারের বার্ষিক পরীক্ষা, psc exam 2020, jsc exam 2020, hsc 2020, annual exam 2020, pec 2020

Advertisement
11 Comments
Subscribe
Notify of
11 Comments
Oldest
Newest
Inline Feedbacks
View all comments
Mojammal Haque

গুড পোস্ট

Maria Hasin Mim

ধীরে ধীরে স্কুল খোলার প্রচেষ্টা

Md Parvej

👍

Md Golam Mostàfa

করোনা ভাইরাস সব স্কুলেই বাসা বেঁধেছে।

Saima Lima

oo..

MD. SADAQUL ISLAM

গুড পোস্ট

Farhana liza Farhana liza

Good post

Md. Mashum Ali

সটিক সময়ে উপযুক্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ায় বুদ্ধিমানের কাজ। এ টা সঠিক হয়েছে বলেআমি মনে করি।
তিনি বলে- পহেলা নভেম্বরব থেকে শিক্ষার্থীরা যে এসাইনমেন্ট সাবমিট করবে তার ডাউনলোড লিংক NCTB কর্তৃক দেওয়া হয়েছে। এছাড়া এবারের বার্ষিক পরীক্ষা সম্বন্ধে সরকারের সিদ্ধান্ত এবং মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা কিভাবে এসাইনেমন্ট দিবে এবং সিলেবাস এই লেখায় দেওয়া হবে।
 এছাড়া এবার পিইসি অনুষ্ঠিত হবে না তার মানে হলো, প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে না। তারা এমনিই পরবর্তী বছরে প্রমোশন পাবে।
শিক্ষা মন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, তারা আরো নানা ধরনের সিদ্ধান্ত নিবে। কেননা বিশেষজ্ঞরা বলেছেন যে, শীতকালে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আসবে যার ফলে আরো ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করবে এই মহামারী করোনা। তিনি আরও বলে কথা বার্তার পাশাপাশি তিনি আরও উল্লেখ করেছেন যে, পূর্ববর্তী বছরের রোল অনুযায়ী বা রেজাল্ট অনুযায়ী পরবর্তী বছরে মেধাক্রম অনুসারে রেজাল্ট দেয়া হবে অথবা এ বিষয়ে শিক্ষকদের ভালো ধারণা আছে।মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হবে অ্যাসাইনমেন্ট এর মাধ্যমে এবং সেখানে তাদের দুর্বলতা খুঁজে শিক্ষকেরা পরবর্তী একাডেমিক বছরে তাদেরকে এ বিষয়ে পাঠদান ও মূল্যায়ন করবেন।
সব মিলিয়ে সিদ্ধান্ত সঠিক হয়েছে। কারণ বর্তমান পরিস্থির জন্য নতুন করে অনেক ভাবনাই ভাবতে হবে সরকারকে। সরকার চায় দেশের সর্ব দিক ঠিক থাক আর দেশের উন্নতি হোক। আমি বর্তমান সরকারকে ধন্যবাদ জাইন যে, চরম প্রতিকুল পরিস্থিতির মধ্যেও দেশের অবস্থা ভাল রাখতে যথেষ্ট বুদ্ধি কাজে লাগিয়েছেন।এরকম অবস্থায় অনেক দেশ পিছিয়েইতি মধ্যেই সরকার অনেক ব্যবস্থা নিয়েছে। যেমন-কখনো ফেসবুক লাইভ কিংবা জুম ব্যবহার করে শিক্ষকরা তাদের ক্লাস নিচ্ছেন। ক্লাসে অংশ নিতে মায়ের মোবাইল ব্যবহার করে ফাইজা।
তার মা সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ফেরদৌসি রেজা চৌধুরী জানান, বেলা বারোটা থেকে দুইটা পর্যন্ত অনলাইনে প্রতিদিন এভাবেই ক্লাস করতে হচ্ছে তার মেয়েকে।
 
ঢাকায় সরকারি বেসরকারি বিশেষ করে সুপরিচিত স্কুলগুলোতে গত এক মাস ধরেই এমন চর্চা চলছে।
করোনাভাইরাসের কারণে সরকার গত মার্চে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণার পর এপ্রিল পর্যন্ত ঈদসহ নানা ছুটির কারণে মে মাস থেকেই অনলাইনে শিক্ষার্থীদের পড়ানোর কাজ শুরু করে অনেক স্কুল।
ঢাকার বাইরে চট্টগ্রাম, যশোর, রাজশাহী ও সাতক্ষীরাসহ আরও কয়েকটি অঞ্চলে এ ধরণের অনলাইন শিক্ষাদান কর্মসূচি চালু করেছে অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।
তবে শহরাঞ্চলে ঠিক কত স্কুল অনলাইনে পাঠদান শুরু করেছে আর কতগুলোতে চালু করা যায়নি তার কোনো হিসেব নেই।
আবার সরকারি স্কুলগুলোতে অনলাইনের চেয়ে বেশি জোর দেয়া হচ্ছে সংসদ টিভির মাধ্যমে স্কুলের সিলেবাস অনুযায়ী পাঠদান প্রক্রিয়াকে।

Mahmudul Karim

Good post

এখন সবাই পড়াশোনায় বসবে।ভালো সিদ্ধান্ত।

দেশের খবর

পাশে দাঁড়ান জনগণের আর সমাধান করুন

Shahin Khan

Published

on

জনগণের জন্য কিছু তথ্য সময় আর অসময় নয় , জানিয়ে দিতে চাই সকল তথ্য সকলের জন্য । আইন-আদালত সকল বেপারে কর্মজীবনের অনেক তথ্য ,আমাদের সকলকে সচেতনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে একটি তথ্যভান্ডার এর জায়গায় আপনাদের স্বাগতম ।

সতর্কতার জন্য একটি বিশেষ বার্তা আমরা করতে পারি অনেক কিছুই । কিন্তু আজ আমরা কেন পিছিয়ে , তার কারণ হলো ধীরে ধীরে তুলে ধরব । যেমন আমরা গোপন করেছি এমন কিছু যা জনগণের কাছে তা জানা নাই । সবার জন্যই জানার দরকার আছে কারণ আপনার আমার সকলেরই কিছু-না-কিছু ক্ষয়ক্ষতির মাধ্যমে কারো ভালো কারো অমঙ্গল হয় । তাই আমরা মঙ্গলের জন্য কিছু তথ্য সবার কাছে তুলে ধরার চেষ্টা করছি । জনগণকে সুখে রাখার জন্য নিজের সুখের চিন্তা করবে সে কখনোই জনগণের মঙ্গল করতে পারবে না ।

জনগণকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে কর্মসংস্থান কলকারখানা বিভিন্ন ধরনের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা দরকার । যদি আমরা এগুলো কি করতে পারি, শুধু জনগণের সুখে থাকবে তা না পুরা দেশটাই শান্তিতে ভরপুর হয়ে যাবে । দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে দেশে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা উচিত , তবে আয় উন্নতির দিক দিয়ে অর্থ ঠিকভাবে সকলের কাছে পৌঁছে দিতে হবে । আর আমাদেরকে ঠিক করে নিতে হবে কিভাবে একজনের কর্মজীবী লোককে অর্থ ঠিক পরিমাণমতো দেওয়া হচ্ছে কিনা ।

Place your ad code here

সরকারিভাবে সকলের জন্য অর্থ কি ঠিকমতন করে সবার কাছে পৌছানোর জন্য একটি নির্দিষ্ট আইয়ের ব্যবস্থা করিয়া দেওয়া । আর্থিক অভাব এর জন্যই আজ জনগণের অনেক দুর্গতির ভোগান্তি , তাই আমরা সরকারিভাবে আইয়ের ঠিক নির্দিষ্ট পরিমাণ ঠিক করা উচিত বলে মনে করি । বাংলাদেশের উন্নতির জন্য সবার জন্য এই ব্যবস্থাটা হওয়া খুব জরুরী ,কারো কাছ থেকে বেশি নেওয়াটাও ঠিক নয়, এবং কম নেয়াটাও ঠিক নয় । কারণ এর জন্যই হতে পারে একজন কর্মঠ ব্যক্তির জন্য সামান্য , আবার হতে পারে এটা একজন গেরস্থ জন্য সুবিধা ।

যে কর্ম করে খাই তার জন্য কম নেওয়াটা খুবই কষ্ট , কারণ তার পেটের ভাতের জন্য তাকে অধিক সময় পরিশ্রম করা লাগে । আমরা যদি তার জন্য কিছুটা উপকার করতে পারি , তাহলে দেশ এবং দেশের জনগণের জন্যই কিছু করা হবে । আমাদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে কিছুটা চিন্তাভাবনা করা উচিত , কিন্তু আমাদের মতন কিছু লোক এসব ব্যাপারে কোন কথাই বলতে চায় না । আমাদেরকে এসব ব্যাপারে কিছু আলোচনা তুলে ধরা উচিত সকল ক্ষেত্রেই , যাতে করে আমরা আমাদের শ্রমিকদের জন্য কিছু করতে পারি । তাদের পারিশ্রমিক যদি ঠিকভাবে দেওয়া হয় তাহলে ঠিক হবে কর্মজীবী জন্য ।

Continue Reading

দেশের খবর

একটি বিশেষ সংবাদ দেওয়া হল গ্রাম বাংলার জন্য

Shahin Khan

Published

on

আমাদের গ্রামে এক সময় কিছুই ছিল না , আজ আমার গ্রামে আছে অনেক কিছুই । কিন্তু নাই শুধু ন্যায় অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবার কেও , সমাজ ব্যবস্থার কোন আইন কানুন নাই । কেউ অন্যায় করলে তাকে বাধা দেওয়ার কেউ নাই , তাই আজ আমার গ্রামের জন্য কিছু লিখতে বাধ্য হলাম ।সবার কাছে অনুরোধ আমার এই পোস্ট গুলো একটু সবাই মনোযোগ সহকারে পড়বেন যাতে করে সবাই এ ব্যাপারে উদ্যোগ নিতে পারে ।

উন্নতি হলেই হয় না , উন্নতির সাথে দেশের সমাজ ব্যবস্থার আইন কানুন কর্মবিধি ব্যবস্থাপনার দিকেও লক্ষ্য রাখতে হবে । সতর্কতার সাথে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য প্রতিটা ক্ষেত্রেই উদ্যোগ নেওয়া উচিত । আমার গ্রাম বাহাগুন্দা , জেলা মেহেরপুর, থানা গাংনী, পোস্ট অফিস ইসলামনগর , আমার এই ছোট্ট একটি গ্রাম স্বপ্ন অনেক আশা অনেক এবং চাই অনেক কিছু করতে ।

কিন্তু দেশে সরকারিভাবে কোনরকম ব্যবস্থা নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ ভাবি দরকার ,তাই সকল ক্ষেত্রেই আমরা চাই যে দেশের উন্নয়ন করতে হলে আগে গ্রামের খোঁজ খবর নেওয়া ব্যবস্থা করা উচিত । শহর অঞ্চল গুলো দিন কি দিন তাদের অন্যটি গতি ভর্তি থাকছে , কিন্তু গ্রামের মধ্য কোন রকম ভাবেই এমন কোনো উদ্যোগ নাই যে উন্নতি আসবে । তাই আসুন দেশকে জানান দেশের মানুষকে জানান এবং দেশের সরকারকে জানার সুযোগ করে । দেশ গড়ার উদ্যোগে আমরা সবাই যোগদান , মানুষ মানুষের জন্য কাজ করি ।

Place your ad code here

প্রতিটি গ্রামে যদি উন্নয়ন আসে তাহলে উন্নয়নের বন্যা বইছে । আমাদের বাংলাদেশ যেমনি ছোট তেমনি গ্রাম অঞ্চল গুলো ছোট , তাই এর লক্ষ্য রাখার বিষয়ে আমরা খুব ছোট করে দেখি । যার জন্য এই গ্রাম গুলোই হয়ে উঠছে অন্যায়-অবিচারের আখড়া । তাই আসুন এমনভাবে আমরা কাজ করি যাতে করে , বিভীষিকাময় কাটাতে পারি । একটা সুন্দর পরিবেশ তৈরি করতে পারি , সমাজ ব্যবস্থার উন্নতি করতে পারি । আমরা যদি সবাই একটু ভেবে চিন্তে কাজ করি তাহলে কোন জায়গায় দারিদ্রতা থাকবে না । আর এই দারিদ্রতার ভয় সকলের , দেওয়ার ভয় সকলের আছে ।

কিন্তু নেওয়ার বেলায় কোনরকম চিন্তা ভাবনা করি না , কে গরিব আর কে ধনী এগুলো আমরা দেখি না । আসুন দেশের জন্য কাজ করি মানবতার জন্য কাজ করি । আমরাই এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি আমাদের দেশকে । আমরাই বাড়াতে পারি দেশের উন্নতি , মানুষের পাশে থেকে সকল বেপারে উদ্যোগ নেওয়ার ব্যবস্থা করতে পারি । যদি আমরা এগুলোকে প্রকাশ না করি তাহলে কেমনে জানবে জনগণ , আর কেমনে জানবে সরকার । সরকারের কাছে আমাদের কথা গুলো তুলে ধরা কর্তব্য আসুন জানান দেই এবার ।

Continue Reading

দেশের খবর

বাংলাদেশের বিভিন্ন দিবসের নাম তারিখ জানুন

Zual Bawm

Published

on

বিভিন্ন দিবসের নাম তারিখ জানুন

যারা এখন‌ও পর্যন্ত বাংলাদেশের সবকিছু দিবসের নাম ও তারিখ জানেনা।তারা জেনে নিন, এখানে সবকিছু দেওয়া আছে:

১০ জানুয়ারি ==> বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস।

Place your ad code here

১৯ জানুয়ারি ==> জাতীয় শিক্ষক দিবস।

২০ জানুয়ারি ==> শহীদ আসাদ দিবস।

১৪ ফেব্রুয়ারি ==> সুন্দরবন দিবস।

২১ ফেব্রুয়ারি ==> শহীদ দিবস।

২৮ ফেব্রুয়ারি ==> জাতীয় ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস।

২ মার্চ ==> জাতীয় পতাকা দিবস।

৮ মার্চ ==> বিশ্ব নারী দিবস।

১৭ মার্চ ==> শিশু দিবস।

২১ মার্চ ==> বিশ্ব বৈষম্য দিবস।

২২ মার্চ ==> বিশ্ব পানি দিবস।

২৩ মার্চ ==> বিশ্ব আবহাওয়া দিবস।

২৪ মার্চ ==> বিশ্ব যক্ষা দিবস।

২৬ মার্চ ==> স্বাধীনতা দিবস।

৩১ মার্চ ==> জাতীয় দুর্যোগ প্রস্তুতি দিবস।

২ এপ্রিল ==> জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস।

৭ এপ্রিল ==> বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস।

১৭ এপ্রিল ==> মুজিবনগর দিবস।

২৩ এপ্রিল ==> বিশ্ব গ্রন্থ ও গ্রন্থস্বত্ব দিবস।

২৬ এপ্রিল ==> বিশ্ব মেধা সম্পদ দিবস।

১ মে ==> মহান মে দিবস।

৩ মে ==> বিশ্ব সংবাদপত্র স্বাধীনতা দিবস।

৪ মে ==> আন্তর্জাতিক শিশু দিবস।

১৩ মে ==> বিশ্ব মা দিবস।

১৫ মে ==> বিশ্ব পরিবার দিবস।

১৬ মে ==> ফারাক্কা দিবস।

১৭ মে ==> বিশ্ব টেলিযোগাযোগ দিবস।

২২ মে ==> বিশ্ব জীববৈচিত্র দিবস।

২৫ মে ==> কাজী নজরুল ইসলাম-এর জন্মবার্ষিকী।

২৮ মে ==> নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস।

২৯ মে ==> বিশ্ব জাতিসংঘ শান্তি রক্ষা দিবস।

৩১ মে ==> বিশ্ব তামাক মুক্ত দিবস।

৫ জুন ==> বিশ্ব পরিবেশ দিবস।

৭ জুন ==> ছয় দফা দিবস।

১২ জুন ==> বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস।

১৩ জুন ==> নারী উত্ত্যক্তকরণ প্রতিরোধ দিবস বা ইভ টীজিং প্রতিরোধ দিবস।

২৩ জুন ==> পলাশী দিবস।

২০ জুন ==> বিশ্ব উদ্বাস্তু দিবস।

২১ জুন ==> বিশ্ব সংগীত দিবস।

১ জুলাই ==> ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস।

৩ জুলাই ==> জন্ম নিবন্ধন দিবস।

৭ জুলাই ==> বিশ্ব সমবায় দিবস।

১০ জুলাই ==> মুসক দিবস।

১১ জুলাই ==> বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস।

১৮ জুলাই ==> ম্যান্ডেলা দিবস।

২৯ জুলাই ==> বিশ্ব বাঘ দিবস।

৬ আগস্ট ==> হিরোসিমা দিবস।

৯ আগস্ট ==> বিশ্ব আদিবাসী দিবস ও নাগাসাকি দিবস।

আগস্ট এর প্রথম রবিবার ==> বিশ্ব বন্ধু দিবস।

১২ আগস্ট ==> বিশ্ব যুব দিবস।

১৫ আগস্ট ==> জাতীয় শোক দিবস।

৮ সেপ্টেম্বর ==> বিশ্ব স্বাক্ষরতা / নিরক্ষরতা দিবস।

১৫ সেপ্টেম্বর==> জাতীয় আয়কর দিবস।

সেপ্টেম্বর এর তৃতীয় মঙ্গলবার ==> বিশ্ব শান্তি দিবস।

১৭ সেপ্টেম্বর==> মহান শিক্ষা দিবস।

৫ অক্টোবর ==> শিক্ষক দিবস।

৯ অক্টোবর ==> বিশ্ব ডাক দিবস।

১৬ অক্টোবর ==> বিশ্ব খাদ্য দিবস।

২২ অক্টোবর==> জাতীয় সড়ক নিরাপদ দিবস।

৩ নভেম্বর==> জেলহত্যা দিবস।

৪ নভেম্বর==> সংবিধান দিবস।

৭ নভেম্বর==> জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস।

১০ নভেম্বর==> নূর হোসেন দিবস বা স্বৈরাচার বিরোধী দিবস ও মালাল দিবস।

২১ নভেম্বর==> সশস্ত্রবাহিনী দিবস।

১ ডিসেম্বর==> মুক্তিযোদ্ধা দিবস ও বিস্ব এইডস দিবস।

৩ ডিসেম্বর ==> বিশ্ব প্রতিবন্ধী দিবস।

৬ ডিসেম্বর==> স্বৈরাচার পতন দিবস* বা সংবিধান সংরক্ষণ দিবস।

৯ ডিসেম্বর==> রোকেয়া দিবস।

১০ ডিসেম্বর ==> বিশ্ব মানবাধিকার দিবস।

১৪ ডিসেম্বর==> শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস।

১৬ ডিসেম্বর==> বিজয় দিবস।

১৮ ডিসেম্বর ==> আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস।

সবাই কে ধন্যবাদ

Continue Reading






গ্রাথোর ফোরাম পোস্ট