লেখক হতে হলে কি কি করতে হবে?

হ্যালো, আপনারা সবাই কেমন আছেন,আশা করি আপনারা সবাই ভাল আছেন। আপনাদের মাঝে আজকে আমি যে বিষয়টি নিয়ে কথা বলব সেটা হচ্ছে লেখালেখি। অর্থাৎ একজন লেখক কে নিয়ে আপনি যদি একজন নতুন লেখক হয়ে থাকেন তাহলে,কিভাবে লেখালেখি করবেন এবং কি লিখবেন কোথায় লিখবেন এবং আপনার যে লিখাটি সেটা আপনি কিভাবে প্রকাশ করবেন সেটা আপনাদেরকে আজকে আমি বিস্তারিত জানাবো।সো আমি আপনাকে একদম বিস্তারিত সঠিকভাবে জানিয়ে দিচ্ছি।

আজকে আমরা লেখালেখি কে কয়েকটি ভাগে ভাগ করব, এবং প্রত্যেকটি ভাগ নিয়ে আলোচনা করব এবং সেই ভাগগুলি হল:

  1. লেখালেখি কি এবং এটা কিভাবে করা যায়?
  2. নতুন লেখক হিসেবে আমরা কিভাবে লিখতে পারি?
  3. আমাদের লেখাটি লেখার পরে কিভাবে আমরা প্রকাশ করতে পারি?

সো আমি এই তিনটি বিষয় নিয়ে আপনাদের মাঝে এখন আলোচনা করব এবং আপনাদেরকে বুঝিয়ে দেবো চলুন শুরু করা যাক।

১-লেখালেখি কি এবং এটা কিভাবে করা যায়?

দেখুন লেখালেখি হচ্ছে ওইটাই যা আপনি লিখে প্রকাশ করেন। এবং লেখালেখি প্রত্যেকটি মানুষের ভিতরে থাকে না যে লেখালেখি করতে চাই বা যে লেখক তার ভিতরে অত্যন্ত পরিমাণে ধৈর্য থাকে।এবং সে খুবই সুন্দর ও বিবেচনা মূলক লিখতে পারে। আমরা সবাই জানি লিখার আগে আমাদেরকে খুব চিন্তা করে লিখতে হয়।

মনে কর তুমি কোন একটি বিষয় নিয়ে লেখবে এবং ওই বিষয়টি নিয়ে লেখতে হলে, অবশ্যই তোমাকে ওই বিষয়টির উপরে জ্ঞান রাখতে হবে।অথবা তুমি ইন্টারনেট থেকে জ্ঞান নিতে পারো।যেহেতু তুমি নতুন লেখক সেহেতু তোমার কাছে সেই রকম কোন জ্ঞান থাকবে না তাই তুমি ইন্টারনেট থেকে যাচাই বাছাই করে লিখবে,এবার চলো দুই নাম্বার পয়েন্টে যাওয়া যাক।

২-নতুন লেখক হিসেবে আমরা কিভাবে লিখতে পারি?

দেখুন একজন নতুন লেখকের ধৈর্য খুবই কম থাকে এবং সে তো ভালোভাবে লিখতে পারেনা তবে লেখক হিসেবে মাথায় রাখতে হবে, যে ধৈর্য রাখা অত্যন্ত জরুরী আগে থেকেই একটি ভালো লেখক কখনই লিখতে শুরু করে না।সে প্রথমত যেই বিষয়টি নিয়ে লেখে সেই বিষয়ে ভাবতে শুরু করে। এবং সে প্রচুরভাবে আর এখন একজন নতুন লেখক হিসাবে খুবই সুবিধা পাবে।

নতুন লেখকরা কারণ এখন ইন্টারনেটের যুগ তাই ইন্টারনেট থেকে সবাই সুবিধা নিতে পারবে এবার মনে করো তুমি একটি গল্প লিখে ফেলেছ, এবং গল্পটি তুমি ভালোভাবে পড়বে এবং বুঝতে পারবে যে গল্পটি কোথায় ভুল হয়েছে তুমি যত পড়বে তোমার ততই ভিতরে জ্ঞান আসবে। যে তুমি কোথায় কোথায় ভুল করেছে এবং কোথায় কোথায় তোমাকে আরো সুন্দর করে লিখতে হবে চলো এবার তিন নাম্বার পয়েন্টে যাওয়া যাক।

৩-আমার লেখা গল্পটি প্রকাশ করবো কিভাবে?

দেখো একজন নতুন লেখককে কেউই চেনে না,এবং নতুন লেখকের বই মেলাতে দিলে কেউই তা সহজে নিতে চাইবে না।এবং যদি কোন প্রকাশনায় তুমি বই পাবলিশ করতে চাও তাহলে তোমার সেরকম কোন একটা লিখোক হিসেবে খ্যাতি পাবে না।তবে আমি তোমাদেরকে বলবো, তোমরা প্রকাশনা করার আগে লিখে লিখে প্র্যাকটিস করবে। এবং তোমরা বলতে পারো যে ভাই লিখে লিখে প্র্যাকটিস করব তার কোন দাম পাবো না।

এত কষ্ট আরে না ভাই একজন লেখক কখনো টাকার উপরে বসে থাকেনা। সে শুধু তার লেখার উপরেই বসে থাকে তারপরও তোমাদেরকে আমি বলি, তুমি যে প্র্যাকটিস করছ সেটাও আপলোড করতে পারবে, বিভিন্ন ইন্টারনেটের সাইটে সেই রকমই একটা সাইট আছে গ্রাথর তোমরা এখানেও তোমার ওই গল্প লেখাটি পাবলিশ করতে পারবে।এবং তার জন্যেও তুমি কিছু টাকা পাবে এবার তুমি এখান থেকে গল্প লিখতে পারবে আবার ইনকাম করতে পারবে যদি তুমি এভাবে কাজ করে যাও তাহলে নিশ্চয়ই একদিন একটা লেখক হতে পারবে।

আজকে তোমাদেরকে এ পর্যন্তই সবাই ভালো থাকবে সুস্থ থাকবে।

❤️❤️ধন্যবাদ❤️❤️

Related Posts

8 Comments

  1. ভালো লিখেছেন।

    আমার একটা প্রশ্ন ছিল যে উত্তর দিতেন?
    আমার লিখতে অনেক ভালো লাগে কিন্তু আমার হাতের আঙ্গুল অনেক ব্যাথা হয়ে যায়, পাঁচশো এক হাজার ওয়ার্ডের আমি কোন পোস্ট লিখতে গেলে আমার হাত-পা সব ব্যাথা হয় যার করণীয় কি।

মন্তব্য করুন