★ Grathor.com এ আপনিও ✍ লেখালেখি করে ভূমিকা রাখতে পারেন এবং পাশাপাশি অর্থ আয় করতে পারেন★এখানে ক্লিক করে বিস্তারিত জানুন★

কম্পিউটার ব্যবহার নিয়ে কিছু জানা-অজানা টিপস্

১. কম্পিউটারের ধারে কাছে ধোয়া, ধুলা বা অন্য কিছুর প্রবেশ বন্ধ করতে হবে। কারণ এগুলো হার্ডডিস্ক, প্রসেসর এর মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে।

২. কম্পিউটারকে সরাসরি সূর্যের আলো কিংবা আদ্র আবহাওয়া থেকে দূরে রাখা ভালো।

৩. দেওয়াল ঘেসে কখনই কম্পিউটারকে রাখা যাবে না। প্রতিটি কম্পিউটারের মধ্যে নিজেকে ঠান্ডা রাখার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা থাকে ।কুলিং ফ্যানের বাতাস বের করা বা গ্রহণ করার জন্য এক হাত বা দু- হাত ফাঁকা থাকে।


দেওয়াল ঘেসে রাখলে সে ব্যবস্থা বাধাগ্রস্থ হয়। এছাড়াও দেওয়াল থেকে চুন, রং ইত্যাদি খসে কম্পিউটারের মধ্যে প্রবেশ করলে কম্পিউটার নষ্ট হয়ে যেতে পারে তাই দেওয়াল থেকে দূরে রাখবেন।

৪. কম্পিউটার চালু করার আগে অবশ্যই দেখে নিতে হবে এর সাথে লাগানো তারগুলো ঠিকঠাক লাগানো আছে কিনা। কোন তার ঢিলা থাকলে স্পার্ক হয়ে কম্পিউটার ডিভাইস নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

৫. কম্পিউটারে বিদ্যুৎ সংযোগ অবশ্যই ভোল্ট ষ্টাবিলাইজার মাধ্যম হতে হবে।কারণ আমাদের দেশে বিদ্যুতের উঠা-নামা যে দ্রুত গতিতে হয় তাতে কম্পিউটার হঠাৎকরে খুব বেশী ভোল্টেজ চলে আসতে পারে। এতে কম্পিউটারের দূর্বল জিনিষগুলো পুড়ে যেতে পারে।


৬. ডিস্ক ড্রাইভ এর লাইট জ্বলা অবস্থায় কখনোই ডিস্ক বের করা যাবে না।করলে ডিস্ক ড্রাইভ এর রিডার হেড নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

৭. কম্পিউটারের সিগন্যাল বাতি(লাল এন্টিগেটর বাল্ব) মিট মিট করে জ্বলতে থাকলে বুঝতে হবে কম্পিউটার কোন না কোন কাজ করছে। এই অবস্থায় কম্পিউটারের সুইচ সরাসরি বন্ধ করা যাবে না। এতে হার্ডডিস্ক ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে, এমনকি নষ্ট হতেও পারে।

৮. কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক কখনই ফরমেট করা উচিৎ নয়।

৯. কম্পিউটারের কাজ করার সময় অস্থির হয়ে কিছু করা যাবে না। এমন অনেক কাজ আছে যা সম্পাদন করতে কম্পিউটার কিছুটা সময় নিতে পরে। অস্থির হয়ে কিছু করলে কম্পিউটারের স্বাভাবিক কাজের ব্যাঘাত সৃষ্টি হবে। ফলে কম্পিউটারের ক্ষতি হয়ে যেতে পারে তাই ক’মিনিট দেখতে হবে হুট করে রিস্টার্ট বা বন্ধ করা যাবে না।

১০. কম্পিউটার কীবোর্ড একটি প্রয়োজনীয় অংশ। এই কীবোর্ডের বোতামগুলো খুবই স্পর্শকাতর। খুব বেশী জোরে চাপদিয়ে অপারেট করা উচিৎ নয়। কীবোর্ডের কাছাকাছি কোন পাণীয় দ্রব্য বা তরল পদার্থ রাখা যাবে না পড়ে কিবোর্ডের সমস্যা হতে পারে।কম্পিউটার এর ইন্টার বাটন ভুল করে চেপে রাখবেন না যে বাটন উঠছে না এতে করে রিফ্রেশ হবে না।কম্পিউটারে সমস্যা দেখা দিবে।

১১. কোন একটি প্রোগ্রামে কাজ করার সময় সেই প্রোগ্রাম বন্ধ না করে সরাসরি সুইচ টিপে কম্পিউটার বন্ধ করা যাবে না। কম্পিউটার বন্ধ করতে হলে পর্যায়ক্রমিক ভাবে সব প্রোগ্রামগুলো বন্ধ করে কম্পিউটারের নির্ধারিত শাটডাউন পদ্ধতিতে বন্ধ করতে হবে।

১২. যখন দেখবেন আপনার কম্পিউটারে লাল আলো জ্বলছে না ঝাঁপাঝাপি করছে না বুঝে নিবেন আপনার কম্পিউটারের সমস্যা দেখা দিয়েছি হার্ডডিস্ক, Ram, Windows ক্রাশ করেছে এমনকি প্রসেসরের সমস্যা হতে পারে…

১৩. কম্পিউটার পরিষ্কার করবেন হাওয়া মেশিন দিয়ে এতে করে কম্পিউটারের ছোট্ট পাসগুলোতে আঘাত হানবে না। ব্রাশ দিয়ে পরিষ্কার ভুলেও করবেন না…

10 Comments

মন্তব্য করুন